বইয়ের আলোচনা

এই মেলায় বিপিএল-এর নতুন বই

মারুফ বিল্লাহ তন্ময় | 26 Feb , 2018  

border=0
বিতর্ক: মাতৃভাষায় বিজ্ঞান
সম্পাদক: রাজু আলাউদ্দিন, ড. ফারসীম মান্নান মোহাম্মদী

বাংলায় বিজ্ঞানবিষয়ক লেখালেখির একটি অভিনব অভিঘাত হলো ব্লগ। কিছুটা প্রমিতকরণের অভাব থাকলেও দেখা যায় তরুণ ব্লগাররা পরিভাষার সমস্যাকে সুন্দরভাবে পাশ কাটিয়ে তরতর করে বিজ্ঞান সাহিত্য লিখে চলেছেন। অনলাইন ব্লগের সূত্র ধরেই একটি পুরনো বিতর্ক আবার শোনা যাচ্ছে। সেটা হলো বাংলা ভাষা বিজ্ঞানের জন্য আদৌ উপযোগী কিনা।
সেই প্রসঙ্গেই এই সংকলন। এতে পূর্বোক্ত মূল লেখাগুলির পাশাপাশি ঠাঁই পেয়েছে এই সংক্রান্ত অনতিপ্রাচীন ভাবনাগুচ্ছের এক অসামান্য সংকলন। কুদরাত-ই-খুদা, আবদুল্লাহ আল-মুতী, মুহাম্মদ ইব্রাহীম, এ. এম. হারুন-অর-রশীদ, জহুরুল হক, আলী আসগর, মুহম্মদ জাফর ইকবালের মতো বিজ্ঞানীদের ভাবনা-চিন্তা। রয়েছে ইতিহাসবিদ শরদিন্দু শেখর রায়ের চমৎকার ঐতিহ্য বয়ান। ইতিহাসের অক্ষুন্ন বয়ান রক্ষার্থে সংযোজিত হয়েছে সত্যেন বসু ও প্রফুল্লচন্দ্র রায়ের লেখাও। এই সংকলনের প্রতিটি রচনা তাই যেন হিরণ্যগর্ভ-থার্ড মিলেনিয়ামের ব্লগীয় সংস্কৃতির তরুণ থেকে শুরু করে গত শতাব্দীর প্রথম মুসলিম ডক্টরেটের বিজ্ঞানের ভাষাচিন্তা। আধুনিক বাংলাভাষী পাঠকের জন্য এই সংকলনটি নতুন চিন্তার খোরাক দেবে।

প্রচ্ছদ: মোতাসিম বিল্লাহ পিন্টু
ISBN: ৯৭৮-৯৮৪-৯৩০৮৯-৯-৭
মূল্য: ৫৫০
পৃষ্ঠা সংখ্যা: ২৫৬
প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০১৮

border=0
স্বাধীনতার ঘোষণা: ইতিহাসের নিজস্ব পাঠ
সংকলক: মোতাসিম বিল্লাহ

বাংলাদেশের রাজনীতিতে বহুল আলোচিত বিষয় ‘স্বাধীনতার ঘোষণা’। কে, কখন, কোথায়, কীভাবে ঘোষণা করেছিলেন, তা ব্যাপক তর্ক-বিতর্কের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে ’৭৫ এ বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের পর থেকে। বিভিন্নজন বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন তত্ত্ব-তথ্য হাজির করে ঘি ঢেলেছেন এই বিতর্কে। গুরুত্বপূর্ণ কেউ কেউ এমন সব মৌখিক সাক্ষ্যনির্ভর তথ্য হাজির করছিলেন, যা পরবর্তিতে নাকচ হয়ে গেলেও তৈরি করে একটি ধোঁয়াশাময় অবস্থা। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আমাদের ইতিহাস ও রাজনীতি; বিভ্রান্তিতে ভুগেছে তরুণ যুব সমাজ থেকে শুরু করে সত্যাকাঙ্ক্ষী সব সাধারণ মানুষ। অকাট্য প্রমাণ আর প্রয়োজনীয় তথ্যের অভাবে বিতর্কটির আয়ু দীর্ঘায়িত হতে থাকলো। ফলে প্রয়োজন হয়ে পড়েছিল শক্ত প্রমাণসমৃদ্ধ সত্যানুসন্ধানের।
স্বাধীনতার ঘোষণার বিষয়টি নিয়ে বিতর্কের অবসান ঘটানো সক্ষম এই রচনাগুলো বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত হয়েছিল বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম এর মতামত পাতায়। কয়েকটি লেখা হুবহু রাখা হয়েছে আর কয়েকটি লেখা লেখকরা পরবর্তীতে কিছুটা সম্পাদনা করেছেন। আমরা লেখাগুলো দুই মলাটে আবদ্ধ করেছি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম এর প্রধান সম্পাদক তৌফিক ইমরোজ খালিদী’র প্রণোদনায়।
আশা করি রচনাগুলো বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা বিষয়ক অপ্রয়োজনীয় বিতর্কের অবসান ঘটাবে। জাতি মুক্ত হবে অযথা একটি বিতর্ক থেকে।

ISBN: ৯৭৮-৯৮৪-৯৩০৯০-৬-২
মূল্য:২৮০
পৃষ্ঠা সংখ্যা: ১১২
প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০১৮

border=0
চকবাজার টু চায়না
শান্তা মারিয়া

চকবাজার টু চায়না নিছক ভ্রমণ কাহিনি নয়। চীন আন্তর্জাতিক বেতারে সাংবাদিক হিসেবে কর্মরত থাকার সময় শান্তা মারিয়া গভীর অনুসন্ধিৎসায় দেখতে চেয়েছেন সুপ্রাচীন এই দেশটির সংস্কৃতি, ইতিহাস ও সমাজজীবনের প্রকৃত পরিচয়। চীনের প্রকৃতি, মানুষ, প্রথা ও রীতিনীতির অনেক পরিচয় মিলবে এ বইতে। চীন সম্পর্কে পশ্চিমা বিশ্বের অনেক প্রচার-প্রচারণা রয়েছে। কিন্তু লেখক সম্পূর্ণ খোলা মন নিয়ে দেখেছেন চীনের নগর ও গ্রামজীবন। চীনের সঙ্গে বাংলার সম্পর্ক অতিপ্রাচীন। ফা হিয়েন, হিউয়েন সাং-এর মতো বিখ্যাত পর্যটকরা এসেছেন এদেশে। বাংলাদেশ থেকেও চীনে গেছেন অনেক লেখক ও পর্যটক। দু’দেশের সেই ঐতিহ্যবাহী সাংস্কৃতিক বিনিময়েরই একটি নতুন অধ্যায় চকবাজার টু চায়না। বাংলাদেশের একজন নারীর একা চীনদেশে থাকা, সেদেশের খাবার, প্রথা, উৎসব অনুষ্ঠানের সঙ্গে খাপ খাওয়ানো এবং এক শহর থেকে অন্য শহরে ঘুরে বেড়ানোর কাহিনির মধ্যে পাঠক পাবেন অন্যরকম এক অ্যাডভেঞ্চারের স্বাদ। চীনের ইতিহাস ও মিথোলজি বিষয়ে আগ্রহী লেখক এ বইতে সেসবেরও কিছুটা পরিচয় দিয়েছেন। বিশ্বের প্রাচীনতম সভ্যতাগুলোর অন্যতম হলো মহাচীন। সেই সুপ্রাচীন চীন, সমাজতান্ত্রিক চীন এবং বর্তমানের বৃহত্তম অর্থনৈতিক শক্তির দেশ চীন- এই সবগুলো প্রান্তই স্পর্শ করেছে চকবাজার টু চায়না। শান্তা মারিয়ার ভাষা গতিশীল ও সরস। পাঠককে এই বই নিয়ে যাবে মহাপ্রাচীরে ঘেরা চীনদেশে।

প্রচ্ছদ: কিবরিয়া শাহীন
আইএসবিএন: ৯৭৮-৯৮৪-৯৩০৮৯-৬-৬
পৃষ্ঠা: ১৮০
মূল্য: ৩৯০ টাকা

border=0
চিরসখা হে
শঙ্করলাল ভট্টাচার্য

নানা সময়ে লেখা শঙ্করলাল ভট্টাচার্যের এই রচনাগুলির মধ্যে সময়ের একটা অন্য উপস্থিতি আছে। লেখকের জীবনে কারা কীভাবে রবীন্দ্রনাথকে বয়ে এনেছেন তার একটা বয়ান আছে এতে। রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী দেবব্রত বিশ্বাস জর্জদা, হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, কণিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, সুচিত্রা মিত্রের সান্নিধ্যে লেখকের নিজস্ব এক রবীন্দ্রস্মৃতির সন্ধান পাওয়া যাবে এই সংকলনে, যে-রবীন্দ্রনাথ প্রয়াত হয়েছেন লেখকের জন্মেরও ঢের আগে। সত্যজিৎ রায়ের বয়ানে রবীন্দ্রনাথ উপস্থিত হয়েছেন একদমই ভিন্নরূপে। সংকলনের রচনায়, রবীন্দ্রসংগীত শিল্পীদের কথায় ও আলোচনায় রবীন্দ্রনাথ এক অতি মধুর মানুষ হিসেবে ধরা পড়েন লেখকের কাছে। পড়া, শোনা ও গান শোনা দিয়ে গড়ে ওঠা এই কবি কিছুটা বাড়ির লোকের মতো। সেই অন্তরঙ্গতাই উঠে এসেছে এই সংকলনের রচনাগুলোয়।

প্রচ্ছদ: সব্যসাচী হাজরা
আইএসবিএন: ৯৭৮-৯৮৪-৯৩০৮৯-৬-৬
পৃষ্ঠা সংখ্যা: ১৮০
মূল্য: ৪৮০ টাকা
প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০১৮

border=0
মোদের গরব মোদের আশা
শিশিরকুমার দাশ

গত দুই শ বছরে বাংলা ভাষার প্রতিষ্ঠা ও বিকাশ, সামাজিক ও রাজনৈতিক পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে বাংলা ভাষার ভাগ্যের যোগ, তার গঠনের নানা সমস্যা, নানা পরীক্ষা: মুদ্রণ, মানায়ন, যতিচিহ্ন, বানান প্রভৃতি বিষয়ে চিন্তা ভাবনা; ভাষার আধিপত্য, বহুভাষিকতা ইত্যাদি নানা বিষয় নিয়ে এই বইয়ের প্রবন্ধগুলি লেখা। গত ছয় দশকের মধ্যে রচিত এই লেখাগুলোয় ফুটে উঠেছে বাংলা ভাষা নিয়ে আমাদের প্রথম সারির এক সৃষ্টিশীল ও মননশীল লেখকের অভিমান উদ্বেগ ও আশা।

প্রচ্ছদ: মনন মোর্শেদ
আইএসবিএন: ৯৭৮-৯৮৪-৯৩০৮৯-২-৮
পৃষ্ঠা সংখ্যা: ২৬৪
মূল্য: ৬৯০ টাকা
প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০১৮

border=0
নগর নাব্য: চলচ্চিত্র চালচিত্র
বছর ঘুরে নগর নাব্য আবারো মলাটবদ্ধ। নাগরিক সাংবাদিকরা বিষয় নির্বাচনে এবারো চিন্তাশীল। নাগরিক অভিজ্ঞতায় এবারের খাত চলচ্চিত্র। কারণ এই নাগরিকরাই তো দর্শক; যাদের জন্য সিনেমা নির্মিত হয়। এই নাগরিকরাই সেই দর্শক, যাদের উপস্থিতি সিনেমাকে ব্যবসাসফল করে। আবার এই নাগরিকরাই তো সেই দর্শক, যারা বাংলাদেশের সিনেমা থেকে মুখ ফিরিয়ে বন্ধ করেছিল সিনেমা হলে যাওয়া!
সেকালের বায়োস্কোপ থেকে শুরু করে একালের সিনেপ্লেক্স- বাংলা সিনেমা পেরিয়ে যাচ্ছে ১২৮ বছর। ঢাকাই সিনেমা পার করছে ৯১ বছর। প্রথম সবাক চলচ্চিত্র মুখ ও মুখোশ পেরিয়েছে ৬০ বছরেরও অধিক গৌরবকাল। তবুও বাংলাদেশের চলচ্চিত্রে ধস! কেন? কীভাবে?
নাগরিকরা চলচ্চিত্রের চড়াই-উৎরাই বিশ্লেষণ করে দেখিয়েছে হল সংকট, কাহিনি সংকট, লগ্নি সংকট, পেশাদারিত্ব সংকট, প্রযুক্তি সংকট এবং মৌলবাদ কী করে চলচ্চিত্রশিল্পকে স্থবির করে তুলছিল। নাগরিক সাংবাদিকরা চলচ্চিত্রের প্রতি টান থেকে প্রস্তাবনাও দিয়েছে সংকট উত্তরণের। এসেছে ঠাকুরগাঁওয়ে সিনেপ্লেক্স নির্মাণের প্রস্তাবনা। নাগরিক সাংবাদিকরা বলছে বাংলাদেশের সিনেমার বক্সঅফিস চাই; চাই পেশাদার চলচ্চিত্র সমালোচক। এখন প্রয়োজন চলচ্চিত্রশিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট সকলের এই নাগরিক আহবানে যুক্ত হওয়া।
নাগরিক সাংবাদিকরা বারবার বলতে চেয়েছে দর্শক বাংলাদেশের সিনেমা দেখতে চায়, দর্শক সিনেমা হলে ফিরতে চায়। চলচ্চিত্র জগত তাহলে আর দর্শক চাহিদা পূরণে পিছিয়ে থাকবে কেন!
নাগরিক সাংবাদিকদের স্মৃতিচারণে ও প্রতিবেদনে শব্দগাঁথুনির তুলনামূলক অপরিপক্কতা থাকতে পারে, কিন্তু এক মলাটে নাগরিকদের নিখাদ অভিব্যক্তির সমন্বয়ে চলচ্চিত্রকে দেখার এই প্রচেষ্টা একটি অনবদ্য নিবেদন বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের প্রতি।

প্রচ্ছদ: মোতাসিম বিল্লাহ্ পিন্টু
আইএসবিএন: ৯৭৮-৯৮৪-৯৩০৯০-০-০
পৃষ্ঠা সংখ্যা: ১৬৪
মূল্য: ৪০০ টাকা
প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০১৮

বিপিএল থেকে প্রকাশিত এই নতুন বইগুলো ক্রেতারা মেলা চলাকালে ২০% ছাড়ে কিনতে পারবেন বাংলা একাডেমির মূল প্রাঙ্গনে লেখককুঞ্জের বিপরীত অবস্থিত ৫৯-৬০ নং স্টল থেকে।

Flag Counter


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.