কবিতা

তারিক সুজাতের তিনটি কবিতা

তারিক সুজাত | 23 Jan , 2017  

ছিন্নডানার মানুষপাখি

১.
কয়েক শতাব্দী ধরে এখানে ছিলাম
ছিলাম মানুষ হয়ে মানুষের কাছাকাছি
ধর্ম এসে তোলেনি দেয়াল
ধূতি আর পায়জামা
সাদা পায়রার মতো
উড়তো আকাশে
এক তারে এক সুরে,
ভেজা কাপড়ের আলিঙ্গনে;
সাজানো উঠোন
ফেটে চৌচির হলো
ঘৃণার বারুদে।
১৯৪৭-
সেই কবে চালকবিহীন বাসে
উঠে পড়েছিলাম,
পেছনের সত্তর বছর কাঁদছে নীরবে
শেষ স্টপে
ক্রাচ হাতে দাঁড়িয়ে আছে
বোবা ইতিহাস!

২.
ভাই গেছে পশ্চিমে
বুকভরা স্বপ্নে বুনেছিলো
উর্বর আগামী!
আহত স্বপ্নের চোখে
বদলে যাওয়া দৃশ্যপট …
রক্তের গঙ্গায় ভেসে ভেসে
মৃত্যুর মিনারে মাথা তোলে
রাম ও রহিম।
ভাই গেছে পশ্চিমে
বোন তার পূর্বের আকাশে
উদিত ঊষার আলো হয়ে হাসে
মায়ের মমতা মাখা মধুর ভাষা
পিতার পবিত্র জায়নামাজে
গড়িয়ে পড়ে রক্তাক্ত বর্ণমালা
১৯৫২-
পিতার কণ্ঠে উচ্চারিত মন্ত্র
‘একুশে একুশে একাত্তর …’

৩.
সাতপুরুষের ভিটেমাটি রইলো পড়ে
দিনদুপুরে পা বাড়ালাম
ইতিহাসের অন্ধকারে
একটি ডানা পূর্বে রাখি
অপরটি পায় পশ্চিমে ঠাঁই
মনটি আমার অখণ্ডিত
দেহ যখন খণ্ড খণ্ড
দলে দলে মেঘ উড়ে যায়
এক আকাশে অনেক আকাশ
অনেক মুখের ভিড়ে আমি
নিজের মুখটা হারিয়ে ফেলি

স্বপ্নকাঁটা ইতিহাসের ছেড়া পাতায়
খুঁজে পেলাম মান্টো ভাইয়ের
খোলা চিঠি
তোমার কোনো দেশ ছিল না?
ছিন্নডানার মানুষপাখি
তাদের কোনো দেশ থাকে না!

৪.
ভাঙনের শব্দে গড়ি নিজের সমাধি
গড়ার শব্দে ভাঙি আপন নগরী
জানা ছিল নদীর ধর্মই
ভাঙাগড়া
মা গঙ্গা অশ্রুজলে ভাসে
যমুনা তার কতটুকু জানে!
মানুষের ধর্ম
চিতার আগুনে পুড়ে
ছাই হয়ে ওড়ে
পতাকায়, কাফনে
ধর্মের হাত ধরে
বহুপথ ঘুরে ঘুরে
এসেছি নতুন দেশে
যেখানে মৃত্যুর আগে
আমাকে দেয়া হয়েছিল
দেয়ালবিহীন একটি ঘর
মনের সমাধি!

৫.
ও আমার চোখের মণি
তুমিও কী ভাগ চেয়েছো?
এতোটুকুন আমার জমি
কান্না এসে ভাসায় দু’কূল
আমার একূল ভাসে ওকূল ডোবে
আমি ভাসি অশ্রুজলে।
ও আমার দুইটি হাতের
দশটি আঙুল
তুমিও কী উড়াল দেবে?
বাঁশের বাঁশির ছিদ্রসম
হৃদয় আমার ক্ষতবিক্ষত
যত জোরে ফুঁ দিয়েছি
ততদূরে ছিটকে পড়ে
সুর উঠেছে কান্না হয়ে
আমার দেশটি পুড়ে দিনদুপুরে
আমি পুড়ি নিজ অনলে।
‘ও আমার দেশের মাটি’
যে মাটিতে জন্ম নিলাম
সে মাটিতে ঠাঁই হলো না।

খদ্দর

পরাধীনতার অন্ধকারে
আলোর শিখায়
একটুকরো বস্ত্রখণ্ডে
ডাকছে আমার পূর্বপুরুষ
মাটির ঘরে অহংকারে
চরকা কাটেন
বজ্রকঠিন দৃঢ় চোখে
শীর্ণ হাতে গভীর মায়ায়
বাপুজি আমার

কবিগুরুর আশ্রমে
কেরোসিনের কুপির আলোয়
দীপ্ত আকাশ মুক্তপ্রাণে
জাগছে ভারত
উপমহাদেশ
একটুকরো বস্ত্রখণ্ডে
জাগছে আমার পূর্বপুরুষ।


প্রিয় সখা প্রিয় তরবারি

সময়টা ছিল খোলা দরোজার
খোল করতাল মুখরিত
সাঁওতাল পরগনা এসে মিশে গিয়েছিল
মহাসড়কের সাথে
সেদিনের সেই যুদ্ধ কেবলই
আমার ছিল না একার
বন্ধুর হাতে তীর-ধনুক আর
একই শত্রুর দিকে তাক করে রাখা
অকৃত্রিম হাতিয়ার।

একই আল্পনায় রক্তরেখায়
রাঙানো পথের ধারে
মহাজীবনের সাথে জীবন হেঁটেছে
একই আলপথ ধরে

মুক্ত স্বদেশে তুমি যদি মরো
থাকে না আমারও বাঁচবার অধিকার
যুদ্ধদিনের বন্ধু তুমি,
প্রিয় সখা প্রিয় তরবারি
তোমার তীরের ফলায় বিদ্ধ করো
রাজনীতির কালোবাজারি!

Flag Counter


8 Responses

  1. আসাদ মান্নান says:

    কব‌ি তার‌িক সুজাত এর কব‌িতাগুল‌ো পড়‌ে খুব ভাল লাগল। কব‌িকে শুভ‌েচ্ছা। মন‌ে হল‌ো: অামদ‌ের ব‌েদনাক‌ে অমরতা দ‌িত‌ে হব‌ে।

  2. চৌধুরী শহীদ কাদের says:

    মুক্ত স্বদেশে তুমি যদি মরো
    থাকে না আমারও বাঁচবার অধিকার

    অসাধারণ..আমার প্রিয় কবির আরো বেশি কবিতা পড়তে চায়।

  3. টোকন ঠাকুর says:

    দুঃসময় কবিতায় গাঁথা রইল। ‘অসহায়ত্ব’ ধ্বনিত হচ্ছে চৌকাঠে, ঘর-বারান্দায়। তারিক ভাইএর কবিতা অনেকদিন পর পড়া হলো আমার

  4. লোকমান হেকিম says:

    তারিক সুজাতের সর্বশেষ কাব্যগ্রন্থ “জন্মের আগেই আমি মৃত্যুকে করেছি আলিঙ্গন” নিয়ে ফেসবুকে আমার টাইমলাইনে ছোট্ট একটি রিভিউ দিয়েছিলাম। বলতে দ্বিধা নেই, সেখানে কাব্যগ্রন্থটি নিয়ে আমার মুগ্ধতা তেমন ছিল না।

    কিন্তু আজকের কবিতাগুলো পড়ে আমি আনন্দিত। এই কবিতাসমুহে ধরা পড়েছে আমাদের সময়ের ছবি অত্যন্ত নিঁখুতভাবেই। খুব ভালো লাগলো।

    এই পাতার সম্পাদককেও আমার অসংখ্য ধন্যবাদ। আশা করি এ ধরনের কবিতা আমরা আরো পড়তে পারবো।

  5. Sumon Kaiser says:

    অসাধারণ বললে অত্যুক্তি হবে না।

    “মুক্ত স্বদেশে তুমি যদি মরো
    থাকে না আমারও বাঁচবার অধিকার
    যুদ্ধদিনের বন্ধু তুমি,
    প্রিয় সখা প্রিয় তরবারি
    তোমার তীরের ফলায় বিদ্ধ করো
    রাজনীতির কালোবাজারি!’’

    পংক্তিগুলো মনে ধরে রাখবার মতো।

  6. কালাম রেজা says:

    কবিতার নামে বাজে এসব আবর্জনা ছাপা্নো বন্ধ করেন সাহিত্য সম্পাদক সাহেব। এর এগুলো কোন কবিতা হয় নাই। পুরান , ক্লিশে সব ব্যাপার

  7. golam ali says:

    kobita gulo bhalo laglo. shorol o bodh-gommo

  8. ধন মিয়া says:

    দুর্বল কবিতা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.