বিচিত্র, সংস্কৃতি

সম্পাদকীয়: আনন্দপাঠ ২০১৬

admin | 8 Jul , 2016  

ঈদ ফিরে ফিরে আসে। আসে সময়ের বিবর্তনে। নতুন পরিপ্রেক্ষিতে, নতুন অনুষঙ্গ নিয়ে। ঈদের স্থায়ী অনুষঙ্গ মূলত দুটি: আনন্দময়তাও সৃষ্টিশীলতা। এর সঙ্গে এবারে যুক্ত হয়েছে অন্য অনাকাঙিক্ষত বৈপরীত্য: শঙ্কা ও সংশয়। জুলাই মাসের শুরুতে গুলশানের একটি অভিজাত রেস্তোরাঁয় মানবতাবিরোধী চক্র ও হন্তারক সন্ত্রাসীদের হামলার ফলে যে নির্মমতম হত্যাকাণ্ড সঙ্ঘটিত হলো, তাতে ভিত নড়ে গেছে বিশ্বব্যাপী মানবিকঅখণ্ডতার। ভিত নড়ে গেছে মানুষে মানুষে পারস্পরিক আস্থা,বিশ্বাস আর সহমর্মিতার। আমরা এই হত্যাকাণ্ডের তীব্রতম প্রতিবাদ করছি। ধর্মবর্ণদেশজাতিনির্বিশেষে লোকান্তরিত সকল আত্মার সদগতি কামনা করছি।
এই বর্বরতম ক্ষত শুকাতে হয়তো সময় লাগবে অনেক। তবু আমরা পিছু হটে যাবোনা। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সমুন্নত রেখে জাতিরাষ্ট্র হিসেবে টিকে থাকতে হলে বাংলাদেশকে এই সংকটে জয়ী হতে হবে। ফলে এবারের ঈদের নতুন অনুষঙ্গ হচ্ছে মানবিকতার বিকল্পহীন বিজয়ের শপথ। আত্মিক ও নৈতিক বিচারে মানুষকে পরিপূর্ণ মানুষ হতে হবে। ধর্মবর্ণগোত্রদেশজাতিনির্বিশেষে সব মানুষের দিকে বাড়াতে হবে নিশর্ত সহযোগিতা ও সহমর্মিতার হাত। মত-পথ-বিশ্বাস নির্বিশেষে সর্বমানবিক আনন্দযজ্ঞে শরিক হতে হলে এই নান্দনিক সহমর্মিতার কোনো বিকল্প নেই। আমাদের বিশ্বাস, মানুষের সম্মিলিত সৃষ্টিযাত্রা বিজয়ী হবেই।
বরাবরের মতো এবারেও আমাদের অভিন্ন লক্ষ্য ‘পাঠ-আনন্দ’। গত কয়েক বছর ধরে ঈদ-সংখ্যা প্রকাশ করে লেখক-পাঠক সেতুবন্ধ তৈরির উদ্যোগ নিয়েছে‘বিডিনিউজ’। প্রাথমিক পর্যায়ে ২০০৪ সালে ‘বিডিনিউজ’ নবায়িত আঙ্গিকে সংবাদ কার্যক্রম শুরু করে। অতঃপর ২০০৬ সাল থেকে পরিবেশিত বিষয় ও আঙ্গিকে যুক্ত হতে থাকে নতুন মাত্রা। বদল হয় মালিকানাও। পরবর্তী পর্যায়ে প্রধান সম্পাদক জনাব তৌফিক ইমরোজ খালিদীর গতিশীল নেতৃত্বে নতুনভাবে সংগঠিত হয় ‘বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোরডটকম’। ২০০৬ সালের ২৩ অক্টোবর প্রথম প্রহর থেকে এই প্রতিষ্ঠানটি বাংলাদেশের প্রথম ইন্টারনেট সংবাদপত্র রূপে আত্মপ্রকাশ করে।

তারপর থেকে গত এক দশক আমরা আছি স্বদেশ ও স্ববিশ্বের সঙ্গে। তার প্রতি মুহূর্তের সংবাদের সঙ্গে। সততা, মানবিকতা ও সার্বক্ষণিকতা নিয়ে আমরা এবারেও উপহার দিতে চাই আমাদের ভাষিক সৃষ্টিবৈচিত্র্য। আমরা বরাবরের মতো থাকতে চাই স্বজাতি ও গোটা মানবজাতির সঙ্গে। আমরা এবারের আনন্দপাঠেও সেই প্রক্রিয়া অব্যাহত রেখেছি। পৃথিবীর নানা প্রান্তের প্রতিনিধিত্বশীল বাঙালি লেখকরাও যুক্ত হয়েছেন আমাদের সঙ্গে। কবিতা, গল্প, উপন্যাস, অনুবাদ ও স্মৃতিকথা লিখেছেন বিভিন্ন প্রজন্মের কবি-সাহিত্যিক। আমরা তাঁদের সকলের প্রতি জ্ঞাপন করছি কৃতজ্ঞতা।
বিশ্বজুড়ে‘বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোরডটকম’-এর সম্মানিত পাঠক-পাঠিকা, বিজ্ঞাপনদাতা ও শুভার্থীদের জন্য রইল আমাদের সানন্দ ঈদ সম্ভাষণ।
জগতে আনন্দলোকে সবার নিমন্ত্রণ।

Flag Counter


1 Response

  1. মাসুদুজ্জামান says:

    এই ঈদ সংখ্যা নিয়ে একটা বিজ্ঞাপন কি বিডিনিউজে দেওয়া যেত না! পাঠক হিসেবে তাহলে জানতে পারতাম লেখার সূচিটা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.