আত্মজীবনী, স্মৃতি

বেবী মওদুদের অপ্রকাশিত রচনা: অসমাপ্ত কথা

বেবী মওদুদ | 24 Jul , 2015  

baby-moudud_0023.jpg

বেবী মওদুদের অসমাপ্ত স্মৃতিকথার সাথে প্রাসঙ্গিক ছবিগুলো এখানে থাকছে আর লেখাটি পাওয়া যাবে নিচের লিংক-এ:
অসমাপ্ত কথা



ইতোপূর্বে প্রকাশিত বেবী মওদুদের ধারাবাহিক স্মৃতিকথার কিস্তিগুলোর লিংক :

ধারাবাহিক স্মৃতিকথা: জীবনের পাতায় পাতায় (কিস্তি-১)

ধারাবাহিক স্মৃতিকথা: জীবনের পাতায় পাতায় (কিস্তি-২)

ধারাবাহিক স্মৃতিকথা: জীবনের পাতায় পাতায় (কিস্তি-৩)

ধারাবাহিক স্মৃতিকথা: জীবনের পাতায় পাতায় (কিস্তি-৪)

ধারাবাহিক স্মৃতিকথা: জীবনের পাতায় পাতায় (কিস্তি-৫)

ধারাবাহিক স্মৃতিকথা: জীবনের পাতায় পাতায় (কিস্তি-৬)

Flag Counter


5 Responses

  1. খুবই অবাক হয়েছিলাম বেবী আপার সাংসদ হওয়ার খবরে- কে তাকে রাজী করালো? আজ এ লেখায় তার কিছুটা জানা হলো।
    ধন্যবাদ বিডিনিউস২৪.কম

  2. শিমুল সালাহ্উদ্দিন says:

    আমার কিছু দুঃখকষ্টের সাথে নিজগুণে ও আগ্রহে জড়িয়ে পড়েছিলেন বেবি আপা । ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের প্রথম থেকে কাজ করার সুবাদে আমার জীবনের বড় একটা সৌভাগ্য ঘটেছে যে, আমি অন্তত কিছুদিনের জন্য বেবি আপার কলিগ বলতে পারি নিজেকে। ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের শুরুর দিনগুলোতে প্রায়ই বেবি আপা আসতেন বৌল অফিসে, বেশিরভাগই তৌফিক ​ ভাই ও অন্যান্য অগ্রজদের সাথে কথাবার্তা বলতেন, মিটিং এর পর মিটিং করতেন। সাংবাদিকতা নিয়ে কয়েকদিন বসেওছিলেন খোকন ভাই, Tanim​ ভাইসহ নিউজরুমে।

    আমার সাথে প্রথম কথা হয় অন এয়ারের আগে আগে আমরা তেজগাঁয় নতুন ভবনে উঠবার পর। শিল্প-সংস্কৃতি বিষয়ক অনুষ্ঠানমালা বিষয়ে। কী যে ভালো লেগেছিলো তার ভাবনা। দুর্ভাগ্য আমার, আমাদের, তার ভাবনার প্রায় কিছুই আমরা আর কাজে পরিণত করতে পারিনি।

    খুব দৃঢ় গলায় বলেছিলেন, শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতিকে সবচেয়ে বেশি জোর দিয়ে প্রতিষ্ঠা করতে না পারলে নতুন টেলিভিশন আলাদা কিছু হবে না, গড্ডালিকা প্রবাহে অন্য দশটা টেলিভিশনের সাথে একইরকম ভেসে যাবে। রুচিনির্মাণ টেলিভিশনের বড় দায়িত্ব, বড় দায়িত্ব নিজের আলাদা বৈশিষ্ট্য তৈরি করা, জনরুচির সাথে নিজেকে মেলানো না। সাংবাদিকতায় স্পর্ধা খুব জরুরী, টিভির বড় কাজ প্রতিদিন নতুন কিছু করা, নতুন আইডিয়া জেনারেট করা। নতুন নতুন ভাবে ভাবা, নতুন গল্প বলা।

    বলেছিলেন, মুক্তিযুদ্ধ একটা সাংস্কৃতিক আন্দোলন, সংস্কৃতিরই শক্তি আছে দেশকে আমূল বদলে দেবার।

    বেবি আপা, আপনার কথাগুলো আমার কানে সতত বাজে। যখনি খুব হতাশ লাগে, নানা অপ্রাপ্তি অমূল্যায়নের ভিড়ে, আমি কেন্টিনের সেই টেবিলটা দেখতে পাই চোখে, আপনি বলেছিলেন, অন্যের জন্যে যারা নিজেকে বিলায়, তাদের নিজের জন্য কিছু করা লাগে না।

    আমি কবিতা লিখি শুনেছিলেন মনে হয় খোকন ভাই বা তৌফিক ভাইয়ের কাছে, একদিন নিউজরুমেই দুমম করে বললেন, একটা মুখস্ত শোনাও তো! আট লাইনের কবিতাটা শুনে বলেছিলেন কাঁধে হাত রেখে, লেগে থেকো। সে যে কত বড় প্রেরণা ছিলো আমার ছোট্টপ্রাণে…তাহা আর কহতব্য নহে।

    বেবি আপা, আমি লেগে আছি। আপনার আরও কিছু প্রশ্রয় পেলে, আরও কটা দিন আপনাকে পেলে, জীবনটা অন্যরকম হতো আমার, ভাবি।

    একবছর হয়ে গেলো আপনি চলে গেলেন। কিন্তু আমার মনে হচ্ছে, এইতো পরশু বিকেলেই বললেন, সংস্কৃতি আর বিনোদনের ফারাকটা মাথায় রেখো!

    প্রিয় বেবি আপা, আপনার প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা।

  3. rafi says:

    Very much Interesting history, I was lived in dhaka since 1967 and observed the political movement, but I would not know this story ………..upto this day. I salute to Baby Moudud about her principal and honesty.

  4. বেবী মওদুদের শিশুতোষ গল্প দিয়ে আমার সাহিত্যপাঠ, সেই থেকে আমি তার ভক্ত। খুব সুন্দর সাচ্ছন্দে লিখতেন তিনি। তাঁর জন্য শুভ কামনা সব সময়।

    ধন্যবাদ।

  5. বেবী আপার লেখা সবসময়ই আমি গুরুত্ব দিয়ে পড়ি । হঠাৎ এই লেখাটা চোখে পড়তেই পড়ে ফেললাম । কিছু তথ্যও জানা হলো

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.