বইমেলা, বইয়ের আলোচনা, সাহিত্য সংবাদ

প্রকাশনায় বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

chintaman_tusar | 5 Feb , 2015  

book-mixed.jpgবাংলাদেশের সংবাদমাধ্যম জগতে এক অনন্য দৃষ্টান্তের নাম বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। সংবাদ ও মতামত পরিবেশনায় অনলাইন মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটি পথিকৃত। প্রতিষ্ঠানটি সুনাম ধরে রেখেছে মান সাংবাদিকতা ও তথ্য সংরক্ষণের ক্ষেত্রেও। তথ্য সংরক্ষণ ও অনলাইনে অনুলিপি তৈরি করতে পোর্টালের ‘আর্টস’ পাতাটি সুবিদিত। প্রতিষ্ঠানের সাহিত্য বিভাগটি বাংলাদেশে প্রথম ‘ই-বুক’ আকারে দুর্লভ কিছু বাংলা সাহিত্য কম্পিউটারে বসে পড়ার সুযোগ করে দেয় পাঠকদের। তার পথ ধরেই আরও নতুনকে সামনে নিয়ে এসেছে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম পাবলিকেশন লিমিটেড (বিপিএল) নামে এবারের বইমেলা উপলক্ষে মুদ্রণ জগতেও নাম লিখিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। কোনও অনলাইন সংবাদমাধ্যম প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রথম পদক্ষেপ বলে পরিচয় তুলে ধরার চাইতে বরং তাদের বই পরিবেশনার দিকটিই এগিয়ে থাকবে আলোচনায়।

বাংলায় কথাসাহিত্য চর্চা ও পাঠকদের সঙ্গে মেলবন্ধনের কার্যকর উপায় বই প্রকাশের ক্ষেত্রে বাংলাদেশসহ পাশের ভারতীয় রাজ্য পশ্চিমবঙ্গেও বইয়ের মলাট তৈরি করা হয় কার্ডবোর্ড ব্যাবহার করে। বলা হয়ে থাকে মলাট শক্ত ও পুরু হওয়ায় বই বেশী সুরক্ষিত এবং বেশিদিন সংগৃহিত রাখা সম্ভব। এছাড়া বইয়ের সৌর্ন্দয্যসহ আরও নানা কথাও এসে পরে প্রসঙ্গক্রমে।

বিপিএল এক্ষেত্রে এককাঠি সরেস। যেদেশে ‘চটিবই’ আখ্যা পেতে হয়, সেদেশেই পেপার ব্যাক মলাট; আরও ভালো করে বল্লে নানা ধারাণাভিত্তিক (বিষয়সংশ্লিষ্ট) গ্রাফিক্স ডিজাইন সমৃদ্ধ মোটা কাগজে মলাটবদ্ধ করে বইগুলো পরিবেশন করছে তারা।

মেলার প্রথমদিনেই বিপিএল প্রকাশ করেছে ছয়টি বই। এরমধ্যে রয়েছে দুলর্ভ সিরিজের দুটি বই রবীন্দ্রনাথ মৈত্রের নাটক ‘মানময়ী গার্লস স্কুল’ ও প্রিয়নাথ মুখোপাধ্যায় অনূদিত ‘পারসীক গল্প’।

আরও প্রকাশিত হয়েছে অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের সাম্প্রতিক বিষয়ে প্রদত্ত স্মারক ভাষণের পাঠ্যরূপ ‘সাম্প্রদায়িকতা ও ধর্মনিরপেক্ষতা’, নাজিম মাহমুদ বিরচিত স্মৃতিগ্রন্থ ‘যখন ক্রীতদাস: স্মৃতি ৭১’, মাহবুব আজাদের সমকালীন ছোটগল্প ‘আশাকর্পূর’ এবং ইকবাল করিম হাসনুর ‘ক্যুবা ট্রাভেলগ: মুখ ঢাকেনি বিজ্ঞাপনে’।

বইগুলো সম্পর্কে কিছু তথ্য:
রবীন্দ্রনাথ মৈত্রের নাটক ‘মানময়ী গালর্স স্কুল’। প্রকাশক: বিপিএল, প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০১৫/মাঘ ১৪২১। প্রচ্ছদ, অলঙ্করণ ও টাইপসেটিং: পিএমজে অ্যান্ড কোং। দুর্লভ গ্রন্থমালা সিরিজের প্রথম নাটক। মূল্য: ২৫০।

নাটক সম্পর্কিত দুটি কথা:
লেখক, সাংবাদিক রবীন্দ্রনাথ মৈত্র নিয়মিত লেখালেখি করতেন ‘শনিবারের চিঠি’, ‘আনন্দবাজার’ ও ‘বঙ্গশ্রী’ পত্রিকায়। লেখকের প্রথম নাটক ‘মানময়ী গার্লস স্কুল’ প্রকাশিত হয় ‘শনিবারের চিঠি’ পত্রিকায়। জানা যায়, লেখককে তালাবদ্ধ করে একদিনেই রচনাটি শেষ করান সম্পাদক সজনীকান্ত দাস। পরবর্তীতে নাটকটি স্টার থিয়েটারের মঞ্চে ওঠে বাংলা ১৩৩৯ সনের পৌষ মাসে। এর দুই মাসের মাথায় লেখকের অকাল মৃত্যু হয় ম্যালেরিয়ায়। তার জন্মস্থান বর্তমান রংপুর জেলায়।

তিন অঙ্কে নাটকের কাহিনি এগিয়েছে বেকার এবং গ্রাজুয়েট নীহা ও মানসের কর্মকাণ্ডকে কেন্দ্র করে। চাকরীর প্রয়োজনে তারা আশ্রয় নেয় ছলনার। কিন্তু চাকরীক্ষেত্রে গিয়ে সেই প্রয়োজনের ভূষণ ভেদ করে উঁকি দেয় ‘সহজ মানুষের চাওয়া-পাওয়া’। ‘ছিমছাম কমেডি’ নির্ভর নাটকটির কাহিনির মোড়ে মোড়ে এসে দাড়িয়েছে সমাজ-দর্পন।

প্রকাশকের ভাষায়, নাটকটি এক লুপ্ত গৌরবকাল ফিরিয়ে আনার চেষ্টা। সেকালে কলকাতার স্টার থিয়েটার মঞ্চে ‘মফস্বলী’ নাট্যকারের ‘মানময়ী’ সাড়ম্বরে মঞ্চস্থ হচ্ছে যে গৌরবের অংশীদার রঙ্গপুর নাট্য সমাজ গৃহ, জলপাইগুড়ির ফ্রেন্ডস ড্রামাটিক ক্লাব, মুক্তাগাছার ভূপেন্দ্র রঙ্গপীঠ, ঝিনাইদহের করোনেশন ড্রামাটিক ক্লাব ইত্যাদি। “কালের ধূলিতে ধূসর হয়েছে জেলা শহরের থিয়েটার নাটকের ধারা, হারিয়ে গেছে কত এমন নাটক। মঞ্চ ছাড়া কি নাটক বাচেঁ?”

উল্লেখ্য, নাটক প্রকাশের তিন বছরে মাথায়, ১৯৩৫ সালে সিনেমায় রূপান্তরিত হয় নাটকটি। কানন দেবীর খ্যাতি বাড়িয়েছে সিনেমাটি। ১৯৫৮ সালে উত্তম কুমার ও অরুন্ধতি দেবীও একই কাহিনির সিনেমায় অভিনয় করেন। এছাড়া ১৯৫৫ সালে তেলেগু ভাষায় নির্মিত হয় ‘মিসায়াম্মা’, ১৯৫৭ সালে হিন্দিতে ‘মিস মেরি’।
বইটির পৃষ্ঠা সংখ্যা- ৭০।

প্রিয়নাথ মুখোপাধ্যায়ের অনুবাদে ‘পারসীক গল্প’। প্রকাশক: বিপিএল, প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০১৫/মাঘ ১৪২১। প্রচ্ছদ, অলঙ্করণ ও টাইপসেটিং: পিএমজে অ্যান্ড কোং। দুর্লভ গ্রন্থমালা সিরিজের প্রথম গল্পগ্রন্থ। মূল্য: ২৫০।

‘পারসীক গল্প’ সম্পর্কিত দুটি কথা:
লেখক হিসেবে প্রিয়নাথ মুখোপাধ্যায় নামে ওই সময়ের আরও দুতিনজনের হদিস পেয়েছেন অনেকে। কিন্তু বর্তমান লেখকের জন্ম ১৮৫৫ সালে, এ তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন প্রকাশক এবং তিনি পেশায় ছিলেন উপনিবেশিক পুলিশের তদন্তকারী কর্মচারী।

উর্দু ভাষার গ্রন্থ থেকে গল্পগুলো পারসীক গল্প হিসেবে অনুবাদ করা হলেও, এর ভিতরেই আরব্য উপকথা, তুর্কী লোকগল্প, এমনকি বিভিন্ন আদি গ্রন্থবদ্ধ কাহিনির ছাপও পাওয়া যায়। গল্পগুলোতে বিশ্বের বহুবর্ণের উপকথায় ‘আন্তরিক’ মিলও খুঁজে পেয়েছেন বিজ্ঞজনেরা। আকারে ছোট তবু কাহিনিগুলো নির্দোষ রসোদ্দীপক “এবং স্থলবিশেষে বুদ্ধির উন্মেষক।”

বইটির প্রথম প্রকাশ ১৩০৪ সনের আষাঢ় মাস। প্রকাশক শ্রীবাণীনাথ নন্দী, স্বত্বাধীকারী সিকদারবাগান বান্ধব পুস্তকালয় ও সাধারণ পাঠাগার।

উনিশ শতকের বাংলায় শিক্ষিত শ্রেণির বিচিত্র বিশ্বকে নতুনভাবে জানার অভিলাষকেই তুলে ধরে বইটি।
বইটির পৃষ্ঠা সংখ্যা- ৭৭।
27_book-fair_bpl__020215_0006.jpg
নাজিম মাহমুদের স্মৃতিকথা ‘যখন ক্রীতদাস: স্মৃতি ৭১’। প্রকাশক: বিপিএল, প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০১৫/মাঘ ১৪২১। প্রচ্ছদ, অলঙ্করণ ও টাইপসেটিং: পিএমজে অ্যান্ড কোং। মূল্য: ২৯০।

স্মৃতিচারণমূলক বইটির সম্পর্কে দুটি কথা:
সময় ১৯৭১, মানবাধিকার ভুলুণ্ঠিত এক বাংলাদেশ। পুরো এক বন্দীশিবির। লেখক নাজিম মাহমুদ সেসময় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মরত। লেখক এর আগেই রাজনৈতিক ঘটনাবলীর সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়েছেন রাজনৈতিক কর্মী হিসেবে। সাংস্কৃতিক অঙ্গনেও ছিল তার পদচারণা। তিনি বেশ কয়েকটি উল্লেখ্যযোগ্য সাংস্কৃতিক সংগঠন প্রতিষ্ঠায় ভূমিকাও রেখেছেন।

লেখকের ভাষায় ‘এক বধ্যভূমি ও সেনানিবাসে’ কর্মরত তিনি। স্মৃতিচারণ শুরু করেছেন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রম বাংলা ভাষায় পরিচালনার মতো ঐতিহাসিক ও যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত ঘোষণার সঙ্গে তার সম্পৃক্ততার তথ্য দিয়ে। যার অব্যবহিত পরেই সাধারণ নির্বাচন রদের নির্দেশ দিলেন সামরিক শাসক থেকে প্রেসিডেন্ট পদধারী ইয়াহিয়া খান এবং এরপর থেকেই শান্তশিষ্ট ক্যাম্পাসের পট পাল্টাতে শুরু করে। তিনি আরও জানাতে শুরু করলেন সেইসময়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ও তার আশপাশের এলাকা সম্পর্কে। আছে আবাসিক শিক্ষকদের ‘জুবেরী ভবনে’র অবস্থার বর্ণনা। প্রাশাসনিক নানা তথ্য এবং অর্ন্তঃবিদ্বেষ। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মানসিক, শারীরিক হালহকিকত। বুদ্ধিজীবিদের হত্যা। সব মিলিয়ে এক ভয়ঙ্কর অমনিষাকালের দলিল বইটির ইতি টানা হয়েছে, বিজয়লাভের পরে খান সারওয়ার মুরশিদের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্ব গ্রহণ এবং তার নেতৃত্বে ক্যাম্পাসে নতুন শহীদ মিনার স্থাপনের ঘটনাসূত্র উল্লেখের মাধ্যমে।

সাহিত্যিক এবং রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হাসান আজিজুল হক বইটি সম্পর্কে বলেন, “এই বই পড়ার পর আয়নায় নিজেকে একবার দেখে নেবার প্রয়োজন পড়বে বলে মনে হয়।”
বইটির পৃষ্ঠা সংখ্যা- ১২৩।

আনিসুজ্জমানের প্রবন্ধ সংকলন ‘সাম্প্রদায়িকতা ও ধর্মনিরপেক্ষতা’। প্রকাশক: বিপিএল, প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০১৫/মাঘ ১৪২১। প্রচ্ছদ, অলঙ্করণ ও টাইপসেটিং: পিএমজে অ্যান্ড কোং। মূল্য: ১৮০।

সংকলনটি সম্পর্কে দুটি কথা:
‘সাম্প্রতিক বিষয়ে’ প্রদত্ত স্মারক বক্তব্যগুলো লিখিতরূপে সূচীবদ্ধ করা হয়েছে ‘সাম্প্রদায়িকতা ও ধর্মনিরপেক্ষতা’। ধর্মনিরপেক্ষতা ও সাম্প্রদায়িকতা- যুগের দুই ‘জ্বলন্ত’ প্রসঙ্গ উল্লেখ করে প্রকাশক বলছেন, “ধর্মের নামে সন্ত্রাস ও গণতন্ত্রহরণের যে করুণ ইতিহাসের উত্তরাধিকারী ভারবর্ষের মানুষ, বাঙালী বিশেষ করে, সে-ইতিহাসের সাক্ষী গ্রন্থকার স্বয়ং।” তবে গ্রন্থকার শুধু প্রত্যক্ষদর্শী হয়েই থাকেননি, তিনি লিপিবদ্ধ করেছেন নিজস্ব দর্শনও। একইসঙ্গে করেছেন বিবর্তিত রাজনৈতিক পটভূমির অনুসন্ধান। যার ফলে চিহ্নিত হয় বাঙালির উদ্দিষ্ট রাষ্ট্র-সাধনার শত্রু-মিত্র। সমকালীন রাজনীতির জটিল বিষয়ের প্রাঞ্জল-পাঠের সুযোগ রয়েছে সংকলনটিতে।
বইটির পৃষ্ঠা সংখ্যা- ৬১।
27_book-fair_bpl__020215_0002.jpg
মাহবুব আজাদের গল্প সংকলন ‘আশাকর্পূর’। প্রকাশক: বিপিএল, প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০১৫/মাঘ ১৪২১। প্রচ্ছদ, অলঙ্করণ ও টাইপসেটিং: পিএমজে অ্যান্ড কোং। মূল্য: ২৪০।

বইটি সম্পর্কে দুটি কথা:
‘অমর একুশে গ্রন্থমেলা’ ২০১৩-এর সেরা নবীন লেখক পুরস্কারপ্রাপ্ত লেখক মাহবুব আজাদ। লেখালেখিতে ত্রিলোকষ্পর্শী চিন্তা-চেতনা স্পষ্ট। এবারের বইটিতেও তিনি ‘সমকালীন’ বিষয়ের মোড়কে বলেছেন ভার্চুয়াল জগৎ, বর্তমান জগৎ এবং অদৃশ্য জগতের কথা। গল্পে নাটকীয়তা আছে, চরিত্রের ওঠানামা আছে, গল্পের বাঁকে-ফাঁকে হয়তবা কল্পনার মিশেলে বাস্তবতাও উঠে এসেছে। বিষয়বৈচিত্র্য, চরিত্র বিবর্তন ইত্যাদির কারণে হয়ত অনেকের এলার্জির উপাদানও আছে। তবু, বিষয় যাই হোক লেখকের গল্প বলার কারণে পাঠক কিন্তু একদমে শেষ না করে বইটি ছাড়তে পারবেন না।
বইটির পৃষ্ঠা সংখ্যা- ৯৩।

ইকবাল করিম হাসনুর ভ্রমনকাহিনি ‘মুখ ঢাকে নি বিজ্ঞাপনে’। প্রকাশক: বিপিএল, প্রকাশকাল: ফেব্রুয়ারি ২০১৫/মাঘ ১৪২১। প্রচ্ছদ: পিএমজে অ্যান্ড কোং। মূল্য: ৫৫০।

বইটি সম্পর্কে দুটি কথা:
ভ্রমণবিষয়ক বইগুলো সাধারণত যেমন হয়– ভ্রমণের উদ্দেশ্য-স্থান, সাইট, ছবি, ইতিহাস-ঐতিহ্যের বর্ণনা, নমুণা, থাকা-খাওয়ার সুযোগ-সুবিধা ইত্যাদি; সবই আছে বইটিতে। তবে প্রত্যেকটি পাতায় ছবিসহ বর্ণনা এবং অলঙ্করণ কিন্তু নজরকাড়া, সন্দেহের কোনও অবকাশ নেই রুলটানা কাগজের ছাপায়ও রয়েছে আকর্ষণ। ইকবাল করিম হাসনু পেশায় সাংবাদিক ও শিক্ষক, সবশেষে আইনপ্রয়োগকারী সংস্থার সদস্য।

লেখক কানাডা অভিবাসনের সূত্রে আশি দশকের যে বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়েছিলেন, তার অনুগমনে তিনি সক্ষম হন একবিংশ শতকের দ্বিতীয় দশকে। বিজ্ঞাপনটি ছিল ‘ক্যুবা হ্যাঁ’ (cuba si), পরবর্তীতে জানবেন ক্যুবান ভ্রমণের হাতছানি ছিল বিজ্ঞাপনটিতে। ভ্রমণবিয়ষক লেখা যেহেতু, তথ্যে ভারাক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকেই। তবে লেখক এক্ষেত্রে সেই কুশলী বিন্যাসে না গিয়ে, বোধহয় নিজের অবস্থা থেকেই বর্ণনা করেছেন ভ্রমণের। লেখক পেশায় সাংবাদিক বিধায় অতীত-বর্তমানে নানাকথা, উপকথা এবং ইতিহাসও তুলে ধরেছেন অতি সাধারণ ভাষায়। ঠিক আড্ডার মজলিসে পানীয় গেলানর মতো।
বইটির পৃষ্ঠা সংখ্যা- ৯৫।

সবশেষে বলতেই হয়, কর্মপরিকল্পনায় উৎকর্ষ এবং মানের প্রমাণ বরাবরই দিয়েছে বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম। তাদের নতুন উদ্যোগেও আছে তার ছাপ।
Flag Counter


2 Responses

  1. abu afzal md. saleh says:

    বেশ ভাল উদ্দোগ।

  2. Mostafa Tofayel says:

    Rabindranath Maitra hails from my home district, Rangpur.He was born at Mahiganj.His close relatives still live there. It is hearty and encouraging to learn from arts.bdnews24.com that the text of the highly famous Bengali drama,Manmoyee Girls School,by Maitra has been republished and made available to us. It is a matter of glory and pride for us,the people of Rangpur.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.