কবিতা

মুস্তাফিজ শফির গুচ্ছ কবিতা

mustafiz_shafi | 20 Jan , 2015  

কবির বিষণ্ন বান্ধবীরা

১.
তুমি কি নীল ঘাস ফুল, মৌণ তৃণ
হিমালয় থেকে নেমে আসা রহস্য নদী
নবান্নের শেষে মাঠের শরীরে শষ্যের চিহ্নরেখা

তুমি কি রেললাইনের ওপারে গোধূলী
হিরন্ময় সন্ধ্যায় নীড়ে ফেরা পাখি
নতুন দিনের ছবি শিল্পীর তুলিতে আঁকা

তুমি কী, আসলেই বলো তুমি কী-
হিংস্র সময়ের ভিড়ে তুমি কি তবে আশা
নদী নয়, নক্ষত্র নয়, এক ঝাঁক রহস্য আধাঁর

২.
শেষের কবিতায় গেল বেলা
না হয় হল না কিছু হল না
হারানো পথের পাশে তবুও দৈবাৎ যদি
ফোটে নীল ঘাস ফুল
ক্ষীণ তার মৌণ দেহের ভাঁজে লুকিয়ে আশা
আনত চোখের তারা মেলে যদিবা দৈবাৎ
হয়ে যায় চোখাচোখি
নিশ্চিত তুমি টের পাবে তার মোহন আহবান

লীন শূন্যতায় মুছে গেলে কোলাহল
জাগে শুধু মুগ্ধতা মুগ্ধতা খেলা
জেনে রাখো এও এক অমোঘ নিয়তি
আবার বেলা শেষে শেষের কবিতা


রোদবর্তী আমাদের পায়ে হাঁটা পথ
কবে যে খেয়েছে নাগরিক যান
সবকিছু এভাবেই তবে হারায় মহাকালে
এভাবেই মুছে সব চিহ্নরেখা

না হয় হারালো সব,
জেনে রাখো তবুওতো জেগে থাকে
দুরবর্তী স্মৃতির নৌকা


নীল দীর্ঘশ্বাসে তুমিও কি তবে
লিখতে কবিতা গভীর গোপনে
মাটিবর্তী দিন শেষে ডাহুক সন্ধ্যায়।

নীহারিকার পাশে নীল খাম
লিথোগ্রাফে আঁকা এপিটাফ
মাঝে মাঝে শুনি কেউ নাম ধরে ডাকে।


ফাগুনের দিন শেষে গ্রীস্মের সন্ধ্যায়
লেখা হবে এই ভ্রমণের ইতিহাস
তোমার গায়ে থাকবে নক্ষত্রের নীল শাড়ি
আর আমার বুক পকেটে সাগরের উচ্ছাস

রথযাত্রার দিনে রঙিন পাখির গান
আজও আসে ভেসে আসে উল্লাসে
আঁচলে রোদ্দুর মাখা বিকেলের মেঘ নিয়ে
তুমি শুধু দাঁড়িয়েছিলে বেদীটার পাশে

জানা থাক এও এক অজানার আহবান
নীল ঘাস ফুল বিবর্ণ পথরেখার পাশে
ফুটে অবেলায়, অজানায়, তবুওতো ফুটে
হৃদয়ের গভীরে অজানা উচ্ছ্বাসে

না হয় হলো না আর বাড়তি কিছু
না বলা কথা সব থাক অজানা বন্দরে
কোলবলিশের পাশে শুয়ে থাক একান্ত আপন নদী
আর থাক সাগরের নোনা স্বাদ অতলান্ত বুকের গভীরে


শেষ বিকেলে শেষের কবিতা থাক
গভীরেই থাক গভীর গোপন ব্যথা
মায়া থাক, দীর্ঘশ্বাস থাক
শুয়ে থাক সমান্তরাল, নীল খামের পাশে
নীল কবিতার খাতা।

ফালি ফালি চাঁদ থাক
মধ্যরাতের দীর্ঘশ্বাস থাক
মাঠের ওপাশে অর্জুন গাছের মতো একা
স্মৃতি থাক, ঝরা পাতা থাক
আর দূরের আকাশে থাক
মায়াবী একরাশ চিহ্নরেখা


বৃষ্টির ধারার মতো তুমিওতো
ঝরেছিলে বৃষ্টি
যতটুকু ওম ছিল, ভালবাসা ছিল
ঢেলেছিলে অবিরত

অবুজ রহস্য বালিকা, আমি আজ
তোমাকেই খুঁজে ফিরি দুরের মাঠে
যেখানে ক্লান্ত বিষণ্ন তৃণের গায়ে
আকাশের কান্না হয়ে ঝরে বৃষ্টি

আহা, বৃষ্টির ধারা হয়ে তুমিওতো
একদিন ঝরেছিলে অবিরত!


এখনও বাড়িয়ে দেখো মুখ
নীলিমার জানালায় কেউ, ঢেউ ভাঙ্গে ঢেউ
এখনও ঘুরিয়ে গ্রীবা চকিত চোখে
লাল ফুল-নীল ফুল, দেখো কেউ
দাঁড়িয়েছে ভাঙা বুকে

এখনও জাগে একা মধ্যরাতে
নীহারিকার পাশে নীল দীর্ঘশ্বাস
এখনও ডাকে সেই প্রজাপতি কাল
লাশভর্তি কফিনের পাশে এখনও
দূরের চিঠি বয়ে আনে বাউরি বাতাস


সে আর নতুন কী, দিনগুলোতো
এভাবেই ফিরে আসে ইতিহাসে
লিখে রেখে নাম, নীল দীর্ঘশ্বাসে
এভাবেই প্রাণ পায় নতুন কবিতা
না বলা কথা ভাজে
মৌণ তৃণে, ঘাসে ঘাসে

সেখানে কি ছিলাম কোনো কালে
সেই বিদর্ভ প্রত্ননগরে
লিথোগ্রাফে লিখে চিহ্ননাম
ঘুমিয়ে ছিলাম মহাকালের ঘরে
নাম শুধু নাম নয়, টের পাই বুকের খাতায়
কবি শুধু লিখে রাখে ইতিহাস

Flag Counter


6 Responses

  1. জাহিদ সোহাগ says:

    ভালো লেগেছে। সহজ। সুন্দর।

  2. choudhury nurul huda says:

    amio akjon kobita likhie. apnar vetore lukia thaka bedona ato shundor kore kabbomoi korechen she jonne janai ovinandon abong priti. apnar kobitai upoma chitro amake aploto koreche. mone holo apni ami ak hoe gachi. jeno apnar chetonar vetore amio chilam. apnak dhonnobad.

  3. Shahed Kayes says:

    ‘… সে আর নতুন কী, দিনগুলোতো
    এভাবেই ফিরে আসে ইতিহাসে
    লিখে রেখে নাম, নীল দীর্ঘশ্বাসে’

    পড়লাম। খুব ভালো লাগলো কবিতাগুলো… কবিকে ধন্যবাদ।

  4. Arif says:

    সবগুলো পরলাম, বেশ ভালো লাগল কবি। তোমায় ধন্যবাদ, আরো বেশী বেশী লিখ আমাদের জন্য।

  5. অদ্ভুদ মায়া কবিতার আকাশ জুড়ে! হা প্রেম!

  6. মাসুদ আনোয়ার says:

    সকাল বিকাল দেখা হলেই
    হয় না দেখা
    পাশের জনের মুখেও থাকে
    অন্য লেখা।
    সে লেখাটা যায় না পড়া
    হয় না কপি
    এ কবিতায় আরেকজন
    মুস্তাফিজ শফি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.