কবিতা

মোস্তফা তারিকুল আহসানের কবিতা

mustafatariqul_ahsan | 31 Oct , 2013  

জিনসূত্র

তোমার ফেলে যাওয়া ডিএনএ থেকে
আমি তোমার একটা প্রোফাইল তৈরি করেছি অনেক খেটেখুটে ;
প্রথমে তোমার দুটো ব্রাউন চুল
নখের এক টুকরো থেকে আমি ধীরে ধীরে
তোমার অহমের ছবি বানাতে চেয়েছি
খানিকটা তৈরি হবার পর আমি খুব হতাশ হলাম

তুমি যখন তোমার সিগারেটের
শেষ অংশ রেখে গেলে আমি লোভাতুর হয়ে ওটা তুলে নিলাম
বিশেষ করে তোমার লালা থেকে পেয়ে গেলাম তোমার জিনসুত্র
যে কথা তুমি কোনদিন বলনি মুখ ফুটে
অভিনয় করে গেছ সব সময়
আমি সব জেনে গেলাম আজ
তোমার ভনিতা, ঈর্ষাপরায়ণতা- ক্রোধের রঙ- রিরংসার গভীরতা

তোমাকে শতবার জিজ্ঞ্যেস করেও যে-সত্য
আমি কোন দিন জানতে পারি নি
তোমার ফেলে যাওয়া ডিএনএ আমাকে সব বলে দিল
1185243_687251377969718_1016773630_n.jpg
তাহলে আর আমি তোমার অভিনয় সহ্য করবো না
আর তোমাকে ভালোবাসবো না ভালো ভেবে
আমার পথ পরিষ্কার
মিত্রের চেয়ে শত্রুই বরং ভালো
আমি বেছে নেব আমার ঠিকানা

মঙ্গলের চিঠি

লটারিতে আমার নাম উঠলে আমি লাফিয়ে উঠি ;

তাহলে আমার একখ- জমি হচ্ছে মঙ্গল গ্রহে !
বেশ সস্তায়, পৃথিবী থেকে অনেক কম দামে
অনেক নিরুপদ্রপ, পাতলা বসতি হবে
হাঙামা মারামারি ভিড় জট থাকবে না
আমি হাঁপিয়ে ওঠা পৃথিবীতে আর ফিরতে চাই না

মঙ্গল যান আমাদের নামালো এক স্যানোটোরিয়ামে
আরো জনাবিশেক লোক আমারা পৃথিবী ছেড়ে এসেছি একসাথে রাগে দুঃখে
আর ফিরে যাবো না কখ্খনো পৃথিবীতে ; লিখে দিয়েছি

আমরা জমি দেখতে চাইলে ওরা আমাদের নামালো
এক বিশাল পাথুরে মালভূর্মিতে
কিস্সু নেই– শুধু কয়েকটা নুড়ি পাথর
ঘাস নেই বাদামের খোসা নেই সিগারেটের মুথা নেই
পাখি নেই রোদ নেই বিষ্টি নেই

এখন মনে হচ্ছে জেলখানা থেকে পালিয়ে
আমরা বরফের কয়েদখানায় উঠেছি ;

ওখানে খোলা জানালায় মরা ইঁদুরের গন্ধ ছিলো
ভিখিরি আর কাকের ডাকে ঘুম ভাঙানোর মতো জোর ছিল
নেতার চিৎকারে টিভির পর্দা কেঁপে উঠতো
মেরে কেটে খেয়ে সবাই পাঁচ বছরে ফুলে উঠতো
তবু আমার জানালায় ফিঙে ছিল, লেজঝোলা ছিলো, মুনিয়া ছিল
কাঠবদামের সারি সারি গাছ ছিল জারুল ছিল
হিজল না থাকলেও তমাল ছিল গোটাকতক
আর ন্যাড়া আধমরা বাবলার ডালে প্রজাপতি ছিল

আমি আবার নোংরা গন্ধভরা পঁচামানুষের পৃথিবীতে ফিরে যেতে চাই
এঁরা অবশ্য স্পষ্ট করে বলেছে
এখানে আমার নিয়ম আছে
ফিরে যাবার নিয়ম নেই।

Flag Counter


2 Responses

  1. omar shams says:

    “মঙ্গলের চিঠি”-r kolpona valo. Bolar style tao gotiman, ebong imagery spondito. valo laglo porey.

  2. শঙ্খচূড় ইমাম says:

    অসাধারণ ! সত্যিই আমার ভালো লেগেছে। তবে কিছু শব্দ বার বার এসেছে। অবশ্য এখানে প্রয়োজন ভিত্তিক শব্দগুলো বসানো হয়েছে। তবু এড়িয়ে যেতে পারলে আরো ভালো হতো। দুটো কবিতার কল্পনা খুব ভিন্নধর্মী। গতানুগতিক নয়। কবির জন্য শুভ কামনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.