চিত্রকলা, প্রদর্শনী

জাপানে তিন বাংলাদেশি চিত্রশিল্পীর প্রদর্শনী

সাইফ বরকতুল্লাহ | 9 Jun , 2019  


জামাল আহমেদ, মোহাম্মদ ইকবাল এবং মুস্তাফা খালিদ পলাশ। তিনজনই চিত্রশিল্পী। এই তিনজন শিল্পীর কাজের ধারায় আছে ভিন্নতা থাকলেও শিল্পভাবনায় তাঁদের একটি অন্তর্নিহিত সুরের মিল রয়েছে যা বৈশিষ্ট্যে খুবই সমকালীন। নিজস্বতায় মূর্ত। এদের মধ্যে পলাশের আরেকটি পরিচয় তিনি আমাদের অগ্রগন্য আর্কিটেক্ট।

চিত্রশিল্পী জামাল আহমেদ নিরলসভাবে নিবেদিত থেকে তাঁর চিত্রকলার নিজস্ব ভাষা নির্মাণে কাজ করে গেছেন বছরের পর বছর। যা সত্যিই বিশেষভাবে প্রণিধানযোগ্য। তার ক্যানভাসে একই বিষয় ঘুরে ফিরে এলেও একেকটি চিত্রকলায় তা আসে এক ভিন্নমাত্রা ও ভাব নিয়ে। তিনি দৃশ্যকল্প সৃষ্টির একজন সুনিপুণ কারিগর হিসেবে নিজেকে প্রমাণ করেছেন। সাধারণ দর্শক থেকে শিল্পবোদ্ধা পর্যন্ত সবাই তার শিল্পের অনুরাগী।

মোহাম্মদ ইকবাল এই সময়ের একজন গুরুত্বপূর্ণ শিল্পী। এই শিল্পীর চিত্রকলার বিষয়বস্তু হলো মানুষের মুখ এবং তার বিরাটকায় চোখ বিশেষ করে শিশুদের যা প্রকাশ করে সেই মানুষের আত্মার স্বরূপ, যেটা একটা মানুষের পরিণত বয়সে প্রবাহিত হয়ে পরিস্ফুট হয়। ইকবালের চিত্রকলার বিশেষত্ব হলো অনেকগুলি স্তরের সন্নিবেশ যা পরিশেষে তাঁর গভীর ভাবনার মর্মার্থ উম্মোচনে সাহায্য করে।

বাংলাদেশের স্থাপত্য অঙ্গণে ক্রমবর্ধমান একচ্ছত্র একটি নাম মুস্তাফা খালিদ পলাশ। যিনি স্থাপত্য পেশার পাশাপাশি চিত্রশিল্পী, লেখক, সংগীত শিল্পী এবং একজন সচেতন সমাজকর্মী হিসেবেও পরিচিত। পলাশ শৈশব থেকেই লালিত হয়েছেন তাঁর শিল্পী পিতামাতার সান্নিধ্যে। ইতিমধ্যে তিনি চিত্রকলায় একটা নিজস্ব ধারা তৈরি করতে পেরেছেন। তার চিত্রের ক্যানভাসে তুলির প্রশস্ত এবং শক্তিশালী টান রংয়ের স্পন্দন এবং আকার বিন্যাসের মিলিত ব্যঞ্জনা তৈরি করে এক গভীর অনিন্দ্য অনুভূতি।

এখানে বলা প্রয়োজন আগামী ১০ জুন থেকে জাপানের ওসাকায় অনুষ্ঠিত হবে ‘AKA DOT’ শিরোনামে একটি চিত্র প্রদর্শনী। এ প্রদর্শনীতে জামাল আহমেদ, মোহাম্মদ ইকবাল এবং মুস্তাফা খালিদ পলাশের সাম্প্রতিক সময়ে আঁকা বেশকিছু চিত্রকলা প্রদর্শিত হবে। ওসাকা কেন্দ্রিক জাপানি কোম্পানি হলবেইন-এর আমন্ত্রণে হলবেইন গ্যালারিতে এই চিত্র প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে।

প্রদর্শিতব্য চিত্রকলার এই তিনজন বাংলাদেশি শিল্পী এর আগে জাপানে প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। জামাল আহমেদ, মোহাম্মদ ইকবাল চারুকলায় এবং মুস্তাফা খালিদ পলাশ স্থাপত্যে। তাঁদের কাজ জাপানিজ মিনিমালিস্ট দর্শন এবং বাংলাদেশি সারল্য ভাবসম্পদ দ্বারা ভীষণ প্রভাবিত যা এখানে স্পষ্টভাবে পরিস্ফুট।

এই ত্রয়ী বাংলাদেশি শিল্পীর প্রদর্শনী জাপানের দর্শকদের প্রশংসা কুড়াবে আশা করি। মোহাম্মদ ইকবালের তত্ত্বাবধানে প্রদর্শনীটি উদ্বোধন করবেন হলবেইন কোম্পানির প্রেসিডেন্ট ইউসিও কাওয়ামী। আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত এই প্রদর্শনী চলবে।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.