কবিতা

নাভীমূলের সঙ্গীত

স্বদেশ রায় | 29 Aug , 2018  


নাভীমূল থেকে উৎসারিত একটা সুর শিহরণ জাগালো সারা শরীরে-
গভীর অন্ধকারে একাকী তখন প্রপিতামহের শেষকৃত্য’র স্মৃতিস্তম্ভে দাঁড়িয়ে।
পায়ের কূল ঘেষে বয়ে যাচ্ছে গঙ্গা, তারও সারা শরীরে গভীর অন্ধকার
আর জলের শরীর জুড়ে শুধু সুর আর সুর- যা হয়তো আরো আগে শুনে গেছে
অনেকে, এমনি অনেক রাত জেগে, প্রপিতামহের স্মৃতিস্তম্ভে দাঁড়িয়ে।
এ অন্ধকার কেন আমাকে এখানে টেনে নিয়ে এলো, কার কাছে আজ প্রার্থনা আমার?
নিশিথের প্রার্থনার সাক্ষী শুধু অন্ধকার একাকী কি- না, আরো অনেক কিছু চোখ মেলে থাকে?
চোখ মেলে শুধু নয়, কান পেতে থাকে, সেই সব কান যারা সুর ভালোবেসে চলে গেছে,
চলে যাচ্ছে বা চলে যাবে আরো অনেক গাঢ় কালো অন্ধকার রাতে।
গঙ্গার এলোমেলো বাতাস কি তাদের কেউ? আমার প্রপিতামহ কি আছেন তাদের দলে
যারা আজ রাতে আমার এই নাভীমূল থেকে উৎসারিত সুরের ভাগী হতে চায়।

কত বয়স হবে প্রপিতামহের, তিনি কি এখনও আমার বয়সে আছেন না তার ভস্মের
বয়স বেড়েছে, সৌর মন্ডলের বছরের হিসেবে- না, তিনি সৌরমন্ডলকে ছাড়িযে আছেন অনেক দূরে।
অথচ আমার দেহে আমি তার উপস্থিতি পাই, আমার নাভীমূলে উপস্থিতি পাই তার-
যার সঙ্গে মিশে আছে সুর আর ছন্দ, যেমন গঙ্গার জলের শরীরে মিশে আছে তারা।
আজ রাতে তারা সকলে এক হবে কি? জানাবে কি আমাকে কোন আলিঙ্গন আমার প্রপিতামহ।

Flag Counter


1 Response

  1. Dr. Muhammad Samad says:

    The poem sounds very nice! Congratulations to Poet Swadesh Roy.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.