আশেক ইব্রাহীমের কবিতা: অপেক্ষা

আশেক ইব্রাহীম | ২৩ মে ২০১৮ ১:১৪ পূর্বাহ্ন

মোহাম্মদ ইকবালের চিত্রকর্ম

১.
আমার পূর্বপূরুষের মৃত্যু
আমাকে ব্যাথিত করেনি
পৃথিবীর যত ক্লেদ-কান্না আর বিভৎস পাপ
আমাকে আহত করেনি
আমি অপেক্ষা করতে শিখেছি

আমার ঘরে
দরজার ওপাশে ওৎ পেতে অপেক্ষায় আছে মৃত্যু—
কাঁচের জানালার ওপাশ থেকে মিহিন আঙুলের ইশারায়
আমার ঘরের সমস্ত আসবাব অদ্ভুদ এক কোরাসে
আমাকে ঘুমিয়ে রাখে ঘুমের ভেতর
কোন কোন গভীর রাতে
অদ্ভুদ রিংটোনে বেজে ওঠে সিম্ফনি
ঘুম ভেঙ্গে গেলে দেখি সেলফোনটা অন্ধ হয়ে পড়ে আছে
আমি নৈঃশব্দকে কাছে ডাকি—
কাছে এসো, আমার বাহুতে মাথা রেখে
একটু ঘুমোও
কি হবে আর
আমাকে অহেতুক শত্রুর মত পাহারায় রেখে!

২.
পৌরানিক চোখের ঘুম ভেঙে উঠে দেখছি সকাল
দুঃখ-সুখের দোলাচলে এক অপার্থিব আলোয়
ঈশ্বরের মতো নিরাশক্ত আমি
আর অপেক্ষায় মৃত্যুহীন মহাকাল!

৩.
যতই বিষাদ হয়ে উঠুক প্রগাঢ় অন্ধকার
হারিয়ে যাওয়া পথ ধরে ঠিকই ফিরে আসি ঘরে
বৃক্ষ আর স্বেতশুভ্র পাখিদের ডানার মিহিন উষ্ণতা মেখে
ভালবাসতে পারি ফুল নদীর গান স্রোতের সুমধুর স্বরে
ভাবতে পারি মানুষ মূলত নির্জন একাকী বৃক্ষ
তার অভ্যন্তরে বেড়ে ওঠা নৈশব্দের অন্ধকারে
অন্য কোন বৃক্ষের নিঃসঙ্গতা, ফুল হয়ে ঝরে!

৪.
আজো তো হল না শেখা প্রেমের কায়দা-কানুন
জানা হলো না উষ্ণ হৃদয়ের ক্ষত থেকে
কিভাবে জন্ম নেয় রক্তিম জবাফুল!

৫.
তোমার চোখের মনিতে
খুঁজছি— হন্তারকের ছবি

আবছা কালোয়, ছায়ায়-আলোয়
সুচতুর মায়ায়
এমন হিংস্রতা পুষে রাখে
কে সেই ছদ্দবেশী খুনি!

৬.
ভাঙা মাস্তুলে ভেসে ভেসে
আমি শুনেছি গাঙচিলের কলরব
লোকালয়ের চিহ্ন খুঁজে-খুঁজে

পৌরানিক নাবিকের দুর্ভাগ্য সাথে নিয়ে
ফের ফিরে গেছি আমি নীলের বিস্তারে
দিনশেষে, সীমাহীন অতল অন্ধকারে

৭.
যদি ভালোবাসো
এসো, এক পেয়ালা পান করি একসাথে
আর এক পেয়ালা যদি দাও
সমস্ত অভিযোগ ক্ষমা করে দেবো
যন্ত্রণার নীল পোকাদের ভোলাতে
অনায়াসে ঢেলে দেবো অন্ধকার অতল
প্রশ্ন করবো না কোন

আর কিছু চাইনা প্রিয় ফুল, উপশম চাই
যন্ত্রণার উপশম যদি পাই
তুমি হয়ো একগুচ্ছ কামিনী
অথবা
ভোররাতে ঝরে পড়া শিউলির শুভ্র শিশির

সারাদিন স্নিগ্ধ সুবাস যদি পাই
ভুলে যাবো সব পাপ মৃত্যু— ভয়
কি দরকার বলো অহেতুক এতসব ভেবে-ভেবে
মৃত্যুর মুখোমুখি দাঁড়িয়ে ফিরে আসা মহাপাপ
হৃদপিন্ডের কাছাকাছি ধারালো ছুরি রেখে
ভালবাসার আবাদ মহাপাপ

দ্বিধা ছিলনা কোনো, আজো নেই একরত্তি—
ক্ষরণের কাল শেষ হয় যদি আজ
এসো, পান করি একসাথে
সমুদ্রের পাড়ে ধুসর বালির সৈকতে
খোলা আকাশের প্রসন্নতায় চিৎকার করে বলি
বেঁচে থাকা এক উদ্ধত অহংকারের নাম!

Flag Counter

সর্বাধিক পঠিত

প্রতিক্রিয়া (1) »

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন করবী মালাকার — মে ২৩, ২০১৮ @ ১:৩৩ অপরাহ্ন

      খুবই ভাল লাগল কবিতাগুলি।

আর এস এস

আপনার প্রতিক্রিয়া জানান

 
প্রতিক্রিয়া লেখার সময় লক্ষ্য রাখুন:
১. ছদ্মনামে করা প্রতিক্রিয়া এবং ব্যক্তিগত পরিচয়ের সূত্রে করা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না। বিষয়সংশ্লিষ্ট প্রতিক্রিয়া জানান।
২. বাংলা লেখায় ইংরেজিতে প্রতিক্রিয়া বা রোমান হরফে লেখা বাংলা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না।
৩. পেস্ট করা বিজয়-এ লিখিত বাংলা প্রতিক্রিয়া ব্রাউজারের কারণে রোমান হরফে দেখা যেতে পারে। তাতে সমস্যা নেই।
 


Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com