অনুবাদ কবিতা

আবদুস সেলিম: আধুনিক জাপানি কবিতা

আবদুস সেলিম | 2 Apr , 2018  

অনুবাদকের ভূমিকা:
জাপানি তনকা, ক্লাসিকাল হাইকু ঘরানারই কবিতা, তফাতটা মূলত পংক্তিতে—হাইকু তিন পংক্তির আর তনকা পাঁচ পংক্তির। এ ছাড়া ছন্দের ব্যাপারে তনকায় সাধারণত প্রতি পংক্তিতে ৫-৭-৫-৭-৭ সিলাবলের শব্দ ব্যবহার করা হয়। অনূদিত চারজন জাপানি কবিতার নয়টি কবিতাগ সিলাবল অনুসরণে না করে অক্ষরবৃত্তে করার চেষ্টা করা হয়েছে ৫-৭-৫-৭-৭ সংখায়। কবিতাগুলো ইংরেজি থেকে অনুবাদ করা হয়েছে।

মিজুহো ওতা (১৮৭৬-১৯৫৫)

১.
নিসঙ্গ ভিক্ষু
ঘুমিয়েছে দুপুরে—
মঠ পেরিয়ে
দৃষ্টি কাড়ে সঘণ
নিল মেঘের ভেলা।

২.
দিনের বেলা
নদীর বুকে ঝড়,
দূর পাহাড়ে
ছটফটে, অবাক
কাকের কোলাহল।

ইয়াচি আইজু (১৮৮১-১৯৫৬)

১.
আমার বাঁচা
টিকে থাকাই শুধু
স্বর্গমর্ত্যের
নৈশঃব্দের মাঝেই
ঈশ্বর হাসে মৃদু।

২.
নিঃশব্দে এসে
ঘণ্টা বাজায় কে?
গভীর রাত
প্রভু বুদ্ধরও তো
স্বপ্নের সময় যে।

৩.
প্রভু বুদ্ধের
নিমীলিত নয়নে
ইায়ামোতোর
প্রাচীন ধানক্ষেত
খেলা করে নিবিড়।

মাকিচি সাইতো (১৮৮২-১৯৫৩)

১.
শীতান্তে এক
চেতন ফেরা ব্যাং
লাফিয়ে চড়ে
বরফের চূড়ায়
মরণেরই টানে।

২.
বসন্তের মেঘ
জড় হয় আকাশে
মাঝ দুপুরে
দূরে খাগড়া-পাশে
বুনোহাঁসরা ভাসে।

কেনকিচি নাকামুরা (১৮৮৯-১৯৩৪)

১.
গাছের নীচে
হাঁটছে যুবতীরা,
ভ্রুতে তাদের
রক্ত রঙের আভা
গ্রীষ্ম তো এসে গেছে!

২.
উঁচু চূড়ায়
শীত যখন ভারি
ভিক্ষুরা সব
কালো পোশাক পরে
গলায় সাদা বস্ত্র।

Flag Counter


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.