কবিতা

তারিক সালমনের দশটি কবিতা

তারিক সালমন | 21 Oct , 2017  

Rashid Chowdhury
উড়াউড়ির দিন

এইখানে ধুলো নেই। বসবে এখানে?
ফুটপাথ রয়ে গেছে রৌদ্র যেখানে।

সেইখানে তুমি ছিলে। আমিও ছিলাম।
লেখা আছে ওইখানে রাস্তার নাম।

কেউ তা দেখে না, শুধু দেখি আমরাই।
আমরা এখানে বসি। ওখানেও যাই।

এখানেই আছো তুমি। আছো ওখানেও।
এখানে একটু বসো। ওখানেও যেও।

দৃশ্যাবলি

তুমিও থাকলে শব্দের মতো জড়িয়ে
একটিই শুধু খুলে পড়েছিল অক্ষর
ছাউনিও ছিল নিঃসীম এক আকাশে
দূরে দুলছিল তোমার কণ্ঠস্বর

একটানে এঁকে ছবিটি আবার মুছে দিচ্ছিল কেউ
বৃষ্টিতে ভিজে যাচ্ছিল সেই ছবিটি
বাসের প্রথম সিটটিতে বসে তুমি
আমি লাস্ট বেঞ্চ, দূরে এক মেগাসিটি।

পুরোনো কথা

কী আছে ওখানে, সোনা, চাঁদের ওপারে?
নিভিয়ে দিও না চোখ এক ফুৎকারে।
কী আছে দেখতে দাও চাঁদের দুধারে।
এখানে এসেছো কেন কে বলতে পারে?

কী আছে সফেদ ফুলে? কী আছে সুবাসে?
দেখেছি কাঁপছে যা যা কাঁদছে দুপাশে।
ও সোনা, সবুজ পাখি, কী আছে ও ঠোঁটে?
আঁধার নামছে বলে লাল ফুল ফোটে।

সোমবার

তোমাকে লিখতে থাকি গোপনে গোপনে
আঁধারের মতো তুমি
শুয়ে থাকো মনে।

তোমাকে লিখতে থাকি এখানে আবার
দুঃখ দাঁড়িয়ে আছে
দাঁড়িয়ে আঁধার।

তোমাকে লিখতে থাকি নিরালা এ রাতে
কালকের মতো তুমি
না হারাও যাতে।

রাতের গান

যত ফুল ছুঁয়ে আছে তোমার শরীর
যত ফুল হয়ে আছে আরও সুনিবিড়
যে ফুল লুকিয়ে থাকে আঁধারে, তিমিরে
সে ফুল ফুটেছে দেখ তোমার শরীরে।

যত ফুল আমাদের পথে পড়ে আছে
যত ফুল দূরে আর যত ফুল কাছে
যত ফুল ভিজে থাকা বৃষ্টির দিন
যত ফুল লাল আর আরও রঙ্গিন

যে ফুল হৃদয়ে ফোটে ধীরে ধীরে ধীরে
সে ফুল ফুটেছে দেখ তোমার শরীরে।

যে তুমি আমার

আমি শুধু লিখে যাই তোমার শরীর
আমাকে টানছো তুমি, টানছে না ভিড়

ওইখানে আছো তুমি, আমি ঠিক জানি
তোমার শরীরজুড়ে সবুজ বনানী

হেঁটে যেতে যেতে এই আলোয়-আঁধারে
তোমাকে দেখতে পাই মেঘনার পাড়ে

তুমি নিয়ে আছো বসে তোমার শরীর
আমাকে টানছো তুমি, টানছে না ভিড়।

একদিন

নিশ্চুপ তুমি আছো বসে, দুপাশে
কলরব, ঘাসের, না, ঘাসের না,
বৃষ্টিফোঁটার, না, বৃষ্টিফোঁটারও না,
বুকে চেপে থাকা পাথরের।

নিশ্চুপ তুমি আছো বসে, একটি
সন্ধ্যার মতো, না, সন্ধ্যার মতো
নয়, একটি নিস্তরঙ্গ দীঘির মতো,
না, তাও নয়, তাও নয়। একটি
ছোট পাথরের মতো।

বিচ্ছেদের গান

জলের ভেতরে তৃষ্ণার মতো নামি
এখানে এসো না, এখানে রয়েছি আমি।

মৃত নগরীর বদ্ধ গলিতে জ্বলছে অন্ধকার
হৃদয়ে দুলছে, দুলছে হৃদয়ে তোমার সারাৎসার।

কর্দমাক্ত শহরে নামছে বৃষ্টি-গন্ধ-সাপ
এখানে এসো না দীপ্তি ছড়াতে, হলদে কাঠগোলাপ।

এসো

আমাকে দুঃখ দিতে জন্ম তোমার
তবুও তোমার কাছে আসি বারবার
তুমি কুয়াশার মতো এই চরাচরে
চলাচল করো, সোনা, প্রাণের ভেতরে
আমাকে উড়িয়ে নিলো বাতাস বাতাস
তবুও তোমার মাঝে করি বসবাস

আমাকে রাতের মেঘ হারিয়ে ফেলেছে
কাছে এসে দূরে গিয়ে আরও দূরে গেছে
আমাকে যে চোরাস্রোত নিয়ে গেছে টেনে
সেই স্রোত ভিড় করে রাতের ট্রেনে

আকাশে কিচ্ছু নেই, বাতাসেও সিসা
চুল তার
কবেকার
অন্ধকার
বিদিশার
নিশা

অসুখ

তুমি যদি ছুঁয়ে দিতে সেরে যেত জ্বর
আশ্লেষে মিশে যেত তোমার অধর
পাতার ভেতর থেকে তুমি নেমে এসে
নিশ্চুপ হয়ে যেতে ভালোবেসেবেসে

Flag Counter


5 Responses

  1. শিমুল সালাহ্উদ্দিন says:

    সহজ সুন্দর, প্রেমময় কবিতা। অভিনন্দন কবিকে। ধন্যবাদ আর্টস।

  2. Bulbul Islam says:

    HI,
    all poems are nice. it is very enjoyable.

    regards,
    Bulbul

  3. সালেহ আহমদ says:

    কবিতা খুব একটা পড়া হয় না,ভালো বুঝি ও না ।তারেক সলমন নামটা দেখেই সব কয়টা কবিতা পড়লাম । খুব ভালো লাগলো ।

  4. আপনার দশটা
    কবতাই খুব ভাল।

  5. আবু খাদিজা says:

    সুন্দর কবিতা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.