প্রদীপ করের পাঁচটি কবিতা

প্রদীপ কর | ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ ১০:৫৪ পূর্বাহ্ন


দরজা

আমার বাড়িতে অনেকগুলো ঘর।
যতগুলো দরজা আছে
জানলা আছে তারও চেয়ে বেশি।
আলোবাতাস আসে। এই ঘরে
যতগুলি দরজা আছে
ততগুলি
মানুষ তো নেই
ফলে
আমি একাই ভিতরে বাইরে আসা যাওয়া করি…
তাই, দরজাগুলি সকল সময় খোলা থাকে

আমি সমস্ত দরজাই সব সময় খুলে রাখতে চাই
তার জন্য
আজ না হোক, কাল বা পরশু বা তার পরদিন

সে, যদি অন্তরে প্রবেশ করতে চায়…

আলো

মানুষেরা বড্ডবেশি আলোকিত হয়ে আছে আজ
তাদের নিজের ছায়া
এখন আর মাটিতে পড়ে না।

শুধু ধূসর শূন্যতাগুলি, নিশ্চিন্ত দুঃখগুলি
গোপন গভীর থেকে
ঝরে
পড়া
পাতার
মতন

বাতাসের সামান্য খেলায়

বহুদূরে
উড়ে
উড়ে
যায়…
প্রকৃতই বন্ধুহীন হয়ে থাকে অস্পষ্ট যন্ত্রনার ক্ষত
পরাজয় নিজেও আজ পরাজিত হতে অসম্মত

ঈর্ষার দগদগে আগুনে মানুষের মুখগুলি
পুড়ে পুড়ে তপ্ত তামার মতো লাল…

শুধু তার চোখের ভাষা, যেন, বৃষ্টি ভেজা গ্রীষ্মসকাল…

রূপলাগি

এই সেই লেখা। যেখানে তুমি আজ এসে
খুঁজতে চাইছো কবিটির মন
কবিও তো অক্ষরে অক্ষরে, যতখানি রূপ এসে ঝুরে
তোমাকেই বুঝে নিতে মগ্ন তখন

কী হবে এরপর? বলো, কী হবে তারপর?
প্রতিটি শরীর তুমি রেখে আসছো
প্রত্যেকটি কবিতার ওপর।…

টিপ

হোটেলের ঘরের আয়নায় যে টিপ লেগে ছিল
আজ দেখি কপালে তোমার!
তার মানে
তুমিও একদিন ওই হোটেলের ঘরে গিয়েছিলে?

কার সঙ্গে? কার সঙ্গে? কে ছিল তখন?

দু’জনের মাঝখানে সন্দেহ যখন এসে নিশ্চুপে দাঁড়ায়
তখনই কি পরস্পর ঠিকমতো চিনে নিতে চাই?

সংস্কার

আমি যে ঘরটিতে বাস করি, তার মেঝেয়,
প্রতিদিন প্রচুর ধুলো জমে বুঝি,
যখন কাজের বুয়া ঘর মুছে দেয়। তার হাতের নিপুন মোছায়
জমে থাকা ময়লা চলে যায়।

বালতির জলে কাপড় নিংড়ায় আর মোছে
কাপড় নিংড়ায় আর মোছে
বালতির জল যত নোংরা হয়। মেঝে ততই তকতক করে

আমারও ভেতরে রোজ অযুত ময়লা জমা হয়
কে আছ এমন সুকৌশলে সাফসুতরো করবে মনে মনে?

আজ জ্যোৎস্নারাতে সবাই গেছে বনে।…
Flag Counter

প্রতিক্রিয়া (5) »

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন sk. harun — জানুয়ারি ১৮, ২০১৭ @ ৭:০০ অপরাহ্ন

      বারবার পড়ছি। বার বার পড়তে হবে।

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন MD. Mejbhauddin (apu) — জানুয়ারি ১৮, ২০১৭ @ ৮:০৩ অপরাহ্ন

      কবির কবিতা পড়ে এক অন্যরকম ভাল লাগলো ।মাফ চেয়ে নিচ্ছি,আমাদের একটা বালাই আছে ছন্দ নিয়ে ।তাই যদি বলতেন ,আপনার কবিতার ছন্দ সম্পর্কে।

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন pradip kar — জানুয়ারি ১৮, ২০১৭ @ ৮:৫৬ অপরাহ্ন

      প্রথমেই মো. মেজবাহউদ্দীন (অপু)কে ধন্যবাদ জানাই, আমার এই সামান্য কবিতা-প্রয়াস, তার ভালো লেগেছে, তিনি জানিয়েছেন, বলে।

      এই কবিতা-প্রয়াসগুলিতে একটি নিরীক্ষা করতে চেয়েছি,একদম সাধারণ গদ্যভাষায় শুরু করে ছন্দে পৌঁছানো… জানিনা, ছন্দবিজ্ঞানীরা একে কোন দলে ফেলবেন !!

      আপনাকে আবারো ধন্যবাদ জানাই, ছন্দ সম্পর্কে আপনার কৌতুহল প্রকাশের জন্য..

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন সাইফুল্লাহ মাহমুদ দুলাল — জানুয়ারি ১৯, ২০১৭ @ ১১:২৫ অপরাহ্ন

      খুব ভালো লাগলো। (যেমন, বালতির জল যত নোংরা হয়। মেঝে ততই তকতক করে)। আর ‘আজ জ্যোৎস্নারাতে সবাই গেছে বনে।’ পংক্তিটার কি দরকার ছিলো?

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন রাধে — ফেব্রুয়ারি ১, ২০১৭ @ ৬:১৯ অপরাহ্ন

      বেশ লাগলো।অনেকদিন পর।প্রদীপ।

আর এস এস

আপনার প্রতিক্রিয়া জানান

 
প্রতিক্রিয়া লেখার সময় লক্ষ্য রাখুন:
১. ছদ্মনামে করা প্রতিক্রিয়া এবং ব্যক্তিগত পরিচয়ের সূত্রে করা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না। বিষয়সংশ্লিষ্ট প্রতিক্রিয়া জানান।
২. বাংলা লেখায় ইংরেজিতে প্রতিক্রিয়া বা রোমান হরফে লেখা বাংলা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না।
৩. পেস্ট করা বিজয়-এ লিখিত বাংলা প্রতিক্রিয়া ব্রাউজারের কারণে রোমান হরফে দেখা যেতে পারে। তাতে সমস্যা নেই।
 


Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com