সাম্প্রতিক বিশ্বসাহিত্য: গত বছরের সেরা বইগুলো

বিপাশা চক্রবর্তী | ৫ জানুয়ারি ২০১৬ ৮:৫৩ অপরাহ্ন


২০১৫ সালের আলোচিত তিনটি বই

একটি বছরে কতই না বই প্রকাশিত হয়। গল্প কবিতা উপন্যাস আত্মজীবনী বিজ্ঞান কল্পকাহিনী থ্রিলার প্রবন্ধ অনুবাদ ইতিহাস রাজনৈতিক আরো কত কি! যতই বই প্রকাশিত হোক না কেন, একটি বছরের জন্য তা হয়তো কিছুই না। আমি ধরে নিচ্ছি আপনি একজন ভাল পাঠক বা বই সমালোচক, তাহলে আপনার পক্ষে কখনোই সম্ভব নয় বছরে যে পরিমাণ বই বের হয় তার সিকিভাগ শেষ করা, এমনকি একযুগেও। তাই একটি বছর যখন শেষ হয় তখন অভিজ্ঞ পাঠক তার বইয়ের তালিকার দিকে তাকান, কোনটিই বা বাদ দেবেন আর কোনোটিই বা রাখবেন। কোনটি ভাল লেগেছে অথবা কোনটি পড়তে হবে ইত্যাদি। আর কোন কোন বই দিয়ে বুক সেলফকে সমৃদ্ধ আর নিজেকে ঋদ্ধ করবেন। বেশিরভাগ সময় দেখা যায়, এত সহস্র্ বইয়ের মধ্যে একটি ভাল বই হাতে আসার জন্য একজন পাঠককে অপেক্ষা করতে হয় অনেকদিন, এমনকি পড়তেও হয় অনেক বই–এভাবেই একটি মনের মতো বইয়ের সন্ধান পান একজন পাঠক। এখন অবশ্য এই ব্যাপারটা অনেক সহজ হয়ে গেছে– বিভিন্ন দৈনিক সাময়িকী অনলাইন ইত্যাদি পত্রপত্রিকার কল্যাণে। অনায়াসে আপনি জানতে পারবেন বছরে সেরা বইগুলো কি কি? কোন বই সাড়া ফেলেছে, আলোচিত সমালোচিত হয়েছে বা এর নতুনত্বই বা কি? বিদায়ী বছর ২০১৫ সালে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে প্রকাশিত অসংখ্য বই যোগ হয়েছে বিশ্ব সাহিত্যের ভান্ডারে। এসবের মধ্যেও সবচেয়ে সেরা বইগুলো সম্পর্কে একসাথে জানা পড়া খোঁজ খবর নেয়া একজন পাঠকের পক্ষে রীতিমতো কঠিনই বটে। বছর জুড়ে বিভিন্নভাবে রথী মহারথী ব্যক্তি পত্রিকা ও সাহিত্য সাময়িকীর পছন্দের তালিকায় এসেছে এমন অনেক বইয়ের ভেতর থেকে খানিকটা ভিন্ন স্বাদের বইয়ের দিকে তাকানো যাক।

border=0প্রথমেই যে বইটির কথা বলব সেটি একটি বিজ্ঞান কল্পকাহিনী। সেযুগের আইজ্যাক আসিমভ, আর্থার সি ক্লার্ক-এর নাম তো সবাই জানেন, এবার জানুন এযুগের কিম স্ট্যানলী রবিনসনকেও। গেল বছর জুলাইতে প্রকাশিত তাঁর Aurora বইটির মাধ্যমে সায়েন্স ফিকশন জগতে এক নতুন মাত্রা যোগ করেছেন। বইতে ভবিষ্যৎ মানব সভ্যতার কয়েক প্রজন্ম দ্বারা পরিচালিত আন্তঃনাক্ষত্রিক যাত্রার এক অবিশ্বাস্য শ্বাসরুদ্ধকর গল্প বর্ণিত হয়েছে। সৌরমণ্ডল থেকে ১২ আলোকবর্ষ দূরে সূর্যের মতো এক নক্ষত্রকে ঘিরে আবর্তিত হওয়া একটি গ্রহের উপগ্রহে মানব বসতি স্থাপনের উদ্দেশে তাদের এই যাত্রা। পৃথিবীর মতো অরোরা নামের ঐ উপগ্রহে বসতি স্থাপনে ব্যর্থ হয়ে আবার পৃথিবীতে ফিরে আসা চমৎকার এক আখ্যান অতি দক্ষতার সাথে বর্ণনা করেছে কল্পকাহিনীর এই লেখক। এর বর্ণনাশৈলী ভিন্নতা পেয়েছে অন্য এক কারণে। এটি বর্ণিত হয়েছে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার জবানীতে। বইটি ইতিমধ্যে ব্যাপকভাবে সমালোচকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করতে সক্ষম হয়েছে। বইটি গত বছরের সর্বাধিক বিক্রিত বইগুলির মধ্যে অন্যতম।

border=0দ্বিতীয় যে বইটির কথা বলব সেটি একটি আত্মজীবনী গ্রন্থ মনে হলেও আসলে এটি সম্পূর্ণ রূপে একটি বিজ্ঞানের বই। অলিভার উলফ স্যাক্স বিশ্বসেরা একজন স্নায়ুবিশেষজ্ঞ। যিনি রোগ আর রোগীদের উপজীব্য করে জনপ্রিয় সব বিজ্ঞানের বই লিখে ব্যতিক্রমী লেখক হিসেবে খ্যাতি কুড়িয়েছেন। এদের মধ্যে সবচেয়ে বিখ্যাত অ্যাওকেনিংস বইটি, যার উপর ভিত্তি করে ১৯৯০-এ হলিউডে নির্মিত চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছিলেন রবিন উলিয়ামস ও রবার্ট ডি নিরো। এই ব্রিটিশ আমেরিকান নিউরোলজিস্ট একই সাথে চিকিৎসক বিজ্ঞানী শিক্ষক এবং লেখক। গত বছর আগস্টে ৮২ বছর বয়সে মারা যাবার মাত্র মাস তিনেক আগে প্রকাশ করে গেছেন অসামান্য এক গ্রন্থ On the Move A life. তাঁর কৈশোর যৌবনের নানা ঘটনা অভিজ্ঞতা পছন্দ অপছন্দ জীবন দর্শন ফুটে উঠেছে ভিন্ন এক অভিব্যক্তিতে। কখনও গভীর রাতের অন্ধকার নির্জন রাস্তায় ১৬০ কিমি বেগে মোটর সাইকেল চালিয়েছেন আচ্ছন্নের মতো, কারণ গতি ছিল তাঁর প্রিয়। আবার হ্যামবার্গারের আধখাওয়া টুকরা ফেলে রেখেছেন ল্যাবের মূল্যবান যন্ত্রপাতির সাথে, কখনোবা অগোছালো স্বভাবে গবেষণার জন্য অতি দরকারি কাগজপত্র নিক্ষেপ করেছেন ময়লার ঝুড়িতে । এসবের মানে এই না যে তিনি গবেষক হিসেবে ব্যর্থ বরং এসবের মাধ্যমে তিনি ব্যাখ্যা করেছেন আসলে আমাদের মস্তিস্ক কিভাবে আমাদের চালিত করে। বাস্তব পৃথিবীকে কিভাবে গ্রহণ করে । On the Move এমনই একটি গল্প যেখানে অসাধারণ ভঙ্গিতে রীতিবিরুদ্ধ এই চিকিৎসক ও লেখক আমাদের কাছে উদ্ভাসিত করেছেন প্রকৃতির এক বাস্তব সত্যকে- “মানবমস্তিষ্কই মানুষকে মানুষ বানিয়েছে”। আর এমন কথা অলিভারের চেয়ে ভালভাবে ব্যাখ্যা করা অন্য যে কারো পক্ষেই কঠিন।

border=0তৃতীয় ও সর্বশেষ বইটি হচ্ছে পুলিৎজার পুরষ্কারবিজয়ী সাংবাদিক জোবে ওয়াররিক রচিত Black Flages The Rise of IsIs বইটি।
এক রোমাঞ্চকর নাটকীয় জমজমাট বর্ণনার মাধ্যমে তিনি দেখিয়েছেন কিভাবে জর্ডানের এক প্রত্যন্ত কারাগার থেকে মুক্তিপ্রাপ্ত একজন রাজনৈতিক কয়েদীর সাথে একত্রিত হয়ে যায় দুই দু জন আমেরিকার প্রেসিডেন্টের অনাকাঙ্ক্ষিত ভুল সিদ্ধান্ত, যার মাসুল হিসেবে ইসলামী জঙ্গী সংগঠন আইএস’এর উত্থান। তিনি মূলত এই বইতে আইএস’র উত্থানের উৎস খুঁজেছেন। এবং খুঁজতে গিয়ে বেরিয়ে এসেছে ১৯৯৯ সালে জর্ডানের কারাগার থেকে মুক্তি পাওয়া সেই কয়েদীর জীবনকাহিনী । যাকে আবু মুসআব আজ-জারকাবি নামে চেনে সারা পৃথিবী। মনে করা হয় এই ব্যক্তি মধ্যপ্রাচ্যের সৃষ্ট বর্তমান ইসলামী সন্ত্রাসবাদের পিছনের মূল হোতা। যিনি ২০০৬ সালে মারা যাবার আগে বেশ কয়েকটি জিহাদী সংগঠন পরিচালনা করতেন। ব্ল্যাক ফ্লেগস বইতে এই জিহাদী নেতার জীবনের ইতিহাসের সাথে বুশের ইরাক আক্রমণ ও আল কায়েদা, পরবর্তীতে ওবামার সিরিয়া বিষয়ক পররাষ্ট্রনীতির কারণে আইএস-এর উত্থান এবং আজকের এই বর্বর নৃশংসতা যা ইরাক আফগানিস্তান সিরিয়া থেকে প্যারিস পর্যন্ত বিস্তার লাভ করেছে, এই সব কিছুকে বিস্তারিত গবেষণামূলক অনুসন্ধানের মাধ্যমে তুলে ধরা হয়েছে। বইটি তাই চলমান বিশ্ব রাজনীতির সমস্যা ও অস্থিরতার কারণ সম্পর্কে উৎসাহী পাঠকদের জন্য খুবই প্রয়োজনীয়। ইতিমধ্যে বইটিকে নিউইয়র্ক টাইমস ও ওয়াশিংটন পোস্টে ২০১৫-এর বর্ষসেরা বই হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে।

২০১৬ হতে যাচ্ছে উপন্যাসপ্রেমীদের বছর

rebeca.jpgউপন্যাসপ্রেমী পাঠকদের জন্য ২০১৬ সালে বেশ কিছু ভালো উপন্যাস প্রকাশের অপেক্ষায় আছে । গত ২০১৫ সালে পলা হকিন্সের প্রকাশিত দা গার্ল অন দা ট্রেন গল্পের উপন্যাসটির ঈর্ষনীয় সাফল্য ছিল। হকিন্স-এর উপন্যাসের চলে যাওয়া সেই মেয়েটি যেন সাধারণ পাঠকের হৃদয় জুড়ে ছিল, আর এখন আসছে ফিওনা বাটন-এর প্রথম উপন্যাস দ্য উইডো , এটি ব্যান্টন প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হবে। আশা করা হচ্ছে ২০১৬ সালে এটিও দা গার্ল অন দা ট্রেন গল্পের মতোই চিত্তাকর্ষক হবে। অন্যদিকে, রেবেকা ম্যাকেঞ্জির ইন এ ল্যান্ড অব পেপার গডস শিরোনামে নতুন উপন্যাস জানুয়ারিতে বের হবে। বইটি এম্পায়ার অব দ্য সানদ্য পয়জনউড বাইবেল উপন্যাসের আলোকে চীনে একটি মিশনারি স্কুল প্রতিষ্ঠার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে।
আপনাদের এ বছর জোয়ানা ক্যানোনের দ্য ট্রাবল উইথ গোটস এন্ড শিপ উপন্যাসের দিকেও লক্ষ্য রাখতে হবে। ১৯৭০-এর জীবনযাত্রার এক অন্ধকারময় হাস্যরসাত্মক কাহিনী নিয়ে এই উপন্যাসটি লেখা হয়েছে। আরও রয়েছে জেম লেস্টারের শাটাম (এপ্রিল) উপন্যাস। আরো অপেক্ষায় আছে গ্যালে বিগার প্রকাশনীর এডাম বাইলসের ফিডিং টাইম উপন্যাসটি।
শিশুতোশ ঔপন্যাসিক মেগ রোজোফের বড়দের উপন্যাস জোনাথন আনলিশড (ফেব্রুয়ারিতে)। সমালোচক ও সাংবাদিক নাতাসা ওয়াল্টারের প্রথম উপন্যাস আ কোয়াইট লাইফ আগামী জুনে প্রকাশিত হবে।
স্পিকিং অব বুকারজয়ী লেখক জুলিয়ান বার্নেস-এর ২০১১ সালে প্রকাশিত প্রথম উপন্যাস দা সেন্স অব এন এন্ডিং-এর পর দা নয়েজ অব টাইম বের হচ্ছে চলতি মাসেই। গ্রাহাম সুইফটসের উপন্যাস মাদারিং সানডে ফেব্রুয়ারীতে প্রকাশিত হতে যাচ্ছে। হাওয়ার্ড জেকবসনের দা মাষ্টার অব ভেনিস-এর মতোই নতুন সিরিজ শাইলক ইজ মাই নেম-এর সাথে শেক্সসপিয়রের দা উইন্টারস টেল অবলম্বনে জেনেট উইন্টার্সনের -দা গ্যাপ অব টাইম পুনঃপ্রকাশিত হতে যাচ্ছে। অন্যদিকে ডেভিড মিচেল কাফকা বিষয়ক বইটি পুনরায় লিখছেন, আশা করা যায় এটাও সবার জন্য সুখপাঠ্যই হবে।

একটি বই একটি দোকান

one-book.jpgপ্রতি বছর এই যে শত সহস্র বই প্রকাশিত হচ্ছে, এত বইয়ের মাঝে কোন কোনটি বইয়ের দোকানে বিক্রয়ের জন্য রাখবেন, তা পছন্দ করার সময় সবচেয়ে বেশী অসুবিধায় পড়েন বই-দোকানের মালিকরা। এক্ষেত্রে তাদের অসুবিধাটা সম্ভবত পাঠক প্রকাশকের চেয়ে একটু বেশী। অনেকের মাথা খারাপ হবার যোগাড় হয় কোনটা রেখে কোনটা উঠাবেন বইয়ের দোকানের তাকে । তা, এই সমস্যার এক অভিনব পথ বাতলেছেন টোকিও’র এক ছোট বই-দোকানের মালিক। ‘মরিয়োকা শোতেন’ জাপানের বিলাসবহুল বিপনী শহর গিনজার একটি ছোট বই দোকানের নাম, যেখানে মালিক ইয়োশকি মরিয়োকা ক্রেতাদের জন্য শুধু একটি শিরোনামে একটি বই রাখেন পুরো সপ্তাহ জুড়ে। যদিও একই বইয়ের অনেক কপি রাখেন। বলা যায়, পুরো সপ্তাহ জুড়ে চলে ঐ একটি বইয়ের প্রদর্শনী। এবং এর ফলে একটি বইয়ের সাথে একজন পাঠকের নিবিড় একটি সম্পর্কও তৈরি হয় বলে ধারণা মালিক মরিয়োকার। তার বই বিক্রির পূর্ব-অভিজ্ঞতা থেকে দেখেছেন প্রায়ই পাঠকরা একটি বিশেষ বই’ই খুঁজতে আসত। অনেক পাঠক আগে থেকেই ঠিক করে আসত কোন বইটি তারা কিনবেন বা তাদের দরকার, এখান থেকেই তিনি বুঝেছেন একটি ভাল বই একটি বই দোকান চালাতে যথেষ্ট। এই অভিজ্ঞতা থেকেই তার অভিনব উদ্যোগ। তিনি মনে করেন, এখন যতই ই-বুক এর চল শুরু হোক না কেন, বই আসলে একটি দৃশ্যমান বস্তু। যার শরীরী আবেদন ও আকর্ষণ আছে। অতীতেও ছিল, এখনো আছে এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। বেশীরভাগ মানুষ যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে বইকেই ব্যবহার করে। ইতিমধ্যে সারা পৃথিবী থেকে উল্লেখযোগ্য দর্শনার্থী ও ক্রেতা এই বইয়ের দোকানে এসেছেন। এবং প্রতিদিনই আসছেন। শুধু তাই নয়, মরিয়োকা চেষ্টা করেন প্রতি সপ্তাহে যে বইটি তার দোকানে রাখা হবে সেই বইটির সাথে তার লেখক ও প্রকাশকও যেন যতটা সময় পারে উপস্থিত থাকেন। এটা অনেকটা বইটির একটি ত্রিমাত্রিক রূপ দেবার প্রয়াস বলা যায়। এই দোকানের আরেকটি বৈশিষ্ট্য হচ্ছে এর ভেতরকার ইণ্টেরিয়র ডিজাইনের একটি চমৎকার পরিবেশ।

তথ্য সুত্রঃ
The New York Times, The Washington Post, The guardian

আর্টস বিভাগে প্রকাশিত বিপাশা চক্রবর্তীর আরও লেখা:
জীবন ও মৃত্যুর সঙ্গম: অর্ধনারীশ্বর অথবা তৃতীয় প্রকৃতি

মানব তুমি মহীরুহ তুমি

সাম্প্রতিক বিশ্বসাহিত্য

সাম্প্রতিক বিশ্বসাহিত্য: আইনস্টাইন, শেক্সপিয়র, আঁদ্রে গ্লুক্সমাঁ, ফের্নান্দো ও বিয়োরো

সাম্প্রতিক বিশ্বসাহিত্য ও সংস্কৃতি

সাম্প্রতিক বিশ্বসাহিত্য ও সংস্কৃতি: স্রোতের বিরুদ্ধে স্নোডেন, অরুন্ধতী, কুসাক

সাম্প্রতিক বিশ্বসাহিত্য ও সংস্কৃতি: ভিক্টর হুগো ও টেনেসি উইলিয়াম

সাম্প্রতিক বিশ্বসাহিত্য: আরবমুখী ফরাসী লেখক ও মার্গারেটের গ্রাফিক-উপন্যাস

Flag Counter

সর্বাধিক পঠিত

প্রতিক্রিয়া (6) »

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন chandan chakraborty — জানুয়ারি ৬, ২০১৬ @ ১২:২৭ পূর্বাহ্ন

      দিদি, অভিনন্দন।

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন Rana — জানুয়ারি ৬, ২০১৬ @ ৯:৪৪ অপরাহ্ন

      উপন্যাসপ্রেমী পাঠকদের জন্য ২০১৬ সালে বেশ কিছু ভালো উপন্যাস প্রকাশের অপেক্ষায় আছে । নিউজটি এভাবে আর কেই প্রকাশ করেনি, যা শুধুমাত্র বিডিআর্টসপ্রকাশ করেছে। ধন্যবাদ বিডি নিউজকে।

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন Avijeet Kumar — জানুয়ারি ৭, ২০১৬ @ ৮:৪৯ পূর্বাহ্ন

      উপস্থাপনে চমৎকার শৈলী, আর্টের যথার্থতা! 2015 সালের তিনটি বইয়েই আমার জন্য শেখার অনেক কিছু থাকতে পারে, তাই সংগ্রহ করে পড়ার চেষ্টা করব। ধন্যবাদ আপনাকে।

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মিজানুর রহমান রানা — জুন ১২, ২০১৬ @ ৬:০৫ অপরাহ্ন

      উপন্যাসপ্রেমী পাঠকদের জন্য ২০১৬ সালে বেশ কিছু ভালো উপন্যাস প্রকাশের অপেক্ষায় আছে । নিউজটি এভাবে আর কেউ প্রকাশ করেনি, যা শুধুমাত্র বিডিআর্টস প্রকাশ করেছে। ধন্যবাদ বিডিনিউজকে।

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন sujon — জুন ১৭, ২০১৬ @ ১২:৪৩ অপরাহ্ন

      উপকারী পোষ্ট ধন্যবাদ এডমিন

আর এস এস

আপনার প্রতিক্রিয়া জানান

 
প্রতিক্রিয়া লেখার সময় লক্ষ্য রাখুন:
১. ছদ্মনামে করা প্রতিক্রিয়া এবং ব্যক্তিগত পরিচয়ের সূত্রে করা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না। বিষয়সংশ্লিষ্ট প্রতিক্রিয়া জানান।
২. বাংলা লেখায় ইংরেজিতে প্রতিক্রিয়া বা রোমান হরফে লেখা বাংলা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না।
৩. পেস্ট করা বিজয়-এ লিখিত বাংলা প্রতিক্রিয়া ব্রাউজারের কারণে রোমান হরফে দেখা যেতে পারে। তাতে সমস্যা নেই।
 


Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com