কুদরত-উল ইসলামের ‘গন্ধলেবুর বাগানে’

রাজু আলাউদ্দিন | ২৩ মে ২০১৫ ১১:৩২ পূর্বাহ্ন

border=0কুদরত-উল ইসলামের পরিচিতি মূলত উপন্যাস, ছোটগল্প, প্রবন্ধ আর শিশুসাহিত্যের জন্য হলেও, তার মরণোত্তর কবি পরিচয়কে যে উপেক্ষা করা যা না তার প্রমাণ অন্ধ অন্ধ গন্ধলেবুর বাগানে শীর্ষক কাব্যগ্রন্থ।

তার কবি পরিচয়ের হদিস নেয়ার আগে শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ কুদরত-উল ইসলাম সম্পর্কে কয়েকটি জরুরী তথ্য এই যে তিনি ১৯৩২ সালে জন্মগ্রহণ করেছিলেন বাংলাদেশে। ১৯৬৩ সালে থেকে যুক্তরাজ্যে প্রবাসী হন। কিন্তু প্রবাস তাকে বাংলাদেশ এবং সাহিত্যের শেকড় থেকে বিচ্ছিন্ন করতে পারেনি । বাংলাদেশের জন্মের মুহূর্তে লেখক প্রবাসে থাকাবস্থায় মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে আন্তর্জাতিক মতাদায়ে বিরাট ভূমিকা পালন করেন।

সাহিত্যিক জীবনে তিনি ছিলেন বহুমুখী: বিষয় নির্বাচনের ক্ষেত্রে যেমন, তেমনি সাহিত্যের বিভিন্ন শাখায় সৃষ্টিশীল সফরের কারণেও। বাংলাদেশে তিনি বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনীর আদি স্রষ্টাদের একজন। বাংলা ভাষায় অনুসন্ধানী সমালোচনা নেই বলে আমরা তার অবদানের মানচিত্রটি আঁকতে পারিনি। ১৯৭৫ সালে প্রকাশিত তার প্রথম উপন্যাস ব্রেইন ফ্যান্টাসীর নাট্যরূপ প্রচারিত হয়েছিলো বিটিভিতে। বিশ্বনাগরিক চেতনায় উদ্বুদ্ধ লেখক কুদরত-উল ইসলাম দেশজ এবং বিশুদ্ধ কাল্পনিক বিষয়ে আবদ্ধ না থেকে নিকারাগুয়ার মুক্তিসংগ্রাম নিয়েও লিখছেন উপন্যাস। সাম্যবাদী আদর্শ তার ব্যক্তিত্বকে দিয়েছে বিশ্বরূপের প্রসারতা আর মানবিক চেতনার সৌন্দর্য্য। তার ব্যক্তিত্বের ঐশ্বর্য্য থেকে বঞ্চিত ছিল না শিশুরাও। ওদের জন্য লিখেছেন তিনি।

২০১২ সালের আগে পর্যন্ত আমাদের কাছে এসব পরিচয়ই ছিল তার ব্যক্তিত্বের প্রকাশিত দিক। কিন্তু অতলে তিনি যে কবিতার গহীন আত্মার দ্বারা রঞ্জিত ছিলেন তার প্রত্যক্ষ প্রমাণ পেতে আমাদের অপেক্ষা করতে হলো তার মৃত্যু-পরবর্তী পাণ্ডুলিপি আবিষ্কার পর্যন্ত। আগামী প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত অন্ধ অন্ধ গন্ধলেবুর বাগানে শীর্ষক কাব্যগ্রন্থে আশ্রয় পেয়েছে তার পাণ্ডুলিপিটি (প্রচ্ছদ: শিবু কুমার শীল)।

…………………………………………….

কুদরত-উল ইসলামের দুটি কবিতা

পথ

রক্ত মাংস জ্বেলে লড়েছো, এই সংগ্রামে
বিষন্ন গভীর
পিচ্ছিল পথ
আড়ালে ২ ক্রমশ সূর্যচূড়ায় উঠে
সর্বস্বান্ত
নিঃস্ব আকাশ
বিকালের রশ্মিপ্রপাত

আবর্ত

স্তব্ধ আঁধার
বুনো বাতাসের গন্ধে
রক্তবর্ণ মেঘ এসে আবর্তের মতো ঘুরছে।
মোহময় শয্যাসুখ

…………………………………………….

এই গ্রন্থের বেশির ভাগ কবিতাই মূলত গদ্য ছন্দে রচিত, মাঝে মধ্যে দুএকটি লিরিকে বেজে উঠেছেন তিনি। মোট পঞ্চান্নটি কবিতার এই কাব্যগ্রন্থ কবি কুদরত-উল ইসলামের মূর্ত ও বিমূর্ত অনুভূতির এক দুরূহ বিন্যাস। দুরূহ কারণ তা ইঙ্গিতময়তার পরিমিতিকে জয় করতে চেয়েছে, বাক্যপ্রবাহের মধ্যে উল্লম্ফনের রীতিকে ব্যবহার করে কবিতার শরীরকে রাখতে চেয়েছে বিশদের মেদ থেকে বেশ খানিকটা দূরে। আবার কখনো কখনো বিস্তারেও তিনি খুঁজেছেন আত্মার মুক্তি। এসব কবিতা প্রবাসে লেখা হলেও প্রবাসী অনুষঙ্গ এতে খুব বেশি নেই। বিষয় যদিও একেবারে ব্যক্তিগত ও বিমূর্ত কিন্তু বর্ননার সময় তা হয়ে উঠছে দেশজ অনুষঙ্গের আশ্রয়ী। প্রায় বেশির ভাগ কবিতাতেই এসব অনুষঙ্গের উপস্থিতি লক্ষ্য করবেন পাঠকরা। এগুলোর সংখ্যা এতই বেশি যে তার সম্পর্কে জানা না থাকলে মনে হবে তিনি যেন বাংলাদেশে বসেই এসব কবিতা লিখেছেন।

একটা বিষয় খুবই লক্ষ্যণীয়: ছোট ছোট কবিতায় তিনি অনেক বেশি সংহত। জাপানী হাইকু স্বভাবের তিনি নিকটাত্মীয়। যেমন ‘মেক-আপ’ কবিতাটি দেখুন:

মেক আপ
এক অনাবৃত শিহরণ
হারিয়ে যাওয়া নক্ষত্রের স্মৃতির মতো
পঞ্চমী চাঁদের কুহকিনী আলোয়

অদ্ভুত ব্যাপার হলো, ‘মেক-আপ’ যদিও এক আবরণ, রংয়ে আবৃত হওয়া, কিন্তু কবি বলেছেন ঠিক তার উল্টো: ‘এক অনাবৃত শিহরণ’। আমাদের অনুভূতির গহীনে উঁকি দিলেই টের পাব যে মেক-আপের আবরণ আসলে উন্মোচন করে অন্য এক শিহরণকে, যা আত্মউন্মোচনের; নিজেকে অন্য রূপে দেখার শিহরণ। অর্থাৎ আবরণ এখানে অনাবৃত করেছে বলেই এই দেখার সুযোগটা তৈরি হয়।
‘অনুভূতি’ নামক কবিতায় তার দক্ষতা ও অভিনবতা লক্ষ্য করা যায় উপমা ব্যবহারে। যেমন
বরফের মতো ভাপ ওঠা অনুভূতি
হামাগুড়ি দিচ্ছিল মনের ভিতরে

বির্মূত বিষয়কে এই উপমার মধ্য দিয়ে এমন চমৎকারভাবে মূর্ত করে তোলার দক্ষতা সত্যিই প্রশংসনীয়।

আরেকটি কবিতায় (স্বপ্নের প্রতিবিশ্ব) ‘মতো’ জাতীয় উপমাকৌশল এড়িয়ে তিনি এক ভিন্নি ধরনের উপমা তৈরি করেছেন এভাবে ‘তাঁর ঠোটদুটো ডালিম ফুলের ঘন লাল’

এখানে ‘ডালিম ফুলের মতো ঘন লাল’ না বলে তিনি ‘মতো’ উচ্ছেদ করে সরাসরি ‘ডালিম ফুলের ঘন লাল’ বলে অনেক বেশি সাহসের পরিচয় দিয়েছেন।
কুদরত-উল ইসলাম কবি হিসাবে আমাদের কাছে পরিচিত নন কিন্তু তার কবিতাগুলো পড়লে মনে হবে তিনি কবিতার ক্ষেত্রে একজন পরিণত শিল্পী। তার কবিতাকে উপেক্ষা করলে আমরা যে নিজেদের বঞ্চিত করবো তাতে কোনো সন্দেহ নেই।
Flag Counter

(আগ্রহী পাঠকরা boidweep ডটকম থেকে বইটির ফ্রি-ইবুক নামিয়ে পড়ে ফেলতে পারবেন।)

প্রতিক্রিয়া (4) »

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন Baku Shah — মে ২৩, ২০১৫ @ ১০:১১ অপরাহ্ন

      Thanks Razu Alauddin for letting us know about an unknown poet who deserves to be known. You are right to recognise some of the poems as something close to Japanese Haiku (though the forms of the said poems are obviously looser that Haiku).

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন এম সানজীব হোসেন — মে ২৩, ২০১৫ @ ১০:২১ অপরাহ্ন

      লেখকের সাথে একবারই দেখা হয়েছিল। তখন তিনি হাসপাতালে। খুব অসুস্থ। অথচ প্রথম দেখাতেই তিনি আমার দিকে তাকিয়ে বললেনঃ “তুমি, অংকুর”। বাবার সাথে আমার চেহারার মিল দেখেই হয়তো তিনি আমাকে চিনতে পেরেছিলেন।

      রাজু ভাই লিখেছেনঃ “কুদরত-উল ইসলাম কবি হিসাবে আমাদের কাছে পরিচিত নন কিন্তু তার কবিতাগুলো পড়লে মনে হবে তিনি কবিতার ক্ষেত্রে একজন পরিণত শিল্পী। তার কবিতাকে উপেক্ষা করলে আমরা যে নিজেদের বঞ্চিত করবো তাতে কোনো সন্দেহ নেই।”

      অনেক ধন্যবাদ, আপনাকে।

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন মোস্তফা জামান নিপুণ — মে ২৮, ২০১৫ @ ৪:৩৭ পূর্বাহ্ন

      একজন শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তার কুদরত উল ইসলাম, যার মনটাও ছিল শিশু সূলভ. তার কবিতার বই প্রকাশিত হলো আজ যখন তিনি আমাদের মাঝে নেই. জীবদ্দশাতেই আমি তার সাহিত্য প্রতিভার মুন্সিয়ানা দেখেছি তার গল্পে,প্রবন্ধে, কবিতায় এবং গানে . তিনি আমাদের বাংলা সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করেছেন নানা ভাবে. তিনিই প্রথম বাংলা “জি সি এস ই” বই রচণা করেছেন বিলেতে প্রবাসী শিক্ষার্থীদের জন্য. অনেকেই হয়ত জানেন না যে তিনি একজন ভালো গীতিকার ছিলেন. তার লেখা শতাধিক গান তিমির নন্দী এবং অন্যান্য সুরকারের সুরে এবং কন্ঠে যেকোনো সাহিত্যবোদ্ধা হারিয়ে যাবে এক মোহমুগ্ধ আবহে. আমি সবাইকে অনুরোধ করব তার লেখা অসাধারণ গানগুলো শুনেদেখতে . “অন্ধ অন্ধ গন্ধলেবুর বাগানে” কবিতার বইটি হাতে পাবার অপেক্ষায় থাকলাম. ধন্যবাদ প্রকাশককে, ডাক্তার কুদরত উল ইসলাম এর অসাধারণ কাব্য প্রতিভা পাঠকদের কাছে তুলে ধরার জন্য…..মোস্তফা জামান নিপুণ, লন্ডন

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন Mostafa Tofayel — জুন ১৩, ২০১৫ @ ১২:৩৩ অপরাহ্ন

      It is noble as well as generous to address the talents that choose to lie behind the screen.Only the journalists with a mind free from pride and prejudice can throw such a close-up focus on such hidden Pablo Nerudas of our fertile soil,now living abroad for some reasons.The specimens of Qudrat Ul Islams poetry as provided here by Mr Razu have aroused my attention . I will read his poems surely.Many thanks,Mr Razu.

আর এস এস

আপনার প্রতিক্রিয়া জানান

 
প্রতিক্রিয়া লেখার সময় লক্ষ্য রাখুন:
১. ছদ্মনামে করা প্রতিক্রিয়া এবং ব্যক্তিগত পরিচয়ের সূত্রে করা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না। বিষয়সংশ্লিষ্ট প্রতিক্রিয়া জানান।
২. বাংলা লেখায় ইংরেজিতে প্রতিক্রিয়া বা রোমান হরফে লেখা বাংলা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না।
৩. পেস্ট করা বিজয়-এ লিখিত বাংলা প্রতিক্রিয়া ব্রাউজারের কারণে রোমান হরফে দেখা যেতে পারে। তাতে সমস্যা নেই।
 


Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com