মিলটন রহমানের চারটি কবিতা

মিলটন রহমান | ২৪ মার্চ ২০১৫ ৯:৫৩ অপরাহ্ন

(সিলভিয়া প্লাথকে মনে করে)

…to hold her hand
And kiss her on the mouth for she
Loved me and a brave embrace
Would avoid all penalty.
(The Dream, Sylvia Plath)

কেউ পারে না দিতে জীবনের শেষ চুম্বন
অন্তহীন অন্তেই মধ্যরেখা মিলায়ে যায়,
আত্মহননের পর দৃশ্যমান চুম্বনগুলো
উল্কাপিন্ডের মত মিশে যায় জল ও মৃত্তিকায়।
যারা দোর্দণ্ড খোয়াবী রাতে কুড়িয়েছে ওইসব তারকাখন্ড
তারাও একা একা চলে যায়
নভোমন্ডলের নিষুপ্ত জানালায় রেখে যায় পদছাপ,

মেঘের শরীরে আলোর সুঁই দিয়ে যারা নকশা এঁকেছিলো
তাও প্রাচীন গুহার মত ম্লান হয়ে গেছে
জলের খোলস থেকে উঠে গেছে চুম্বনের দাগ
একদা রোদের বারুদ ঘষে যে মাটি অঙ্গার হতো
সেখানে স্মৃতি ও শ্রাবনের জবা ফুটে আছে,

যেসব রমনীরা মঞ্জুষায় রেখেছিলো অলৌকিক যান
তারাও প্রোজ্জল লন্ঠন হাতে মিলায়ে গেছে মাঝ পথে
উষ্ণপারদে এঁকে রেখে গেছে খচিত বিশ্বাস

শতচন্দ্রবছর পরও কেউ পথ শেষ করে না
মাঝপথে চুম্বন রেখে চলে যায়
আমার মত ভিখেরি কিংবা প্রেমিকের জন্য।

সম্পর্ক

রাত ভাঙতে ইচ্ছে করে না আর
যন্ত্রীরা সব সুর খুলে ঝুলিয়ে গেছে
এমন নিকষ হৃদপিন্ড থেকে উৎসারিত মীড়
ভাঙতে গেলেই উঠে দাঁড়াবে হরিয়াল বন
পতেঙ্গায় পাথর ফাটিয়ে কারা রেখে গেছে কান্না
তার খোঁজ নিতে পরিক্রমণ করেছি সহস্র চোখ
অমৃতের বদলে বিষ পানে বেঁচে থাকে ওরা
আমৃত্যু পাঁজরে পুষে রাখে সমুদ্রের ঢেউ।
যারা বালির ওপর জাহাজের ছবি এঁকেছিলো
তারাও জোয়ারের সূত্র জানে না
শামুকের কাছে যারা স্মৃতি রেখে গেছে
তারা সমুদ্রের গভীরতা জানে না
তারা সকলেই হারিয়ে গেছে যে যার মত
কেবল আমি বসে আছি সকল সূত্র ছিন্ন করে…

উপত্যকা

চারিদিকে পড়ে আছে মৃত্যুর ছায়া
সবাই বেঁচে যেতে চায়, চলে যেতে চায় অন্য কোথাও
ভাঙা হাতগুলো আঙুল বের করে রাখে
পায়ের তালু বুকে টেনে টেনে হেঁটে যেতে চায়
দগদগে জিহ্বা বলার চেষ্টা করেও থেমে যায়
দ্বিখন্ডিত রক্তজবার মত উত্তাপহীন চোখ
প্রিয় কোনো মুখ কিংবা বিক্ষত স্বদেশ দেখে
এরা সবাই এখন কেবলি ছায়া
অনুধ্যায়ী মৃত্যুর ছায়া মাড়িয়ে গেছে তাদের সব চাওয়া
আমাদের নেত্রীদ্বয় নিপুণ শিল্পী এখন
সময়ের আঁশে আঁশে ছবি এঁকে যায়
তাদের হাতে আঁকা মৃত্যুর ছায়া পড়ে আছে সর্বদা
ওরা এতোই দক্ষ, যে কোনো মানুষই ছবি হতে পারে
এর চেয়ে আর কেমন কর্মকার তোমরা চাও?

বিস্মৃতি

আমি কি আর বইবো না ভেলা
পুকুরের যান কেটে তুলিবো না
উজানী মাছের ঢেউ…
কেবলই ভেঙে পড়ছি অচেনা উঠোনে
আমি আর বইন্যা মোরগের ঝুটি ধরিবো না
ধরিবো না ঝর্জরীর শীতল জলের মাছ
রেললাইনে পাথরে পাথর ঘষে
স্মরিবোনা আদিম ইতিহাস
আমি আধুনিক শহরের নাগরিক এখন
মোরগের বদলে হুইসেলের বাক শুনি
এখন আমি এমনি অক্ষম জীবনের বাহক
শুধু চোখের তারায় বসিয়ে রাখি
উত্তাল শৈশব…

Flag Counter

সর্বাধিক পঠিত

প্রতিক্রিয়া (1) »

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন Kamal — মার্চ ২৮, ২০১৫ @ ৩:০৪ অপরাহ্ন

      হয় নি, কিসসু হয় নি। কবিতার কোনো জাতেই পড়ে না এইসব লেখা। বেশি বেশি বই পড়ুন।

আর এস এস

আপনার প্রতিক্রিয়া জানান

 
প্রতিক্রিয়া লেখার সময় লক্ষ্য রাখুন:
১. ছদ্মনামে করা প্রতিক্রিয়া এবং ব্যক্তিগত পরিচয়ের সূত্রে করা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না। বিষয়সংশ্লিষ্ট প্রতিক্রিয়া জানান।
২. বাংলা লেখায় ইংরেজিতে প্রতিক্রিয়া বা রোমান হরফে লেখা বাংলা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না।
৩. পেস্ট করা বিজয়-এ লিখিত বাংলা প্রতিক্রিয়া ব্রাউজারের কারণে রোমান হরফে দেখা যেতে পারে। তাতে সমস্যা নেই।
 


Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com