প্রহরগুলো প্রহরে নেই

তারিক সুজাত | ২৭ আগস্ট ২০১৭ ৭:১২ পূর্বাহ্ন

Fakir২১.
ব্যক্তিগত কিছু নেই,
যা ছিলো অন্তরে
তার দাড়ি, কমা, চন্দ্রবিন্দু
আগেই উজাড় করে দিয়েছি।
রোদের বুননে লেখা
দুপুরের পাণ্ডুলিপি
পাঁচটি আঙুল তুলে
অনন্তকে ডাকে!

২২.
দুপুর কী আছো,
দুপুর তো নেই!
থাকা ও না-থাকা
আলোছায়ার এপিঠ ওপিঠ,
তোমার সম্মুখে তুমি
পেছনেও তোমার প্রতিবিম্ব হয়ে
দাঁড়িয়ে আছে
অনন্ত সকাল…

২৩.
সকাল খুলেছে
মেঘ মেঘ শুভ্র গালিচা,
মৃদু মৃদু পায়ে তুমি এসো
তোমার প্রতীক্ষায়
সারাপথ জুড়ে
ছিন্ন পালক পড়ে আছে…

দুপুরপাখি
তুমি কোন নীল খামে
ফেরার বার্তা পাঠিয়েছো,
আজ সারাদিন আকাশে আকাশে
তোমাকে পড়েছি!

২৪.
যে-কোনো নামেই যাকে ডাকা যায়,
যার অথৈ আলোর তুলি দিয়ে
ইচ্ছেমতো আঁকি
সন্ধ্যার শান্ত আকাশ,
দিনান্তে যার শুরু
প্রসন্ন প্রভাতে যার শেষ নেই…
সেই অসীমের সীমা ভেঙে
সীমাহীন সময়ের সরোবরে যার বসবাস,
প্রহরে প্রহরে তুমি বেড়ে ওঠো,
তোমার ছায়ায় বেড়ে ওঠে সকাল,
তোমার অনাদী রাত্রির ঠোঁটে
তারা হয়ে ভাসি!

২৫.
আধো অন্ধকারে, অর্ধেক আলোয়
মেঘেরও ছুটি আছে,
প্রহরে প্রহর বুনে লিখে রাখি
কালের কথামালা,
আলোর অক্ষরে আঁকি
দুপুরনামা…
মেঘে মেঘে বেলা হলো ঢের,
সকাল আজো সতেজ-সজীব বর্ণমালায়
রঙধনু নিয়ে দুপুরের প্রতীক্ষায়
একা বসে আছে;
তার কোনো ছুটি নেই,
দুপুর দুপুর তুমি
ছন্নছাড়া সকালের টানে
ছুটি ছুটি পাহাড়ের নির্জনতা ফেলে
কেনো এই জনারণ্যে ফিরে এলে?

২৬.
সকালটা যে বুঝতে চায় না
যখন তখন ডাকাডাকি,
ব্যস্ত দুপুর
রোদের ফসল বিছাচ্ছিলো উঠোনজুড়ে
কালের কুলোয়
নিত্যদিন একই দৃশ্যে
অপরূপ তার ধানের গোলা…
সোনালি দিন ভরভরন্ত
রোদের কণা উড়ছে হাওয়ায়;
দুপুর দুপুর
লাজুক কোন্ গায়ের বধূ
তোমার বিভায় মূর্ত হলো।
সকলটা যে বুঝতে চায় না
আলতো করে ছুতে গিয়ে
তীরের ফলা ছুটে গেলো!
নিজের ছোড়া তীরের ফলায়
সকলটা যে বুক পেতেছে,
বিদ্ধ হও বিদ্ধ করো
বেঁধে রাখো রোদের ঢালে!

২৭.
নিয়েছি দুহাত পেতে
এই করতলে
সুখ-টলোমলো শিশির বিন্দু!
সাঁতার কাটছি কাটছি
থৈ থৈ আলোর উজানে,
সব চাওয়া কী ডানা মেলে
উদার আকাশে…!
আমাদের তৃষ্ণার চৌচির চরাচর
একবিন্দু শিশিরের অপেক্ষায়,
একটি জীবন কেটে যায়
দুপুরের দেখা পেতে!

২৮.
সুখের সকাল
ঘুমের সকাল
এবার একটু জাগো,
দুপুরটাতো জেগেই ছিলো
ঘুমের গহ্বরে!
সকাল দুপুর
আলোর পুকুর
ডুব সাঁতারে ভাসি,
ভাসতে ভাসতে
ডুবে মরি
মহাকালের স্রোতে!

২৯.
আজন্ম আগামী,
আমৃত্যু আগামীরই পথ চেয়ে চেয়ে
আগমনী গানের সুরে সাজাই সকাল,
দুপুরের দারুণ খোলা দরোজায়
ইচ্ছে করে ঝড়ো হাওয়া হয়ে ঝাপ দেই,
যার জন্ম জন্মান্তরে গাঁথা
যৌবনের জয়গানে
প্রতিদিন এক সঙ্গে বাঁচা,
তোমার অতীত নেই
অন্তহীন আলোর রথে
আগামীর পথে
জ য় যা ত্রা…

৩০.
জীবন জীবন বলে যতবার ডাকি
প্রতিধ্বনি হয়ে
ফিরে আসে দুপুর দুপুর;
তোমার পরাজয় নেই
যুদ্ধক্ষেত্রেও তুমি একা নও;
তোমার গভীরে
ফুটন্ত লাভার স্রোত নিয়েও তুমি
প্রসন্ন প্রহরে আশার আলো ছড়িয়েছো,
ভেতরে বিদ্যুৎ নিয়েও তুমি
বজ্রাঘাতে আকাশ ভাঙোনি;
তুমি দেবী
শান্তির শীতল মেঘ
আবারও বৃষ্টি হয়ে নামো…
রণক্ষেত্র থেকে রক্তের দাগ
তোমার স্পর্শে মুছে যাবে, মুছে যাবে
জেগে উঠবে, জেগে উঠবেই
শিশুর সারল্য নিয়ে
নতুন সকাল!

৩১.
ভালো থেকো
দুপুরবন্ধু
সব প্রহরে
প্রহরগুলো
ফিরে আসুক
আপন নীড়ে!

Flag Counter

সর্বাধিক পঠিত

প্রতিক্রিয়া (1) »

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন hassan — আগস্ট ২৭, ২০১৭ @ ৪:৩৮ অপরাহ্ন

      simple and nice. excellent presentation of morning and afternoon.

      where is the first 20 ?

আর এস এস

আপনার প্রতিক্রিয়া জানান

 
প্রতিক্রিয়া লেখার সময় লক্ষ্য রাখুন:
১. ছদ্মনামে করা প্রতিক্রিয়া এবং ব্যক্তিগত পরিচয়ের সূত্রে করা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না। বিষয়সংশ্লিষ্ট প্রতিক্রিয়া জানান।
২. বাংলা লেখায় ইংরেজিতে প্রতিক্রিয়া বা রোমান হরফে লেখা বাংলা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না।
৩. পেস্ট করা বিজয়-এ লিখিত বাংলা প্রতিক্রিয়া ব্রাউজারের কারণে রোমান হরফে দেখা যেতে পারে। তাতে সমস্যা নেই।
 


Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com