পাহাড়িয়া বাড়ি

মুহম্মদ নূরুল হুদা | ১৭ জুন ২০১৭ ২:০৯ অপরাহ্ন

পাহাড়ে জন্মেছি আমি পাহাড়েই ঘর
পাহাড়ে সংসার গড়ি, পাহাড়ে কবর।
সবুজ পাহাড়ে বুনি সবুজের মন;
সবুজ অবুঝ ভাষা : বনের বচন।

পাখি-প্রাণি ঝর্ণা-ঝিরি মাচাং কাচারি
আমার রাজারবাড়ি হাজারদুয়ারি।
আদিম বনের বংশ স্বাধীন স্বভাবী;
বনে আছি বনে বাঁচি, কে বলে অভাবী?

হাজার বছর ধরে এ বাড়ি অনড়;
বাড়িতে বাঁশের বেড়া, চালে পাতা-খড়।
জোছনাপশর রাতে রোদ-ধোয়া দিনে
যুগল জুমিয়া চাষে সুখ নেই কিনে।

পাহাড়ির নেই কোনো বাড়তি চাহিদা
পাহাড়ির দেহে মনে পাহাড়ি অকিদা।
পড়শি বাঘিনী-বাঘ, সিংহ-নাদ শুনি;
আমরা ছিলাম বেশ, সুখে দিন গুণি’।

কেন তবে কালরাতে কালান্তর শুরু?
পাহাড়ের সুখী বুক কাঁপে দুরু দুরু।
আসে যন্ত্র ফুঁস-মন্ত্র যন্ত্রের দানব
খোঁড়ে মাটি গড়ে ঘাঁটি ঘটায় তাণ্ডব।

রাতে চাঁদ দিনে সূর্য, পাতা তবু ফাঁদ;
দখলকারেরা করে চতুর আবাদ।
কখনো কাটি না আমি আমার পাহাড়;
যে এসে পাহাড় কাটে ধরি তার ঘাড়।

যদিও বাড়িয়ে রাখি সম্প্রীতির হাত,
জবরদখলী এলে ভাঙি তার দাঁত।
তাই নিয়ে বাঁধে যদি কখনো লড়াই,
সম্মুখ-সমরে যাই, কভু না ডরাই।

নারীতে পুরুষে লিঙ্গে নেই ভেদাভেদ;
কর্ম-ধর্ম মূলধর্ম : সংসারের বেদ।
ছিলাম স্বাধীন আমি, এখনো স্বাধীন;
মু্ক্তবিশ্বে মুক্তশিশু নয় পরাধীন।

যে করেছে স্বাধীনতা আমার হরণ,
আমি তার যমদূত, সাক্ষাৎ মরণ।
বাঘ আর ভল্লুকের আমি জ্ঞাতিভাই;
সর্বপ্রাণবাদী আমি, ভেদবুদ্ধি নাই।

কে তুমি চতুর প্রাণী, দাও ভিন্ন পাঠ?
আমার কুঠার কাটে জীবিকার কাঠ।
করি না পাহাড় সাফ জুম চাষ ছাড়া।
হিংসার পাহাড় কাটে: কারা, ওরা কারা?

দখলীরা যে কৌশলে করেছে প্রবেশ,
সে কৌশলে ধরে তারা বন্ধুত্বের বেশ।
কাটে কাঠ, কাটে মাটি, সরায় সম্পদ;
তারাই গোখরো সাপ, তারাই আপদ;

তারাই এনেছে ডেকে পাহাড়িয়া ধস।
প্রকৃত পাহাড়ি কিন্তু প্রকৃতির বশ।
অজাচারী অপাহাড়ি লুটে যদি সব,
বানের গজবে ভাসে লুটেরার শব।

শুদ্ধচিত্ত ঘোরে নিত্য গিরি-সমতল
মুনি-গুণী গড়ে ঘর জীবনমঙ্গল।
গিরিতে হেরেছি হেরা, নির্বাণ-আশ্রম;
গিরিতে উঠেছি বেড়ে বীর-পরাক্রম।

আমি তো করি না ঘৃণা কোনো সুরাসুর,
নিজেকে সুহৃদ জানি বনের পশুর।
কেবল তাকেই আমি করি প্রত্যাঘাত,
যে আমাকে হীনস্বার্থে করেছে আঘাত।

পাহাড়ে জন্মেছি আমি, পাহাড়িয়া ঢেউ;
মানুষ আমার মিত্র, শত্রু নেই কেউ ।
প্রাণে প্রাণ যোগ করি, ঘ্রাণে করি ঘ্রাণ;
ভালোবাসা মূল মূদ্রা, মূল পরিত্রাণ।

১৫-১৭.০৬.২০১৭
Flag Counter

সর্বাধিক পঠিত

প্রতিক্রিয়া (7) »

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন আল-আমিন — জুন ১৭, ২০১৭ @ ৫:২৩ অপরাহ্ন

      কবিতাটিতে মাদকতা আছে। যার কারণে কবিতাটি বারবার পড়তে মন চায়। মন ফিরে যায় পাহাড় ঘেরা জঙ্গলে। একটা ছোট ঘর।
      খোলা জানালা। দিনের আলোতেই সেরে নেওয়া হয় রাতের খাবার। ইত্যাদি ইত্যাদি।

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন Mostafa Tofayel — জুন ১৮, ২০১৭ @ ১২:৩৫ অপরাহ্ন

      A postcolonialist poem. Animism in the story of the poem is very clear. The indigenous hillside people are human with a great deal of animist and natural amity to all. But the invaders and the colonialists come to usurp their hill and forest and Joom causing damage to their perennial lifestyle due to which “things fall apart” and “blood-dimmed tide is loosed upon.” Very recently I have once again looked at the text of poet Mohammad Nurul Huda novel, ‘Mainapahar’, the story of which is based on the sea-side and hill-side people of Chittagong and Cox’sbazaar. The indigenous life-style of the hilly people and the fishermen is portrayed in the novel. I have observed magic realism and lyricism in the text, an English translation of which could have made known the strength of the author’s talent to the world outside.

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন Farooque Chowdhury — জুন ১৯, ২০১৭ @ ১:০৪ পূর্বাহ্ন

      Mostafa Tofayel says: “Joom causing damage to their perennial lifestyle …”. Do historical facts support the claim?Should not the Joom system critically examined before making the claim quoted above?

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন Farooque Chowdhury — জুন ১৯, ২০১৭ @ ১:০৬ পূর্বাহ্ন

      Mr. Mostafa Tofayel says: “… their perennial lifestyle …” Is any lifestyle perennial? Isn’t it changing constantly?

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন Farooque Chowdhury — জুন ১৯, ২০১৭ @ ১:১৮ পূর্বাহ্ন

      খুব ভাল লেগেছে। কবিকে সালাম।

      “দখলীরা যে কৌশলে করেছে প্রবেশ,
      সে কৌশলে ধরে তারা বন্ধুত্বের বেশ।
      কাটে কাঠ, কাটে মাটি, সরায় সম্পদ;
      তারাই গোখরো সাপ, তারাই আপদ;

      তারাই এনেছে ডেকে পাহাড়িয়া ধস।”

      আমরা কি বুঝতে পারব, কবি?

    • প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন রোদেলা নীলা — জুন ২০, ২০১৭ @ ১২:২২ পূর্বাহ্ন

      পাহাড় কে কাটে তা বুঝি জানে, বুকের স্বপ্ন কে কাটে -কীভাবে কাটে তা বুঝতে পারলাম কবিতার প্রতি পংক্তিতে ।

আর এস এস

আপনার প্রতিক্রিয়া জানান

 
প্রতিক্রিয়া লেখার সময় লক্ষ্য রাখুন:
১. ছদ্মনামে করা প্রতিক্রিয়া এবং ব্যক্তিগত পরিচয়ের সূত্রে করা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না। বিষয়সংশ্লিষ্ট প্রতিক্রিয়া জানান।
২. বাংলা লেখায় ইংরেজিতে প্রতিক্রিয়া বা রোমান হরফে লেখা বাংলা প্রতিক্রিয়া গৃহীত হবে না।
৩. পেস্ট করা বিজয়-এ লিখিত বাংলা প্রতিক্রিয়া ব্রাউজারের কারণে রোমান হরফে দেখা যেতে পারে। তাতে সমস্যা নেই।
 


Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com