শামসুজ্জামান খানের ৭৫ পূর্তি-প্রকাশনা

রহীম শাহ | ১৪ মার্চ ২০১৫ ৯:০২ অপরাহ্ন

s-k.gif
শামসুজ্জামান খান সাহিত্যচর্চায় যেমন বৈচিত্র্যের স্বাক্ষর রেখেছেন তেমনি অতিবাহিত করেছেন এক বর্ণাঢ্য জীবন। বাংলাদেশে আধুনিক ফোকলোরচর্চা ও গবেষণার ক্ষেত্রে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছেন। সততা, ন্যায়নিষ্ঠা, দৃঢ় আদর্শবাদ ও জাতীয় দায়িত্ববোধ থেকে দেশের সাহিত্য-সংস্কৃতি অঙ্গন ও প্রগতিশীল সামাজিক-রাজনৈতিক অভিযাত্রায় পালন করেছেন গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা। তারা বলেন, ৭৫ বছর পেরিয়ে এখনও তিনি কর্মমুখর। সম্প্রতি প্রকাশিত শামসুজ্জামান খান ৭৫ পূর্তি সংবর্ধনাগ্রন্থ-এর আলোচনা অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন।
১৪ মার্চ ২০১৫ শনিবার বিকেল ৪:০০ বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘরের সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে এই সংবর্ধনাগ্রন্থের প্রকাশনা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। (সম্পূর্ণ…)

শিমুল সালাহ্উদ্দিনের একগুচ্ছ কবিতা

শিমুল সালাহ্উদ্দিন | ১৪ মার্চ ২০১৫ ১:৪৬ অপরাহ্ন

najib.gif
বুনোছক; অন্ধকার

কালো ঘাসের দেশ জঙ্গলে ছেয়ে আছে

আহা, গোপনে গহীন অরণ্য তুমি
এখনো কী ভালোবাসো!

আগুন স্পর্শের ভূমি
বিভোর কুয়াশা বিউগল—

অনেক কোশেশ করে পেয়েছি রাস্তার দিশা
জেনেছি, গোপনে গহীন অরণ্য তুমি
ভেতরে ভেতরে কিভাবে বড়ো করো! (সম্পূর্ণ…)

মেঘভাস্করদের তালিকা

ফকির ইলিয়াস | ১২ মার্চ ২০১৫ ৯:০৩ অপরাহ্ন

najib-1.gif

আমি কোনও আবিষ্কারক নই। পথের সন্ধান
নিয়ে কোনও আরণ্যের শোভা দেখবার কৃতিত্বও
নেই আমার। তবু প্রেমিকা হবে বলে আমার হাত
ঝাপটে ধরেছিল যে সিরামিক সন্ধ্যা—
আমি আজও তাকে মনে রেখেছি। (সম্পূর্ণ…)

অভিজিতের খুনি

আনিসুর রহমান | ১১ মার্চ ২০১৫ ১১:২৯ অপরাহ্ন

avijit.jpgএই শহরে কাজ নেই কোনো, আমি এক স্বপ্নবাজ যেন
পকেটে পান-চুরুট পুড়ে, এপথ-ওপথ ধরে সারা শহর জুড়ে
হিমুর বেশে ঘুরি, ফেরারি তদন্ত করি,
অলিগলি জনপথ ধরে, প্রাসাদের মোড় ঘুরে
তেমাথা চৌমাথা পুলিশ, নিয়ন বাতি, নেড়ি কুত্তা
কাক-পক্ষী সবাইকে, হাই হ্যালো করে
বিশ্ববিদ্যালয়-ধারে, উদ্যান ঘেঁষা পথে
পড়ে থাকা পাতাদের, জিগালাম এক এক করে
বলো তো দিন-দুপুরে, ভরা মেলায় হাজার (সম্পূর্ণ…)

নাহিদ আহসানের একগুচ্ছ কবিতা

নাহিদ আহসান | ১০ মার্চ ২০১৫ ১০:০২ পূর্বাহ্ন

কোনো এক শুভাকাঙক্ষীকে

ভুল হলে হবে
একটি জীবনই তো শুধু খোয়া যাবে
না হয় স্বপ্নই হারাবে।
না হয় নিজেই আমি হারাবো, ফুরাবো।
না হয় একটি ভালোবাসা
কাঠবাদামের খোলার মতোন ভেসে যাবে।

ভুল হলে হবে
কেন এত বাধা দাও
কেন এত সতর্কতা (সম্পূর্ণ…)

জ্যা-হীন তীর

ওমর শামস | ৮ মার্চ ২০১৫ ১:৪৩ অপরাহ্ন

avijit.jpgঅভিজিৎ রায় স্মরণ ক’রে

অন্যান্য মানুষের মতো
বাদামী ত্বকের পরে সবুজাভ শার্ট প’রে ঘুরেছে শহর,
চেঁচিয়েছে রেস্তোরাঁয়
আড্ডায় তুড়ি মেরে তর্ক ক’রে।
রাস্তায় দ্যাখা হলে ঘাড় নেড়ে বলেছে সে –
ভালো আছ ? (সম্পূর্ণ…)

গাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস:

নিঃসঙ্গতার একশ বছর

আনিসুজ্জামান | ৬ মার্চ ২০১৫ ২:০৬ পূর্বাহ্ন

border=0বিশ্বসাহিত্যের ইতিহাসে নিঃসঙ্গতার একশ বছর-এর মতো আর কোনো উপন্যাস প্রকাশের পরপরই এতটা পাঠকপ্রিয়তা পেয়েছে কিনা সন্দেহ। জনপ্রিয়তার বিচারে যেমন, তেমনি শিল্পকুশলতা আর শিল্পমুক্তির ক্ষেত্রেও এটি হয়ে উঠেছে এক অনন্য দৃষ্টান্ত। কেবল স্প্যানিশ সাহিত্যেই নয়, গোটা বিশ্বসাহিত্যের ইতিহাসেই একটি মাত্র উপন্যাসে ইতিহাস, আখ্যান, সংস্কার, কুসংস্কার, জনশ্রুতি, বাস্তব, অবাস্তব, কল্পনা, ফ্যান্টাসি, যৌন-অযাচার ও স্বপ্ন– সবকিছুর এমন স্বাভাবিক ও অবিশ্বাস্য সহাবস্থান আগে কখনও দেখা যায়নি।
ঠিক এই কারণে মারিও বার্গাস যোসা এটিকে বলেছিলেন এক সামগ্রিক উপন্যাস (Novela Total), আর পাবলো নেরুদা একে বলেছিলেন, “সের্বান্তেসের ডন কিহোতের পর স্প্যানিশ ভাষায় সম্ভবত মহত্তম উন্মোচন (“perhaps the greatest revelation in the Spanish language since Don Quixote of Cervantes.”)
বাংলাদেশে এখনও পর্যন্ত কিংবদন্তিতুল্য এই উপন্যাসটি মূলভাষা থেকে অনূদিত হয়নি। এই প্রথম এটি আনিসুজ্জামানের অনুবাদে মূল থেকে ধারাবাহিক অনূদিত হচ্ছে। বি. স.
(সম্পূর্ণ…)

কবি মুহম্মদ নূরুল হুদার সাক্ষাৎকার : “বাঙালি মূলত ইতিবাচক এবং সংগ্রামী জাতি “

মুহম্মদ নূরুল হুদা | ৪ মার্চ ২০১৫ ৯:৫৫ অপরাহ্ন

nurul.gifমুহম্মদ নূরুল হুদা বাঙালির জাতিসত্তার কবি হিসাবে বাংলা সাহিত্যে স্বীকৃত ও পরিচিত। তাঁর জীবন ও সৃষ্টি বৈচিত্র্যে ভরপুর। ১৯৪৯ সালে ৩০ সেপ্টেম্বর দক্ষিণবঙ্গের কক্সবাজার জেলার পোকখালীতে জন্ম গ্রহণ করেন। শেকড়সন্ধানী এই কবি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্যে এম. এ ডিগ্রি লাভ করেন। বাঙলা সাহিত্যে উল্লেখযোগ্য অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ১৯৮৮ সালে তাকে বাংলা একাডেমি পদক প্রদান করা হয়। ২০১৫ সালে তিনি পেয়েছেন রাষ্ট্রীয় সম্মাননা একুশে পদক। তিনি বেশ-কিছু আন্তর্জাতিক সম্মানেও ভূষিত। কিছুদিন আগে কবি মুহম্মদ নূরুল হুদার এই দীর্ঘ সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন জব্বার আল নঈম। বি. স

জব্বার আল নাঈম : আপনি একজন শেকড়সন্ধানী কবি, বাঙালির নৃতত্ত্বকে অবলম্বন করে ইতিহাস ও পুরাণাশ্রিত দ্রাবিড় জনগোষ্ঠীর আত্মপরিচয় বাংলা সাহিত্যে তুলে ধরেছেন। এই জায়গাটি নিয়ে এর পূর্বে কেউ কাজ করেনি। প্রান্তিক পর্যায়কে তুলে ধরার পেছনে কারো উৎসাহ বা প্রেরণা বা অন্য কোনো কারণ ছিল কি?
মুহম্মদ নূরুল হুদা : অনুপ্রেরণা ছাড়া সচরাচর কেউ লেখে বলে আমার মনে হয় না। আমার ধারণা, আলোকিত বোধের প্রাণিত অভিব্যক্তিই কবিতা। এটাই হচ্ছে কবিতা সম্পর্কে আমার সর্বশেষ বিবেচনা। আলোকিত বোধের সম্প্রসারণ মূলত কবিতার দিকে যায়। আবার প্রবন্ধের দিকেও যায়। আমি এখন বার বার বলি, আলোকিত বোধটার পরিপূর্ণ সচেতন প্রকাশ হলো কবিতা। আর সচেতন প্রকাশের জন্য ছন্দ, উপমা, উৎপ্রেক্ষা বা চিত্রকল্প ইত্যাকার আলঙ্কারিক কৌশল অর্জনের স্বার্থে যথাসাধ্য অধীত জ্ঞান প্রয়োজন। অনুপ্রেরণার ভূমিকাও কম নয়। সেটা ভেতর থেকে আসুক কিংবা বাহির থেকে আসুক, অনেক বড় একটা কাজ করে। অনেকেই মনে করেন, রোমান্টিক কবিরা মনে হয় বেশি অনুপ্রাণিত। আমি এ বিষয়ে সম্পূর্ণ একমত নই। যারা সচেতন কবি তারাও কোনো-না-কোনোভাবে অনুপ্রাণিত। তাদের অনুপ্রাণিত হওয়ার অবশ্য একটা দিক আছে। তুমি যেটা বললে, এই যে বাঙালি জাতিসত্তা– অনার্য, দ্রাবিড় ইত্যাদি নিয়ে কেন লিখতে গেলাম? শোনো, আমি ষাট-এর মাঝামাঝি সময়ে লিখতে শুরু করেছি, মোটামুটি সচেতনভাবেই। আবার এর আগে যে লিখিনি, এমনটাও নয়। আমার প্রথম কবিতার বই ‘শোণিতে সমুদ্রপাত’। আমার প্রথম পর্যায়ের বিস্তর খসড়া কবিতা বাদ দিয়েই বইটা প্রকাশ করেছি। অনেক খসড়ায় সচেতন অভিব্যক্তির প্রকাশ ছিল না। ওগুলো সচেতন নির্মাণও নয়। আমি যে সময় থেকে লিখছি সে সময় বাঙালি জাতীয়তাবাদ এবং বাঙালির জাতিসত্তাভিত্তিক চেতনা খুব দ্রুতগতিতে স্ফূরিত হচ্ছিল। এই বিষয়টি তখন বাঙালির মন-মানসিকতাকে সাংঘাতিকভাবে নাড়া দিচ্ছিল। (সম্পূর্ণ…)

গাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস: হুয়ান রুল্ফো প্রসঙ্গে নাতিদীর্ঘ নস্টালজিয়া

যুবায়ের মাহবুব | ৪ মার্চ ২০১৫ ১২:১৭ পূর্বাহ্ন

মেক্সিকোর লেখক হুয়ান রূল্ফোকে নিয়ে মার্কেস এই লেখাটি লিখেছিলেন ১৯৮০ সালে। রূল্ফোর সাহিত্যকর্ম মার্কেসকে কিভাবে উদ্বুদ্ধ করেছিল তার কথা জানিয়েছেন তিনি এই লেখাটিতে। মার্কেস এটি পরে একটি অনুষ্ঠানে পাঠ করেছিলেন ২০০৩ সালের সেপ্টেম্বরে। পরের মাসে এটি তার প্রতিষ্ঠিত অধুনা বিলুপ্ত Cambio সাহিত্যসাময়িকীতে প্রকাশিত হয়। আর্টস বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমের পাঠকদের জন্য স্প্যানিশ থেকে দুষ্প্রাপ্য এই লেখাটি অনুবাদ করেছেন যুবায়ের মাহবুব। বি.স.
border=0
ফ্রানত্স কাফকার লেখা আবিষ্কারের মত হুয়ান রুল্ফো আবিষ্কারের দিনটিও নিঃসন্দেহে আমার স্মৃতির একটি গুরুত্বপূর্ণ অধ্যায় হয়ে থাকবে। আমি যেদিন মেক্সিকোতে এসে পৌঁছাই, সেই একই দিন অর্থাৎ ১৯৬১ সালে ২রা জুলাই আর্নেস্ট হেমিংওয়ে গুলি করে আত্মহত্যা করেন। রুল্ফোর বই পড়া তো দূরের কথা, তার নাম পর্যন্ত আমি তখনও শুনিনি। বিরল ব্যাপার ছিল বটে। কারণ প্রথমত, দুই আমেরিকার সমসাময়িক সাহিত্য বিষয়ে আমি নিজেকে বেশ ওয়াকিফহাল রাখতাম সেই সময়ে, আধুনিক উপন্যাসের বেলায় তো অবশ্যই। দ্বিতীয়ত, মেক্সিকোয় পৌঁছে আমি যাদের সাথে যোগাযোগ করি, তারা সকলেই রুল্ফোকে খুব ভালো করে চিনতেন। এক দল ছিলেন লেখক, কাজ করতেন চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিচালক মানুয়েল বার্বাচানো পোন্সে’র সাথে, কর্দোবা সড়কের উপর তার ড্রাকুলা দুর্গসম আস্তানায়। আরেক দল ছিলেন সম্পাদক, ফের্নান্দো বেনিতেসের তত্ত্বাবধানে কাজ করতেন ‘নোভেদাদেস’ পত্রিকার সাহিত্য সাময়িকীতে। সকলেরই পরিচিত, কিন্তু মহৎ লেখকদের বেলায় সাধারণত যা ঘটে থাকে, রুল্ফোর বেলায় ঘটেছিল তার বিপরীত। লেখক হিসেবে তো অবশ্যই বহুলপঠিত নন, আবার তাকে ঘিরে আলাপ-আলোচনাও হতো কালে-ভদ্রে। (সম্পূর্ণ…)

অমর একুশে গ্রন্থমেলার আরও কিছু বই

চিন্তামন তুষার | ২ মার্চ ২০১৫ ৯:২৬ অপরাহ্ন

cover-1.jpgদেখতে দেখতে পার হয়ে গেল ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি। এরই সঙ্গে শেষ হয়েছে অমর একুশে গ্রন্থমেলা, ২০১৫ সালের আসর। বইপ্রেমী ও তাদের যোগানদাতাদের সমাবেশ এ বছরের মতো শেষ হওয়ার পথে আরও কিছু নতুন বই এসেছিল মেলায়। কৌতূহলী পাঠকদের জন্য একনজরে সেসব বইয়ের সংক্ষিপ্ত পরিচিত এখানে দেয়া হলো। বি.স.

বইয়ের নাম: রমেন্দ্রনাথ ঘোষ দার্শনিক প্রবন্ধাবলি
সম্পাদনা: হাসান আজিজুল হক, মহেন্দ্রনাথ অধিকারী
বইয়ের ধরণ/বিষয়: দর্শন/মুক্তচিন্তা
প্রকাশক: ইত্যাদি
প্রচ্ছদ: ধ্রুব এষ
মূল্য: ৫২৫
দেশের প্রকৃত বিদ্বান ও মনীষীর এই দূর্ভিক্ষের সময় প্রায় অপরিচিত মনীষী রমেন্দ্রনাথ ঘোষের রচনাসংগ্রহ প্রকাশ অত্যন্ত জরুরী কাজ বলে মনে হয়েছে সম্পাদকদ্বয়ের। রমেনের বহুমাত্রিক চিন্তা, প্রাগ্রসর ‍দৃষ্টিভঙ্গি, দেশ-সমাজ-রাষ্ট্র-রাজনীতি বিষয়ে তাঁর ব্যাপক ভাবনা, চিন্তা, সমস্যা শনাক্তকরণ ইত্যাদি সবই যে তাঁর চিন্তাবিশ্বের কেন্দ্রে ছিল–এ সত্যটি এমনকি সম্পাদকদ্বয়ের কাছেও এতটা স্পষ্ট ছিল না। রচনাগুলোর বিষয়, শিরোনাম, উৎকর্ষ, অনুৎকর্ষ ইত্যাদি সবই মানোত্তীর্ণ এবং সর্বসাধারণের সামনে প্রকাশের দাবি রাখে। এ দায় এড়াতে না পেরেই গ্রন্থটির অবতারণা। (সম্পূর্ণ…)

Poet for the World: The Universality of Kazi Nazrul Islam.

মারিয়া এলেনা বাররেরা-আগারওয়াল | ১ মার্চ ২০১৫ ৮:১৯ অপরাহ্ন

nazrul-pic.gifWhen I was preparing for this talk, my first intention was to create a lecture structured traditionally, infused with abundant quotations taken from the choicest scholarly sources available. A few weeks into my work, I was proofreading the text when I realized that most of these sources – almost every one of them, in fact – were taken from highly respected, highly acclaimed, commonly quoted European and American authors and academicians. (সম্পূর্ণ…)

« আগের পাতা |

Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com