ফজলুল কবিরীর তিনটি কবিতা

ফজলুল কবিরী | ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ ১:৪৫ অপরাহ্ন

নিসর্গ ও প্রার্থনার কবিতা

সবুজ নিসর্গ ছুঁয়ে ছুটে চলি জোছনার খোঁজে
দেখি একটি লাজুক লতার উজ্জ্বল দেহে
বনের গভীর শীতলতা মুখ বুজে
চাপ চাপ আঁধারের রঙ মাখিয়ে নিচ্ছে নির্মোহে (সম্পূর্ণ…)

ঘুম অধিকার

আইরিন সুলতানা | ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ ৫:৩৯ অপরাহ্ন

ঘুমন্তকে ডেকে তোলা নিতান্তই অভদ্রতা।
আমার ভীষণ ঘুম পাচ্ছে।
কেমন অদ্ভুত এক নিশ্চিন্তবোধ আমাকে অলস করে তুলছে;
আমাকে দিয়ে এখন আর কোন অপরাধ ঘটানো সম্ভব নয়,
সম্ভব নয় কোন অমানবিক আচরণ;
ঘুমতাড়িত আমি এতটাই নপুংশক-অকৃতকার্য-অনুত্তীর্ণ
এক অস্থিচর্মসার এখন। (সম্পূর্ণ…)

জলচিকিৎসা

হাবীবুল্লাহ সিরাজী | ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ ১০:২০ অপরাহ্ন

সূর্য ডুবলো কী মরণ-কামড় দিলো। হাত-পা খিল ধরে আসে, জিহ্বা সরে না, কণ্ঠ চড়ে না — আর, বুকের মধ্যে তেপান্তরের মাঠ। শিশু গোল্লা চোখে তাকিয়ে থাকে, বালিকা পাশ কাটিয়ে যায়, তরুণেরা শত হাত দূরে অবস্থান নেয় ; কেবলমাত্র জানালার পাশের লেবু গাছটি বলে : আয়, আমার কাছে আয়। কাছে যাই। পাতায় গন্ধ মেলে না, বুক চিতিয়ে থাকে সবুজ কাঁটা ; আকাশ তখন ধূসর কী নীল — নীল কী কালোর মধ্যে হামাগুড়ি দিচ্ছে। ভেতরে বাগড়া দিচ্ছে দু’চারটে তারা, যেন সর্বহারা। পশ্চিম কী পুব, কৃষ্ণ কী শুক্ল সব একরকম ; যেন গরম ভাত আর ঠাণ্ডা তরকারি মিলে নৈশভোজের পালাভিনয়। প্রয়োজন ছিলো না, তবু একটি লেবুপাতা ছিঁড়ে বলি : সকালে তুই গন্ধ হোস। (সম্পূর্ণ…)

প্রমিতা ভৌমিকের কবিতাগুচ্ছ

প্রমিতা ভৌমিক | ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ ৮:৩৫ অপরাহ্ন

শরাবি স্বপ্নের শেষে

শরাবি স্বপ্নের শেষে
অলীক, চোখ ভার হয়েছে তোমার;
আর সেই দারুণ নোনা গন্ধে
তুমি খুলে দিচ্ছো বুকের বোতাম-

জিভের ভেতরে আজ জোঁক খেলা করে
স্বচ্ছ শোণিত-স্রোতে পরিচিত যতি

অসময়ে প্রেমে পড়ে
ভাবছো– ‘কি বেহায়া যুবতী’। (সম্পূর্ণ…)

কামরুল হাসানের তিনটি কবিতা

কামরুল হাসান | ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ ১১:৩৩ পূর্বাহ্ন

সৌন্দর্যবিষয়ক
হুমায়ূন আহমেদকে

আপনি এখানে নির্মাণ করে দিন তো সুন্দর!

নিশির ডাকে ঘর ছেড়ে বেরিয়ে পড়েছে অস্থির যুবতীরা,
জ্যোৎস্নার ঢেউয়ে কাঁপে বাতিঘর, নিসর্গ, বসতি
দয়ার্দ্র শিশির ঠোঁটে রাত্রি ঘষে মাঠের চিবুক
স্থুল শব্দ ভুলে খুনসুটি তুলে নিল ক’জোড়া প্রেমিক। (সম্পূর্ণ…)

এ বসন্তে তোমাকেই পিট সিগার

আমানুল্লাহ কবীর | ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ ৪:৪৬ অপরাহ্ন

রক্তপ্লাবিত মাটিতে একদিন ফুটেছিলো ফুল
বিপ্লবের আগুন বুকে স্বপ্ন ছিলো বাগানেরঃ
বাহারি শত ফুল ফুটবে দুর্বিনীত আকাঙক্ষায়
দিগন্তজুড়ে রূপের দেমাগ, বাতাস ভরে সৌরভ।
গিটারের তারে তারে সজোরে করাঘাত করে
পিট সিগার ঝংকার তুলেছিলেন তারুণ্যের হৃদয়েঃ
ফুলগুলো কোথায় হারিয়ে গেলো? (সম্পূর্ণ…)

অনঙ্গ রূপের দেশে

সোহেল হাসান গালিব | ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ ১১:৪১ অপরাহ্ন

ডাকসিদ্ধ ডাকাতের জীবন আমি পাবো না!
এ কোন মন্ত্র আমায় ছুঁলো?
যে কপাল ক্ষিপ্র কাপালিকের, যে তন্ত্র তামসিক—
কে দিল গোপনে তাকে
বোবা ডাকপিয়নের তিয়াসাদুপুর
গেরুয়া হৃদয়খানি—ব্যাগভরা নিঝুম ঠিকানা! (সম্পূর্ণ…)

কবি দিলওয়ার: কবিতার অনন্য ব্যক্তিত্ব

ফরিদ আহমদ দুলাল | ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ ১০:১৩ অপরাহ্ন

শিল্প-সাহিত্যের যে কোনো অঙ্গনে স্বাতন্ত্র্যমণ্ডিত হয়ে ওঠার জন্য কারো মিডিয়ার সহযোগিতার প্রয়োজন পড়ে না, কিন্তু উল্লেখযোগ্য এবং খ্যাতিমান হয়ে ওঠার জন্য কোনো না কোনোভাবে মিডিয়ার আলোয় আলোকিত হতে হয় শিল্পীকে। বর্তমান এই মিডিয়াশাসিত সময়ে মিডিয়াকে অগ্রাহ্য করার তো প্রশ্নই ওঠে না। পথের ধারে অনামী ফুলের সৌন্দর্য্য কখনো কখনো আমাদের চমকিত করে বটে, কিন্তু তা ব্যক্তির বাইরে ব্যাপ্ত হতে পারে না; সবার অলক্ষে মেঠো পথের পাশে আড়ার সবুজে ছায়ার নিভৃতিতে একদিন অযত্নে-অবহেলায় হারিয়ে যায়। যতক্ষণ না একজন রবীন্দ্রনাথ-জীবনানন্দ অথবা একজন সত্যজিতের সৃষ্টিশীলতার স্পর্শে তা শিল্প হয়ে ওঠে। আলোকোজ্জ্বল বর্ণিল নগরের চোখ ধাঁধানো আলো যতই দৃষ্টিনন্দন হোক, নিভৃত পল্লীর মেঠো পথের পাশে ফুটে থাকা অজস্র বন-টগরের কাছে তা যে কতটা ম্লান তা জানার সুযোগ আমাদের সবার সব সময় হয়ে ওঠে না। (সম্পূর্ণ…)

জীবনানন্দের ‘রূপসী বাংলা’: শাশ্বত বাংলার স্বপ্নরূপ

সৈয়দা আইরিন জামান | ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ ১২:১৫ পূর্বাহ্ন

জীবনানন্দের বাংলা- রূপসী বাংলা, শাশ্বত বাংলার স্বপ্নরূপ। জীবনানন্দ ত্রিকালদর্শী কবি। তিনি মনে মনে তার প্রিয় ভূমিকে অখণ্ড ভারতবর্ষ থেকে আলাদা করে নিয়ে ‘রূপসী বাংলা’ নামকরণ করেছেন এবং রূপসী বাংলা কাব্যগ্রন্থ উৎসর্গ করেছেন আবহমান বাংলা ও বাঙালিকে। রূপসী বাংলা গ্রন্থাকারে প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯৫৭ সালের আগস্ট মাসে সিগনেট প্রেস থেকে, যদিও রূপসী বাংলার কবিতাসমূহ রচিত হয়েছিল বনলতা সেন কাব্যগন্থের কবিতাগুলি রচনার পূর্বে। এতে সর্বমোট ৬১ টি সনেট স্থান পেয়েছিল। কাব্যগন্থটি প্রকাশকালে কবিভ্রাতা অশোকনন্দ দাশ লিখেছেন, ‘পঁচিশ বছর আগে খুব পাশাপাশি সময়ের মধ্যে একটি বিশেষ ভাবাবেগে আক্রান্ত হয়ে কবিতাগুলি রচিত হয়েছিল। মাইকেল মধুসূদন দত্ত যেমন ফ্রান্সের ভার্সাই নগরীতে তার জীবনের পীড়িত দিনগুলিতে চতুর্দশপদী কবিতাবলী লিখেছিলেন, জীবনানন্দ তার জীবনের বিবাহ-পরবর্তি বেকার সময়ে রূপসী বাংলার কবিতাগুচ্ছ রচনা করেছিলেন। (সম্পূর্ণ…)

অপরাহ্ণ সুসমিতোর দুটি অনুগল্প

অপরাহ্ণ সুসমিতো | ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ ৬:১২ অপরাহ্ন

বাওয়ালী

প্রথম চুরি করি শ্যামনগরে আমার ছোটো ফুপুর বাড়ি । ফুপুদের বাড়ি মা আমাকে হরিণের মাংস দিয়ে পাঠালে সে রাতে ফুপুর বাড়ি চুরি করি । বেশি কিছু না, ফুপার ঘড়ি আর তার কুর্তার পকেটে থেকে শ’তিনেক টাকার মতো ।
চুরির আনন্দটা যৌবন জ্বালার মতো টকটক করে বাড়তে থাকে । ভয়, লোভ, নিষিদ্ধ এই শিহরণে আমার দিনরাত কাটে । তার উপর বাবাকে বাঘে খেয়ে ফেললে আমাদের সংসারে অভাব গল্কি নৌকার মতো দুলে দুলে বাড়তে থাকে । (সম্পূর্ণ…)

ইউসুফ ইদ্রিসের গল্প: এক কামরার ঘর

রেশমী নন্দী | ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ ৬:৫৭ অপরাহ্ন

ইউসুফ ইদ্রিস (জন্ম:১৯২৭, মৃত্যু:১৯৯১) আরবী ভাষার সমসাময়িক লেখকদের মধ্যে অন্যতম একজন। মিশরীয় এই ছোট গল্পকার ও নাট্যকার পেশাগত জীবনে একজন চিকিৎসক ছিলেন। কট্টর বামপন্থী এই লেখক তাঁর রাজনৈতিক আদর্শের কারণে জেলও খেটেছেন। তাঁর লেখায় সমন্বয় ঘটেছে প্রচলিত আখ্যানরুপের সঙ্গে চলিত কথনের, ফুটে উঠেছে সাধারণ গ্রাম্য জীবনের বাস্তবতা। অনুদিত ‘A House of Flesh ‘ গল্পটি প্রথম প্রকাশিত হয় ১৯৭১ সালের এক গল্প সংকলনে। মোনা মিখাইলের ইংরেজী অনুবাদ অনুসরণে লেখাটি বাংলায় তর্জমা করেছেন রেশমী নন্দী। বি. স. (সম্পূর্ণ…)

ফজল শাহাবুদ্দীন, কবি

শান্তা মারিয়া | ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৪ ১১:৩৮ অপরাহ্ন

ফজল ভাইয়ের সঙ্গে আমার তৃতীয় দেখার গল্প দিয়ে শুরু করি। ২০০২ সালের ঘটনা। কবি আবিদ আজাদের পঞ্চাশতম জন্মদিন পালন করার জন্য সে সময় আমরা ক’জন কোমর বেঁধে লেগেছি। বাংলাদেশের প্রখ্যাত সব লেখকের কাছে হন্যে হয়ে ঘুরছি লেখা বা শুভেচ্ছাবাণীর জন্য। সে সময় বন্ধু শাকিল রিয়াজ বললেন, “ফজল ভাইয়ের কাছে যেতে হবে।’” ফজল শাহাবুদ্দীন এ দেশের অন্যতম সেরা কবি আর শাকিলের বিশেষ ঘনিষ্ট। মোহাম্মদপুরে আবিদ আজাদের বাড়ি থেকে সোজা চলে গেলাম খিলগাঁওয়ে ফজল ভাইয়ের বাড়িতে।
তখন সন্ধ্যা ছটা। ভাবলাম তিনি মুখে মুখে যা বলবেন তা লিখে নিয়ে বেরিয়ে আসব। কতক্ষণ আর লাগবে। বড়জোর ঘন্টা খানেক। ফজল ভাইয়ের সঙ্গে দেখা হল। (সম্পূর্ণ…)

পরের পাতা »

Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com