টোকন ঠাকুরের গুচ্ছ কবিতা

টোকন ঠাকুর | ২৮ জুন ২০১২ ৮:৩২ অপরাহ্ন

সব কবিতার শিরোনাম লাগে না

রোদ তুই ছন্দ জানিস? মাত্রা মানিস?
সামান্য ফাঁক-ফুটো পেলেই ঢুকে পড়িস?

রোদ তোর আসার পথে দেখা হয়েছে কার কার সঙ্গে, বল?
মেঘরা ছিল কোন বৃত্তে, কথা হয়নি আমাকে নিয়ে?

পরিপার্শ্বের হাওয়া, কার কাছে তুই অক্ষরবৃত্ত শিখে হয়েছিস হিম?
কোন ছন্দে পাতা ঝরে? বলদ এবং বাঙলা বিভাগের
বিরাট অধ্যাপকের মধ্যে যবে এত অনুপ্রাস তবে এত মিল?

গান তুই হাওড়ের মাঠে শুয়েছিলি শীতকালে
তোর উস্তাদ কোন কুলাঙ্গার খাঁ?
ধান তুই আমার শব্দে বোনা ফসল
মহাজন সাহিত্য সম্পাদক? (সম্পূর্ণ…)

অবশিষ্ট গীতিগুচ্ছ

মাসুদ খান | ২৪ জুন ২০১২ ১০:০৫ অপরাহ্ন

১০.
তীর ছোঁড়া হয়ে গেলে একবার
ফেরানো কি যায় কখনো তা আর?

ছাড়া-পাওয়া তীর ছোটে নিশানায়
গতিমুখ তার ঘোরানো না যায়
তারপর থেকে কোনো কিছু আর
থাকবে না ঠিক মতো আগেকার।

তীর ছোঁড়া হয়ে গেলে একবার
ফেরানো কি যায় কখনো তা আর?

বুমেরাং তবু ফিরে চলে আসে,
শিকার না পেলে, শিকারীর কাছে
তীরের তো আর নাই প্রতিকার
একরোখা তার গতি দুর্বার।

তীর ছোঁড়া হয়ে গেলে একবার
ফেরানো কি যায় কখনো তা আর? (সম্পূর্ণ…)

সরকার আমিনের কবিতা

সরকার আমিন | ২১ জুন ২০১২ ৮:৫০ অপরাহ্ন

বারুদ ভিজে গেলে

ভিজে গেলে বারুদ, যেকোনো জেনারেল মনে মনে কাঁদে।
আমি কাঁদি তুমি নিরুদ্দেশ হলে, পাখি;

যুদ্ধের মাঠে আমি সন্নাসী এক; বন্দুকে বেঁধে রাখি সন্ধির রাখি।

গর্ভবতী

মাঝে মাঝে পাথরকেও ঘামতে দেখি, অজানা জ্বরে!
নক্ষত্রকে দেখি একটু বেশি কাত হয়ে আছে

অস্ট্রেলিয়াগামী মেঘ, কি হবে গর্ভবতী থেকে, এখানেই তবে বর্ষিত হও। (সম্পূর্ণ…)

নজরুল-বিদ্রোহের স্বরূপ ও ‘বিদ্রোহী’ কবিতা

মুহম্মদ নূরুল হুদা | ১৯ জুন ২০১২ ৮:৩৭ অপরাহ্ন

বাংলাদেশের জাতীয কবি ও সর্বমানবিক মুক্তির প্রবক্তা কাজী নজরুল ইসলামের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য কবিতা ‘বিদ্রোহী’। ১৯২১ সালের ডিসেম্বর মাসের শেষ সপ্তাহে এই কবিতাটি রচিত হযেছিলো। কবিতাটি রচনার ৯০-বছর পূর্তি উপলক্ষে বাংলাদেশ ও ভারত যৌথ উদ্যোগে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নজরুল-কেন্দ্রিক আলোচনা, পাঠ, আবৃত্তি, সঙ্গীত ও নৃত্যানুষ্ঠান ইত্যাদির আযোজন করে। আমরা এখানে এই অবিস্মরণীয় কবিতাটির উপর বাংলাদেশের বিশিষ্ট কবি ও নজরুল-বিশেষজ্ঞ মুহম্মদ নূরুল হুদা-র একটি পাঠ-সমীক্ষণমূলক রচনা প্রকাশ করলাম। (সম্পূর্ণ…)

আবৃত ঈশ্বর

সৈয়দ তারিক | ১৬ জুন ২০১২ ১১:০৩ অপরাহ্ন

১.
এটা আমি নই, এটা সৈয়দ তারিক
আমি শুধু চেয়ে চেয়ে দেখি;
সে হাঁটে নগরে আর নগরের অনেক আড়ালে
আমি তার বয়ে যাওয়া দেখি।

সৈয়দ তারিক এটা নয়
শূন্যতা ধরেছে আকার;
আমি তার হয়ে ওঠা দেখি
নিভে যাওয়া দেখি আমি তার।

০৪.০১.১১ (সম্পূর্ণ…)

কার্লোস ফুয়েন্তেসকে ঘিরে একটি চকিত স্মৃতি

লিন্টন উইক্‌স্‌ | ১৪ জুন ২০১২ ৩:০৬ অপরাহ্ন

গত ১৫ মে চলে গেলেন মেহিকোর আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ঔপন্যাসিক গল্পকার ও প্রাবন্ধিক কার্লোস ফুয়েন্তেস। পৃথিবীর নানান ভাষী লেখক, সমালোচক ও গুনগ্রাহী পাঠক এই অসামান্য লেখকের মৃত্যুতে প্রকাশ করেছেন শোক, স্মৃতিচারণ করেছেন তার ব্যক্তিত্ব ও উপস্থিতির।
মার্কিন লেখক ও সাংবাদিক লিন্টন উইকসের এই লেখাটি গত ১৬ মে NPR পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। লেখাটি অনুবাদ করেছেন প্রাবন্ধিক ও অনুবাদক এহসানুল কবির

fuentes.gifমেহিকোর সাহিত্যিক কিংবদন্তি কার্লোস ফুয়েন্তেস গত মঙ্গলবারে ৮৩ বছর বয়সে মারা গেছেন শুনে বহু বছর আগে আমার নেওয়া তাঁর একটি সুদীর্ঘ, সাবলীল সাক্ষাৎকারের কথা মনে পড়ে গেল । আমরা অনেক কিছু নিয়ে কথা বলেছিলাম—নিজের কবরের প্রস্তরফলকে এপিটাফ হিসাবে তিনি কী চান, তা নিয়েও। (সম্পূর্ণ…)

নদী নেই, বৃক্ষ নেই তবু প্রেম আছে

মণীশ রায় | ১৩ জুন ২০১২ ১০:৪৬ অপরাহ্ন

কোনো ভণিতা না করে শফিক সরাসরি বলে ফেলল,‘ তাহলে কিন্তু আমি আসছি।’
এতটাই সহজ ও সাবলীল শোনাল ওর নিজের কন্ঠস্বর যে, সঙ্গে সঙ্গে মনে হল সে একটা খেলার পুরো ম্যাচের ফাইনাল জিতে নিয়েছে। মনে মনে নিজের পিঠে নিজেই চাপড় দিয়ে বলতে লাগল,‘ গুড , ভেরি গুড। ওয়েল ডান। ’
‘আপনাকে আসতে কে বারণ করেছে? আপনি একজন স্বাধীন দেশের মুক্ত পুরুষ। যেখানে খুশি সেখানে যেতে পারেন , তাই না?’ যুঁৎসই উত্তর দেয়াকে কখনো খুঁজতে হয় না। চমকে দেবার মতো বিশাল উত্তরের ভান্ডার ওর মগজের হার্ড ডিস্কে জমা রয়েছে। সেখান থেকেই সে একটি ছুঁড়ে দেয় শফিককে।
‘আমি তো আপনাকে দেখতে চাই।’ ফের কোনো ভণিতার আশ্রয় না নিয়ে নিজেকে সরাসরি প্রকাশ করল সে।
‘তাহলে তো আমার দেয়া শর্ত মানতে হবে। মেনেছেন?’ চাঁছাছোলা প্রশ্ন দেয়ার। (সম্পূর্ণ…)

এক মেহমান দুই মেজবান

শিবব্রত বর্মন | ১০ জুন ২০১২ ৬:২৯ অপরাহ্ন

বাল্যে আমাদের মফস্বল শহরের সিনেমা হলে একটি সিনেমা দেখতে গিয়েছিলাম। ছবির নাম ’এতিম’। তখনকার দিনের সুপারহিট ছবি। মনে পড়ে, সিমেনার কাহিনী পুরোপুরি জমে ওঠার আগেই আমার সহদর্শক মামি-মাসীরা আঁচলে চোখ মুছছিলেন। ছবির প্লট আমার হৃদয় গলাতে পারেনি। কেননা, আমার মন তখন পড়ে ছিল রেললাইনের অপর পাড়ে আরেকটি সিনেমা হলে, যেখানে একটি ফাইটিং ছবি চলছিল| ওই সিনেমা হলের সামনে একটি সফেদ ঘোটকে আসীন চিত্রনায়ক ওয়াসীমের উদ্যত তরবারি| তার দৃষ্টিকাড়া হোর্ডিংয়ের তলা দিয়ে আমরা পরিপূর্ণ সামাজিক ছবি ’এতিম’ দেখতে এসেছি; আমার পীড়াপীড়িকে গুরুজনেরা পাত্তা দেননি। (সম্পূর্ণ…)

দূরে দূরান্তরে পেরুর প্রান্তরে

দীপেন ভট্টাচার্য | ৪ জুন ২০১২ ৮:২১ অপরাহ্ন

peru-1.gifএপ্রিল মাস। এখানকার বর্ষা শেষ হতে চলেছে। তবুও এই বনে, তাম্বোপাতার বর্ষার বনে, বৃষ্টিটাই স্বাভাবিক। ঘন বনে ঢাকা আছে হাজার হাজার বর্গ কিলোমিটার, তার মধ্যে বহমান বিশাল সব নদী, পেরুর পূর্বে, আন্দিজ পর্বতমালার পূর্ব দিকের ঢালু থেকে বৃষ্টি ও তুষারের জল চলেছে আতলান্তিকের দিকে। আমরা যে নদীর পাড়ে আছি তার নাম মাদ্রে দে দিওস, ঈশ্বরের মাতা। তার স্রোতধারা চলেছে পূর্ব দিকে বলিভিয়ায়, তারপর নানা নদী ধরে সেই ধারা মিশেছে ব্রাজিলে আমাজন নদীর সাথে। (সম্পূর্ণ…)


Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com