অক্তাবিও পাসের সাক্ষাৎকার: বৌদ্ধধর্ম আমাকে দারুণভাবে অনুপ্রাণিত করেছে

সামিন সাবাবা | ৩১ মার্চ ২০১২ ১২:০৬ পূর্বাহ্ন

সাক্ষাৎকার নিয়েছেন: আলফ্রেড ম্যাকাডেম

৩১শে মার্চ মেহিকোর মহান কবি ও প্রাবন্ধিক অক্তাবিও পাসের ৯৮তম জন্মবার্ষিকী। ১৯৯০ সালে তিনি সাহিত্যে অসামান্য অবদানের জন্য নোবেল পুরষ্কার অর্জন করেন। দু দফায় তিনি ভারতে আসেন। দ্বিতীয় দফায় তিনি ভারতে মেহিকোর রাষ্ট্রদূত হিসেবে কাজ করেছেন ছয় বছরের মত। ১৯৯৮ সালে তিনি মৃত্যু বরণ করেন। অনূদিত এই সাক্ষাৎকারটি ১৯৯০ সালে গৃহীত হয়েছিলো প্যারিস রিভিউ পত্রিকার পক্ষ থেকে। পাসের ৯৮তম জন্মবার্ষিকীতে এই দীর্ঘ সাক্ষাৎকারের নির্বাচিত কিছু অংশ এখানে প্রকাশ করা হলো। সাক্ষাৎকারটি ইংরেজি থেকে অনুবাদ করেছেন সামিন সাবাবা–বি.স.

octaviopaz.jpg
………
অক্তাবিও পাস
………

প্রশ্ন: অক্তাবিও, সম্ভবত আপনার মনে আছে, আপনি জন্মেছিলেন ১৯১৪ সালে….
অক্তাবিও: খুব ভাল মনে নেই।

প্রশ্নঃ : মেহিকান বিপ্লবের ঠিক মাঝামাঝি এবং প্রথম বিশ্বযুদ্ধ শুরুর দিকে। বলা যেতে পারে একটা যুদ্ধ জর্জরিত শতাব্দির মধ্য দিয়ে আপনি জীবন পার করেছেন। বিংশ শতাব্দি নিয়ে আপনার ভালো কিছু বলার আছে কি ? (সম্পূর্ণ…)

বইমেলার উল্লেখযোগ্য কিছু বই

| ২৯ মার্চ ২০১২ ৯:১৪ অপরাহ্ন

এবারের বইমেলায় মোট ৩ হাজার ৬৬৯টি বই প্রকাশিত হয়েছে। এর মধ্যে গল্প ৩৯৫টি, উপন্যাস ৫৪৬টি, প্রবন্ধ ২৬১টি, কবিতা ৮০৩টি, গবেষণা ১১০টি, ছড়া ১৫৮টি, শিশুসাহিত্য ১৬৪টি, জীবনী ও স্মৃতিচারণ ১১৮টি, রচনাবলী ৮টি, ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধ ৯৬টি, নাটক ৩৩টি, গণিত ও বিজ্ঞান ৭১টি, ভ্রমণ ৬৫টি, ইতিহাসবিষয়ক ৫১টি, রাজনীতি বিষয়ক ২৮টি, চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যবিষয়ক ৪০টি, কম্পিউটারবিষয়ক ৯টি, রম্য ও ধাঁধা ১১৭টি, ধর্মীয় ২৬টি, অনুবাদ ৫৯টি, অভিধান ৩টি, সায়েন্সফিকশন ৩৮টি অন্যান্য ৪৬৮টি। বিপুল সংখ্যক বই থেকে মাত্র অল্প কিছু উল্লেখযোগ্য বই পরিচিতিসহ এই নিবন্ধে তুলে ধরা হলো। নিবন্ধটি তৈরি করেছেন বিডিনউজটোয়ান্টিফোরডটকমের প্রতিবেদক মামুনুর রশীদ মামুনআশিক হোসেন (সম্পূর্ণ…)

তিনটি স্বপ্নকাব্য

তাপস গায়েন | ২২ মার্চ ২০১২ ১০:৩২ অপরাহ্ন

কালের খেয়ায় স্বপ্নময় শরীর

atish-1.jpgমন যখন পরমাত্মায় বিধৃত, এই শরীর তখন স্বপ্ন হইয়া ওঠে ; স্বপ্নময় শরীর প্রবহমান, এবং যাহা প্রবহমান তাহাই নির্দেশ করে কাল, ত্বরান্বিত করে সময়, এবং আকৃতি দেয় প্রপঞ্চময় এই জগতের । আর স্বপ্নময় এই শরীর যে অলৌকিক যানে বাহিত, প্রবাহিত, এবং অনুরণিত তাহাই ক্রমান্বয়ে কালের খেয়া হইয়া ওঠে। শরীর, খেয়া, এবং প্রবাহ- এই তিন পৃথক অস্তিত্বে বর্তমান থাকিয়াও পরমাত্মার ক্ষণকালের স্বপ্নে কখন যেন এক এবং অচ্ছেদ্য হইয়া ওঠে । এই অচ্ছেদ্য সত্তা এক স্বপ্ন, হয়তো নির্দেশ করে সেই নদী, যাহা তিব্বতে সাংপো, ভারতে ব্রহ্মপুত্র, আর বাংলায় যমুনা হইয়া সৃজনকর্তার অন্তহীন রূপময়তার তিনটি গতিশীল প্রবাহরূপে বহুকাল ধরিয়া বহিয়া চলিয়াছে । সেই পরমাত্মারই বালুবিন্দুকালের স্বপ্ন, যাহাকে আমরা-পাঠকরা, অজানা ইতিহাসের অতিপ্রসারিত কাল এবং অনাবিষ্কৃত ভূগোলের অতিদীর্ঘ পথ বলিয়া জানিয়া লইব, এবং ভাবিব – এই পথ নিরন্তর ধাবমান যাহা অনন্তের পানে ছুটিয়া চলিয়াছে । অন্যদিকে মহাযান বৌদ্ধধর্ম, যাহা অতীশ দীপঙ্কর শ্রীজ্ঞানের দেহনৌকায় সহস্র বছর আগে বঙ্গ হইতে ভারত হইয়া তিব্বতে চলিয়া গিয়া তিব্বতের মানুষদের নৈতিক পুনর্জন্ম দান করিয়াছিল, সেই মহাযান স্বপ্নময়-শরীর হইয়া পৃথিবী পরিভ্রমণের পরে আবার বঙ্গে যে ফিরিয়া আসিতেছে, তাহার গতিপথ আমরা আমাদের এই স্বপ্নময় শরীরে জানিয়া লইবার প্রয়াস করিব । (সম্পূর্ণ…)

হাইপেশিয়া: এক বিস্মৃতপ্রায় গনিতজ্ঞ নারীর বেদনাঘন উপাখ্যান

অভিজিৎ রায় | ২০ মার্চ ২০১২ ৯:০৪ অপরাহ্ন

hypatia-a.gifরবীন্দ্রনাথ ঠাকুর সভ্যতা সৃষ্টির পেছনে নারীর ভুমিকা প্রায় অস্বীকার করেছিলেন। তিনি বলেন ১ :
‘সাহিত্য কলায় বিজ্ঞানে দর্শনে ধর্মে বিধি ব্যবস্থায় মিলিয়ে আমরা যাকে সভ্যতা বলি সে হল পুরুষের সৃষ্টি’।
আবার ভলটেয়ার নারীর মননশীলতা, শক্তিমত্তা আর বুদ্ধিবৃত্তিকে স্বীকার করে নিলেও প্রবলভাবেই অস্বীকার করেন নারীর উদ্ভাবনী শক্তিকে। তিনি দাবী করেন ২:
‘ইতিহাসে জ্ঞানবতী নারী খুঁজলেই পাওয়া যাবে, এমনকি পাওয়া যবে নারী-যোদ্ধার অস্তিত্বও, কিন্তু কোথাও নারী উদ্ভাবক পাওয়া যাবে না’

বলতেই হয় – রবি ঠাকুর এবং ভলতেয়ার দুজনই ছিলেন ভ্রান্ত, অন্ততঃ ইতিহাস পর্যালোচনার এই ব্যাপারটিতে। ইতিহাস খুঁজলে নারী উদ্ভাবক তো পাওয়া যায়ই, পাওয়া যায় বিজ্ঞান আর প্রকৌশলবিদ্যায় নিবেদিতপ্রাণ অজস্র মহীয়সী নারীর অস্তিত্ব, যারা আমাদের সভ্যতার বিনির্মানে শুধু সহায়তাই করেননি, নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন বৈজ্ঞানিক সংস্কৃতির পুরোধা ব্যক্তিত্ব হিসেবে। এমনি এক বিস্মৃত-প্রায় বিদুষী বিজ্ঞানী এবং গনিতজ্ঞ ছিলেন হাইপেশিয়া (Hypatia) – জিওর্দানো ব্রুনোর ৩, ২১ মতই বিজ্ঞানের বেদীমূলে আত্মোৎসর্গীকৃত এক প্রাচীন দার্শনিক। (সম্পূর্ণ…)

বাংলা ভাষার জন্য কোন হুমকি আছে কি?

মাহবুব আলম | ১ মার্চ ২০১২ ১০:২০ অপরাহ্ন

writers.jpg প্রথম পর্ব

বাংলাদেশের বর্তমান সময়ের তরুণ ও প্রবীণ সাহিত্যিকরা বাংলা ভাষার কথ্য ও মান রূপ নিয়ে কী ভাবছেন তা জানতে চেয়ে দুটি প্রশ্ন করা হয়েছিলো। তাদের অভিমতগুলোর শ্রুতিলিখন করেছেন মাহবুব আলম। তাদের কাছে প্রশ্ন করা হয়েছিলো:

১. বাংলা ভাষা চর্চায় যে মিশ্রণ পরিলক্ষিত হচ্ছে সে সম্পর্কে আপনার অভিমত ও ব্যাখ্যা জানতে চাই।

২. বাংলা ভাষার জন্য কোন হুমকি আছে বলে মনে করেন কিনা? থাকলে তা রক্ষায় কী ভূমিকা নেয়া যেতে পারে। (সম্পূর্ণ…)


Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com