লিংক

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে আর্টস-এ প্রকাশিত কিছু লেখা

| ১৪ december ২০১০ ৮:১১ অপরাহ্ন

[২০০৭ সালে শুরু থেকে আর্টস্-এ বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ে বেশ কিছু লেখা প্রকাশিত হয়েছে। সেগুলো থেকে বাছাই করা কিছু লেখার লিংক একসাথে এখানে দেয়া হলো।-বি.স.]

ইতিহাসের দায় ও সাহিত্যের অভিপ্রায়
মফিদুল হক | ২৭ মার্চ ২০১০

carrying-woman.jpg দেশভাগের বাস্তবতা বাংলায় বয়ে এনেছিল বিশাল এক অবাঙালি জনগোষ্ঠীকে যারা নিজেদের ভিটেমাটি থেকে উচ্ছেদ হয়ে আশ্রয় নিয়েছিলেন ‘মুসলমানের আবাসভূমি’-তে। তারা বয়ে এনেছিলেন ভিন্ন ভাষা ভিন্ন সংস্কৃতি এবং বাংলা তো সবসময়ে ভিন্নতাকে আলিঙ্গন করেছে, মিলনে মিশ্রণে বাঙালি সংস্কৃতি পেয়েছে নতুন প্রাণময়তা। কিন্তু পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর ছিল কুটিল জটিল চিন্তা ও দৃষ্টিভঙ্গি।
পুরোটা পড়ুন

ধর্ষিত বাংলাদেশ: মানবেতিহাসের কৃষ্ণতম অধ্যায়/আহমেদ মাখদুম
অনুবাদ: মফিদুল হক | ২২ ডিসেম্বর ২০০৯

আমি যখন গোপন অবস্থান থেকে বের হয়ে আসি ততদিনে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়ে গেছে। আমার বাঙালি বন্ধুরা আমাকে সাহায্য করে, আশ্রয় ও আহার যোগায়, যত্ন-আত্তি নেয় এবং ভালোবাসা, প্রীতি ও করুণায় সিক্ত করে। তাঁরা আমার সিঙ্গাপুর যাওয়ার বিমান-ভাড়ার ব্যবস্থা করে দেয়, যেখানে আমি নতুন জীবন শুরু করি, উন্মোচিত হয় জীবনের আরেক অধ্যায়, আমার মাতৃভূমি আমার পিতৃভূমি সিন্ধু থেকে বহু বহু যোজন দূরে।
পুরোটা পড়ুন

স্মৃতি: ষোলই-ডিসেম্বর ঊনিশ শ’ একাত্তর
রবিউল হুসাইন | ১৬ ডিসেম্বর ২০০৯

mukti_lady.jpg হঠাৎ এক মুক্তিযোদ্ধা বন্ধু আমার পোশাকের দিকে তাকিয়ে বেশ কড়া সুরে বলে উঠলো, খুব আরামেই ছিলে। আমরা যুদ্ধ করে মরি আর তোমরা দেখা যাচ্ছে কোট-টাই পরে বেশ আরাম-আয়েশেই ছিলে। তারপর দুহাতে বুকে জড়িয়ে ধরে হুঁ হুঁ করে কেঁদে উঠলো, ভাঙা গলায় আবার বলে উঠলো, আমরা সত্যিই কি স্বাধীনতা পেলাম আমরা কি সত্যিই স্বাধীন হলাম, না কি স্বপ্ন দেখছি।

পুরোটা পড়ুন

সাংস্কৃতিক মানচিত্রে মিরপুর
মফিদুল হক | ৭ মে ২০০৯

কনসেনট্রেশন ক্যাম্পে হাজারো মানুষকে হত্যা করার প্রায় এক ইণ্ডাস্ট্রিয়াল মেথড, মানুষের নিষ্ঠুরতা ও পাশবিকতার অতলস্পর্শী পতন। তবুও বিজয়ের আনন্দ ও মাহাত্ম্য তা কোনোভাবে খর্ব করতে পারে না, কেননা সেই বিজয় ছিল ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে গণতন্ত্রের, দানবের বিরুদ্ধে মানবের। কিন্তু বাংলাদেশের বিজয়ের সঙ্গে বেদনার যে মিশেল তার নিকট তুলনা খুঁজে পাওয়া ভার।

পুরোটা পড়ুন

মুক্তিযুদ্ধের চলচ্চিত্র
আহমাদ মাযহার| ২৭ মার্চ ২০০৯

যুদ্ধশেষে বিপুল উৎসাহ উদ্দীপনা নিয়ে যে চলচ্চিত্র কর্মীরা মাঠে নেমেছিলেন তার পরিচয় মেলে ঢাকায় নির্মিত চলচ্চিত্রের সংখ্যা থেকেই। ১৯৬৯ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ছিল ৩৩টি, ১৯৭০ সালে সেটা বেড়ে হয়েছিল ৪১টি, যুদ্ধের আগে মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ছাড়া ১৯৭১-এ আর কোনও ছবি নির্মাণ সম্ভব ছিল না। কিন্তু যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশে যুদ্ধের আগের নির্মীয়মান ছবিসহ ৭২ সালেই ২৯টি ছবির মুক্তি পাওয়ার মধ্যে নিশ্চয়ই উদ্দীপিত চলচ্চিত্র-সমাজেরই পরিচয় পাওয়া যায়।
পুরোটা পড়ুন

মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি: ছত্রপুর, ময়মনসিংহ
শামসুজ্জামান খান| ২৬ মার্চ ২০০৯

bangladesh-mukti-bahini.jpg আমাদের মিটিং যখন শেষ হয়েছে ঢাকায় তখন শিয়াল-কুকুরের মতোই মানুষ মারার সব আয়োজন সম্পন্ন করছে হানাদার পাকিস্তানি বাহিনী। এবং গভীর রাতে শুরু হয়েছে ইতিহাসের সেই নিষ্ঠুরতম অভিযান। ২৬ শে মার্চ ছিলো সাপ্তাহিক ছুটির দিন। কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে আবাসিক এলাকার আমরা তখন যে যার মতো ঘরে বসে আয়েস করছি বা কোনো কাজ। কেউ কেউ বাজার করতে গেছেন শহরে। আগের রাতে ঢাকায় কী ঘটে গেছে তার কিছুই জানি না তখনো। এমনি সময় খবর এলো উপাচার্য কাজী ফজলুর রহিম তক্ষুনি সকল শিক্ষক, কর্মচারীকে বিশ্ববিদ্যালয়ের অতিথিশালার সামনে সমবেত হতে অনুরোধ জানিয়েছেন।

পুরোটা পড়ুন

সংযোজন: রৌরববাস, ২৫ মার্চ ১৯৭১
মীর ওয়ালীউজ্জামান | ২৫ মার্চ ২০০৯

wali-2.jpg জীবনে প্রথম চলন্ত ট্যাঙ্কের ধাক্কায় ব্যারিকেড গুঁড়িয়ে যেতে দেখলাম। সাঁজোয়া গাড়িগুলো রাস্তার অল্প আলোয় কালচে দানবের মতো নিউমার্কেটমুখো গড়িয়ে গেল। ভেরিলাইট পিস্তল থেকে ছোঁড়া আলোকসম্পাতী লাল-নীল-সবুজ-হলুদ আলোর মালাগুলো এলিফ্যান্ট রোড-নিউমার্কেট-পিলখানা এলাকা দিনের মতো উদ্ভাসিত করে তুলছে। পাকিরা ওপর দিকেও ফাঁকা গুলি ছুঁড়ছে অবিশ্রাম, বোধকরি ঢাকাবাসীকে ব্যাপকভাবে আতঙ্কিত করা ওদের লক্ষ্য।
পুরোটা পড়ুন

পদ্মাপারের কড়চা
মীর ওয়ালীউজ্জামান | ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০০৮

যাবি কিভাবে? খালা চিন্তিত মুখে বলেন, এখানে থানা অফিসাররা সবাই সাইকেলে ট্যুর করে। আর পেতে পার ঘোড়ার গাড়ি। বাহ্, তাহলে তো বেশ হয়, পান্নুভাই জেগে উঠে জায়গা মতো তার মতামত দেন। এখান থেকে নাড়–য়ার পথে প্রথমে পড়বে আউয়াল ভাইয়ের ডাক্তারখানা, নিরুখালা আবার চিন্তামগ্ন হন, কিন্তু তাকে তো সব সময় বালিয়াকান্দিতে পাবে না। সাতদিন এখানে তো পরের সপ্তাহে রাজবাড়ি–এই তার রুটিন।
পুরোটা পড়ুন

শিমূলের বিজয়োৎসব
মীর ওয়ালীউজ্জামান | ৩১ জানুয়ারি ২০০৮

ওরা চারজনে পথে নামে আবার। ছোট্ট মহকুমা শহর। ছোট ছোট টিনের বাড়ি। সিলেট অঞ্চলে সেসময় অধিকাংশ বাড়িঘর ঐ বাংলো মতোই তৈরি করা হত। বড় বাংলোগুলোর বয়স বহু দশক পেরিয়েছে। টেকসইও বটে। এসডিও’র অফিস-বাসা পার হয়ে ওরা মুন্সেফ ইফতেখার রসুলের বাড়ির সামনে পৌঁছে গেল। সন্ধ্যে ঘনিয়েছে। ইফতি সাহেব একা থাকেন। পরিবার ঢাকায়। শিমূল লম্বা পা ফেলে, বাগানের ফুলগাছে হাত ছুঁইয়ে, বারান্দায় উঠে কড়া নাড়ল, মুন্সেফ সাহেব কি আছেন বাড়িতে?
পুরোটা পড়ুন
(সম্পূর্ণ…)

আবদুল মান্নান সৈয়দ-এর আর্টস-এ প্রকাশিত লেখা

| ৬ সেপ্টেম্বর ২০১০ ১১:৪৭ পূর্বাহ্ন

abdul-mannan-syed.jpg
কবি আবদুল মান্নান সৈয়দ (১৯৪৩-২০১০)

কবি আবদুল মান্নান সৈয়দ ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১০ রবিবার মৃত্যুবরণ করেছেন। তিনি আর্টস-এর নিয়মিত লিখেছেন। আর্টস-এ প্রকাশিত তাঁর লেখাসমূহের শিরোনাম ও লিংক এখানে একসাথে দেয়া হলো।

আর্টস-এ প্রকাশিত লেখা

সেরগেই এসেনিন বলছে (কবিতা)

সোনালি চট্টোপাধ্যায় (জার্নাল)

নজরুলের কবিতা: ভাবনা-বেদনা

নজরুলের গজলগান

বুদ্ধদেব বসু: জন্মশতবার্ষিক শ্রদ্ধার্ঘ্য

নজরুল:রবীন্দ্রনাথ ও জীবনানন্দের পারস্পরিকতায়

শ্রদ্ধাঞ্জলি: অগ্রযাত্রিক কথাশিল্পী আবু রুশ্‌দের স্মৃতি

(সম্পূর্ণ…)

আর্টস-এর দু বছর

কিছু বাছাই লেখা

| ১৮ অক্টোবর ২০০৯ ৮:৩৩ অপরাহ্ন

bdarts2.jpg

[আর্টস-এর প্রকাশনা শুরু হয় ২০০৭ সালের ১৮ অক্টোবর। সে অনুসারে আজ ১৮ অক্টোবর ২০০৯-এ আর্টস-এর ২ বছর পূর্ণ হলো। এই ২৪ মাসে আর্টস-এ যে সব লেখা প্রকাশিত হয়েছে তা থেকে ৩০টি রচনার লিংক এখানে সন্নিবেশ হলো। প্রায় দৈবচয়ন পদ্ধতিতে এ বাছাই। কেউ পুরনো কোনো লেখায় হয়তো আগ্রহী হয়ে উঠবেন এমন আশায়ই এ উপস্থাপন। বি. স.]

রচনার পটভূমি
‘রামপ্রসাদের কাছে ক্ষমা প্রার্থনাপূর্বক’ কবিতা রচনার পটভূমি
নির্মলেন্দু গুণ । ১৮ অক্টোবর ২০০৭
ngoon.jpg[…] রামপ্রসাদের গান আমাদের এলাকায় খুব প্রচলিত ছিলো। আমার বাবাও রামপ্রসাদের গান গাইতেন।… জগা সাধুর আশ্রমে রামপ্রসাদের গান শুনতে শুনতে হঠাৎ একদিন আমার মনে হলো, এই লোকসুরে আমি যদি কিছু গান লিখি, তো মন্দ হয় না। সাহিত্যের খুব উপকার না হলেও তাতে আমার অন্তর শান্ত হবে। তখন আমি রামপ্রসাদী সুরে কয়েকটি গান লিখি। শুধু রামপ্রসাদী সুরে নয়, রবীন্দ্রসঙ্গীতের সুরেও তখন আমি কিছু গান বেঁধেছিলাম। […]

সাক্ষাৎকার
ফয়েজ আহ্‌মদের সঙ্গে আলাপ
ব্রাত্য রাইসু । ১৮ অক্টোবর ২০০৭
fayez-a.jpg[…] ওরা ঢাকায় আইসা যখন ফুর্তি করে আর গুলশানে বড় দোকানে খায় যখন পোলাপাইনে তখন কৃষকরা ওইখানে মঙ্গায় মারা যায়। এই হইল খবরটা। এখন আমি কইলাম, লোকগুলি কী রকম তোমাদের দেশের যে তারা এই প্রতিরোধ আর করে না। আজকা পঞ্চাশ বছর যাবৎ এই-ই শুনতেছি-মঙ্গা! মঙ্গা! এই ছেলে। ছেলে চটপটে ছেলে, ওইজন্যই জিগ্যেস করছিলাম। তো কয় যে আমাদের দেশে অনেকগুলি ভাগ আছে। এই জমি যেমন আমাদের একটাও না। আমি থাকি চরের ছাপড়ায়। ধান বানবো-টানবো, দিয়া আসবো, কিছু পাবো। খাইয়া-টাইয়া নয় মাস চলে। আর তিন মাস চলে না। […]

আল মাহমুদ ও জয় গোস্বামীর সঙ্গে আলাপ
ব্রাত্য রাইসু | ১৫ নভেম্বর ২০০৭
joy-al.jpg[…] মাহমুদ : আর আমার কাছে সবচেয়ে আকর্ষণীয় বিষয় হলো নারী। এবং এটা অকপটে বলা উচিত।/জয় : এবং সেটা সৌন্দর্য। আপনার কাছে নারী মানে সৌন্দর্য।/রাইসু : মাহমুদ ভাই কি স্বীকার করেন কিনা যে নারী মানেই সৌন্দর্য?/মাহমুদ : না, নারী মানে সৌন্দর্য এটা আমি বলি না। কিন্তু নারী আকর্ষণ করে।/
জয় : না, আমি বলছি কবিতায় এই যে নারীর উদ্দীপনা আপনার মধ্যে যা তৈরি করে তা দিয়ে যে কবিতাটা লেখেন সেটা একটা সৌন্দর্যের উপাসনা।/রাইসু : আল মাহমুদ কী বলতে চাচ্ছেন, সাবজেক্ট হিসাবে নারী না উদ্দীপনার জন্যে নারী? মাহমুদ ভাই কোনটা বলছেন?/মাহমুদ : দুইটাই মিলে মিশে থাকে অবশ্য। […]


সাক্ষাৎকারে সরদার ফজলুল করিম
বিষয়: অধ্যাপক আবদুর রাজ্জাক

মোহাম্মদ আলী | ১ ফেব্রুয়ারি ২০০৯
sarder-mali.jpg[…] তিনি অকৃতদার ছিলেন। খুব ভালো রান্না করতে পারতেন। পারতেন ভালো দাবা খেলতে। সব সময় পড়াশোনা নিয়ে ব্যস্ত থাকতেন। অন্যদের পড়ার জন্য নিজের লাইব্রেরি থেকে বই বের করে দিতেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ভালো শিক্ষক সংগ্রহ করা ছিল তাঁর কাজের অন্যতম অংশ। আবার তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল, তিনি পড়াতেন না। “রাজ্জাক স্যারের কল্লা চাই” বলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মিছিলও হয়েছে। আবার তিনি এই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জাতীয় অধ্যাপকও হয়েছিলেন। […]

প্রত্নতত্ত্ব
যে কারণে প্রত্নসম্পদ বিদেশ পাঠানোয় বিরোধিতা
শামসুজ্জামান খান । ৪ ফেব্রুয়ারি ২০০৮
pratna.jpg[…] বাংলাদেশের প্রত্নসম্পদ সুরক্ষার জন্য মিশরের মতো প্রত্নসম্পদ সুরক্ষা ও তদসংক্রান্ত যাবতীয় কর্মকাণ্ড পরিচালনার জন্য একটি সর্বোচ্চ পরিষদ বা জাতীয় কমিশন গঠন করতে হবে। এ সংস্থা হবে স্বশাসিত ও সরকারী নিয়ন্ত্রণমুক্ত। এই সংস্থার প্রথম কাজ হবে একটি নতুন প্রত্নসম্পদ সুরক্ষা নীতিমালা এবং ১৯৬৮ সালের আইনের দুর্বলতা দূর করে একটি নতুন আইন প্রনয়ন করে পার্লামেন্টে পাশ করানো। […]

স্মৃতি
শিক্ষক হুমায়ুন আজাদ, যখন আমি তাঁর ছাত্র
চঞ্চল আশরাফ । ২৫ অক্টোবর ২০০৭
humayun-a.jpg[…] বাংলা বিভাগের করিডোরে দাঁড়িয়ে সিগারেট টানছিলাম। হুমায়ুন আজাদকে আসতে দেখে আমি সিগারেটটা ফেলে জুতা দিয়ে চেপে রাখলাম। উনি কাছে এসে জিগ্যেস করলেন, ‘তুমি কি বাংলা বিভাগের ছাত্র?’ বললাম, ‘হ্যাঁ’। ‘সবাই জ্বি বলে, তোমার কি হ্যাঁ বলার অভ্যাস? ভালো। কিন্তু সিগারেট ফেলে দিলে কেন?’ আমি চুপ। উনি বললেন, ‘নিশ্চয়ই বাবার টাকায় খাও। কিন্তু সিগারেট খাওয়ার সঙ্গে শ্রদ্ধার কোনও সম্পর্ক নেই, যেমন নেই পান খাওয়ার সঙ্গে। বুঝেছ?’ বলেই হাঁটা, ডিপার্টমেন্ট অফিসের দিকে। […]

বিচিত্র
সালভাদর দালি: গোঁফ দিয়ে কথা বলা
সুমন রহমান | ১ নভেম্বর ২০০৭
dali.jpg[…] সালভাদর দালি। চিত্রশিল্পী এবং সেলিব্রিটি। কেউ বলেন, আগে সেলিব্রিটি এবং পরে চিত্রশিল্পী! মজার বিষয় হল, দ্বিতীয় মতাবলম্বী যারা তাদের পুরোভাগে দালি স্বয়ং। তিনি একদিন কথাচ্ছলে বলছিলেন, ‘সামারে অনেক আমেরিকান ট্যুরিস্ট আমায় দেখতে আসে। তারা কি আমার ছবি দেখতে আসে? মোটেও না! তাদের সবার আগ্রহ আমার গোঁফের ব্যাপারে। মহৎ চিত্রকলার দরকার নাই পাবলিকের, দরকার খালি একটা জম্পেশ গোঁফ।’ […] (সম্পূর্ণ…)


Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com