কবিতা

সবকিছু খালাস হয়ে গেল না

আনিসুর রহমান | ২৭ মে ২০১৭ ১০:৪৫ পূর্বাহ্ন

nazrul-1চলো বদলে যাই বলেই তো সবকিছু খালাস হয়ে গেল না . . .
চলো বদলে দেই বললেই তো পকেটমারকে চুমুটুমু দেব না!
কে পারে আকাশকে সাাগর্ ছুড়ে? আর সমুদ্রকে উপরে পাহাড়ে
ঠেলতে পারে? যদি পারে তবে তা প্রলয়, সকলি সর্বনাশের ধারে !

যে হাত গুরুর পায়ের ধুলি নিয়েছে, সে হাত কবে কোন বেয়াদব …
গুরুর গালে মেখেছে? কে সে টিটকারি মেরেছে আর জোরে জোরে
বলেছে, ‘অতি ভক্তি চোরের লক্ষণ’! বলি, ‘গুরু ভক্তি বীরের লক্ষণ’
লেঠেলকে দিও না মোনাজাতের ভার,একাল পরকাল সকলি অন্ধকার!

কি সব বোবাকাণ্ড চারিদিকে কানাগলি, ইমামের হাতে ইয়াবার থলি!
আলোর মশাল বিলানো মানুষটি কে, শীতলক্ষার পারে বদ্ধ কারাগারে?
একই দিনে কবি এক কাজী নজরুল ইসলামের জন্মদিনে শতবর্ষ পরে
কি উদযাপনে জাতি; কে জন্ম পরিচয় ভুলে, সকল কুষ্ঠি ছিকেয় তুলে? (সম্পূর্ণ…)

টি এম আহমেদ কায়সারের তিনটি কবিতা

টি এম আহমেদ কায়সার | ২৭ মে ২০১৭ ১০:০৭ পূর্বাহ্ন

ঘুমবিক্রেতা​​
উত্তর গোলার্ধে এক ঘুমবিক্রেতা খায় দায় ঘুমায় আর
রাত্রি গভীর হলেই বায়ুতে মিশিয়ে দেয় নাইট্রাস অক্সাইড

ছোপ ছোপ রক্ত ভুলে, দহন ভুলে, যামিনীর মর্মপীড়া ভুলে
শুধু হাসতে হাসতে, হাসতে হাসতে,
চোখে জল-আসা হাসিতে গড়িয়ে পড়তে পড়তে
আর একরত্তিও ঘূমাতে পারি না!

ও ঘুমবিক্রেতা, একটু একটু মৃত্যুও মিশিয়ে দিও মাঝে মাঝে!
তাতে ঘুমের বিক্রি যেমন বাড়বে
তুমিও থাকবে ধরাছোঁয়ার একেবারেই অগোচরে! (সম্পূর্ণ…)

তারিক সুজাতের কবিতা: কালের ক্যাসিনো

তারিক সুজাত | ২০ মে ২০১৭ ৯:১১ অপরাহ্ন

Fakir
এইভাবে পথ খুঁড়ে খুঁড়ে
খুলেছি দুপুর
অন্ধকার গহীন-গহ্বরে
আলো ফেলে ফেলে
খুলে দিচ্ছি
সুর ও শব্দের ছিটকিনি!
কার ছায়া বন্ধ দরোজায়
টোকা দিয়ে
ফিরে গিয়েছিলো?

আজন্ম বধির বিটোফেন
সুরের আকাশে ছুড়ে দিয়েছিলো
আলোর ফোয়ারা,
দানিয়ূব তীরে মোজার্ট-মুর্ছনা নিয়ে
ভিয়েনার রাত
আজো কী অর্কেস্ট্রায় জাগে?
শকুন্তলার অপেক্ষা শেষে
দুষ্মন্ত ফেরার আগে
গ্যাটের কলমে
ফিরে আসে
প্রাচ্য-প্রতীচ্যের অফুরান
প্রেমের জোয়ার; (সম্পূর্ণ…)

অজাচারী শিশ্নধারীর প্রতি

মুহম্মদ নূরুল হুদা | ১৫ মে ২০১৭ ৭:১৪ পূর্বাহ্ন

rape-scene
পিতৃ-উৎস উগরে দিলে
বাড়লি মাতৃ-গর্ভে তুই,
সেই উৎস উদোম করে
যাচ্ছিস কোন স্বর্গ-ভুঁই?

লজ্জাশরম নাই যদি তোর
যা চলে যা জঙ্গলে,
লালাভেজা জিহ্বা মেলে
বুনো কুত্তার দঙ্গলে।

শিশ্নকলার ধুমধাড়াক্কা
এতোই যদি মজার খেল্,
ভেজে খা সেই কাঁচকলাটা
দিয়ে গরম সর্ষে তেল।

মাকে ভুলে বোনকে ভুলে
ভুলে গেলি পরিচয়?
অজাচারী শিশ্নধারী
পুরুষ নামের যোগ্য নয়। (সম্পূর্ণ…)

আমার দুটি বোন

আনিসুর রহমান | ১৪ মে ২০১৭ ৬:০৫ অপরাহ্ন

sistersআমার দুটি বোন, কোলাহল করে তারা, উঠান মাথায় তুলে,
উঠোন তো নয়, ভাবখানা যে, বিশ্বকাপের মাঠে আছে,
আহা উচ্ছাসের আর বাকি কি গো বিশ্বকাপটা জিতল বলে!

একটু ওরা বড় হলে, বিশ্বকাপের মাঠ ফেলে, ধুলো কাদার পথে –
ওরা দুরন্ত সব আলো ফেলে, খিল খিল করে কত কি গেল বলে;
মাস্টার মশাই গল্পের ঝাপি খুলে, বোন দুটি কল্পনার পাখা মেলে !

হাঁটাপথের ধারে, পাখি আর ফুল যেন বোন দুটির সই হয়ে গেল,
গাছের পাতারা কান পেতেছিল, দুর্বার বাতাস খবর পেয়ে গেল;
পাঠশালার পরে, চারিদিক রটে গেল এ পথে তবে পরী এসেছিল?

একদিন বোন দুটি ঠিক স্বপ্ন জয় করে, দুনিয়া হাতের মঠোয় করে,
পাঠশালা পাশ করে, দিন-মাস-বছর পরে, গ্রামের মেঠোপথ ছেড়ে –
ফুল আর পাখির স্মৃতি বুকে ধারণ করে, নগরে সরস্বতীর তালাশ করে ! (সম্পূর্ণ…)

ফিরোজ এহতেশামের একগুচ্ছ কবিতা

ফিরোজ এহতেশাম | ১১ মে ২০১৭ ৭:০২ অপরাহ্ন

আর কোনো সংশয় নাই

Mohammed Kibriaআর কোনো সংশয় নাই
চারিদিকে নীল জলরাশি
তোমার যতটা রোশনাই
তত বুকে বেজে ওঠে বাঁশি

সুন্দর স্তনের মতো ফুলে
ফেঁপে উঠে আসে ঢেউগুলো
তোমার স্মৃতিতে উঠি দুলে
কালো চোখ আর কালো চুলও

আমাকে ঝাপটা মারে এসে
কোন ঢেউ কে বলতে পারে!
তুমি কি এখন মৃদু হেসে
দাঁড়িয়েছ খাদের কিনারে?

পাথরে নুড়িতে ঠোকাঠুকি
বালুর ওপরে কিছু লেখা
তাইতে তোমার দিকে ঝুঁকি
ডাঙা ও পানির ভেদরেখা (সম্পূর্ণ…)

আলোর ক্যানভাসে জলছবি আঁকি

ফারহানা রহমান | ৬ মে ২০১৭ ৬:১৩ অপরাহ্ন

Monirul Islam১.
পেঁয়াজের খোসার পরতে পরতে অপেক্ষার জলবায়ু জমে থাকে। আমি আলোর ক্যানভাসে স্বপ্নছবি আঁকবো বলেই একটি অবলুপ্ত গল্পে নিজেকে জড়িয়েছি। পুরনো সুরের জেব্রাক্রসিং টানা হয়েছে আমাদের জীবনরেখায়। দুজনেই জানি খুব ঝুঁকিতে আছি তবু সে রেখার ক্যানভাসে আঁকি দিশাহারা এক বৃষ্টির ছবি। মাটির কোলের রঙ চড়িয়েছি তাতে। তুমি বারবার বলেছিলে নীল নক্সার বিহঙ্গ হতে। অথচ আমি জানতাম আমার চোখের পাতায় গজিয়েছে ধুলোর মরুগাছ। ধূসর সাগরের গহীনে এর বিস্তৃত শিকড়। সুযোগ বুঝে লং ডিস্টেন্সে গড়ে ওঠছে কুয়াশার এক প্রাচীন প্রাচীর। আমাদের ক্রমাগত অস্থিরতার জলোচ্ছ্বাসে বিপদসীমার উপর দিয়ে বয়ে চলেছে নীরব মনের মানচিত্র! এভাবেই গড়ে ওঠে নির্জীব পৃথিবী।

২.
তুমি চোখ বুজে থাকো স্মৃতিভ্রষ্টের মতো। তবু চিতার কাঠে হয় মৌনতার পতন। অন্ধকারে ফিসফিস করে বাজে যে করুণ সুর তাতেই এপিটাফের বাণী গলে হচ্ছে জাফরান-নদী । আমি এখন শুধুই ছায়ানৃত্য দেখি প্রান্তিক কুয়াশায়। দেখতে কি পাচ্ছো কত কত ছায়ামূর্তিতে ভরে উঠছে তোমার ছবিঘর? আর উপত্যকার বালু খুব জমেছে দামী ক্যামেরার লেন্সে । যতবারই স্ন্যাপ নিতে চাই, নিঃশব্দে পাসে এসে বসে ভয়ানক সব স্মৃতির কঙ্কাল। (সম্পূর্ণ…)

সময়ের নাম রাজলক্ষ্মী দাশ

স্বদেশ রায় | ৪ মে ২০১৭ ৭:৪৭ অপরাহ্ন

Anondoরাজলক্ষী দাশ, সে এক আকস্মিক আবিস্কার
কলেজের প্রথম দিনে, প্রথম ক্লাস- তরুণ উত্তেজনা ঠাসা
শিক্ষার্থীদের পরিচয় পর্ব, ভালো ফল করে আসার গর্ব
সব মিলে ছিলো মেঘলা দিনে সূর্যের উজ্জল আভা।
এ সময়ে দুয়ারে হঠ্যাৎ আর্বিভাব, কিছুটা মরালের গলা
উঁচু তার ভঙ্গী, শরীরে ভরা ভাদরের নদীর তরুণী আভা।
তার সাথে মিলে যায় কিশোরী এক, যে করেছিলো খেলা
পারুলের মত,সবুজ বনের পাশে বয়ে যাওয়া নদীর ধারে–
যেখানে নদীর কুলের বাধ পাহাড়ের মত মাথা উঁচু করে থাকে।
সেই কিশোরীর মুখ নিয়ে ভরা তরুণী নদী, অস্ফুট গলায়
মধু ঝরিয়ে বলে, মে আই কামিং স্যার? শুনতে পায় না কেউ,
মনে হয় ডেকে বলি,“স্যার, দুয়ারে অনুমতি চায়,”
সলাজ ঠোঁট কেপে ওঠে, শুধু বলে,“ স্যার-”
শিক্ষক হেসে তাকান, তারপরে দুয়ারে দাঁড়িয়ে রেখে
প্রশ্ন, কী নাম, এত দেরী হলো যার- মরাল গ্রীবা
নীচু হয়, সুমিষ্ট স্বর ঝরে পড়ে, “রাজলক্ষ্মী দাশ”। (সম্পূর্ণ…)

চলো ট্রেনে কাটা পড়ি

আনিসুর রহমান | ২ মে ২০১৭ ৬:৪৮ অপরাহ্ন

Gazipur-father-daughter-suicide-1পুলিশে পুলিশ ধর্ষণ করবে, সহকর্মীরা টিটকারি মারবে,
অসি স্যার মামলা নিবে না, কারা তবে অট্টহাসি হাসবে?
রক্ষক ভক্ষক হলে কি করবে? নাউজুবিল্লাহ, কি বলে !
‘পাগলে কি না বলে, ছাগলে কি না খায়’ কি শুনালে?

ধর্ষিতা পুলিশ কি করবে? বিষ খেয়ে ধরাধামে গুডবাই দেবে?
তাতে কার কি? মরুকগে, বাবা মেয়ের চিরকুট খুঁজে পাবে ?
চিরকুট দিয়ে কি হবে? তাবিজ বানিয়ে সে গলায় পড়ুকগে !
মোড়লের ছেলে গরীবের নাবালিকা মেয়েরে ধর্ষণ করবে:

বিচার চাইবে, বিচার পাবে না, অসি স্যার মামলা নিবে না ;
মেম্বার সাবরে ধরে লাভ হবে না, হালের গরু খোয়া যাবে;
খুঁজে পাবে না, লজ্জা ক্ষোভে ভয়ে গেরাম ছেড়ে দেবে?
লোকে হাসহাসি করবে; গলায় দড়ি দেবে, দাও গিয়ে ! (সম্পূর্ণ…)

যে কাড়ে অন্যের ধন

মুহম্মদ নূরুল হুদা | ১ মে ২০১৭ ৫:৩৯ অপরাহ্ন

প্রেমিকের প্রেম আর শ্রমিকের শ্রম
গড়ে যদি পৃথিবীতে মানব-আশ্রম,
ভেদাভেদ থাকবে না শোষিতে–শোষকে,
কেউ হাত বাড়াবে না অপরের হকে।

শ্রমে-প্রেমে ধন-ধান্যে পূত বসুন্ধরা
চলন্ত-অনন্ত পোত অনন্ত-অধরা;
নাবিক শ্রমিক হলে সুষম কাণ্ডারীঃ
প্রেমিক নাবিক নয় মজুতভাণ্ডারী।

জন্মসূত্রে মানুষেরা শ্রমিক-প্রেমিক,
জন্মসূত্রে কেউ নয় শোষক-মালিক;
মূর্ত-বিমূর্ত ধনে সম অধিকার
জন্মসূত্রে মানুষের; সম্পদ-পাহাড় (সম্পূর্ণ…)

চাকা ভাঙা গাড়ি সভ্যতার

ঝর্না রহমান | ১ মে ২০১৭ ৫:২০ অপরাহ্ন

11_Labour+Day_Press+Club_TAS_010517_0063
কৃষকের হাতে কাস্তে কোদাল চকচকে ফাল হাল লাঙল
হাতুড়ি নেহাই গাঁইতি শাবল শ্রমিকের স্বেদ-নোনতা জল
কুমোরের চাকি আগুন হাঁপর আগ্রাসী শ্বাস কর্মকার
রৌদ্রে পোড়ানো চর্মপত্র সূঁচের গল্প লিখছে কার
লিখছে গল্প ফালের কলম ফেড়ে ফেলা মাটি শস্যবীজ
ধানের উঠোন পাটের আড়ত কাঁথাবোনা নকশি-দহলিজ
লিখছে গল্প পাথরের চাঁই খোয়াভাঙা দিন ছ্যাঁচা আঙুল
গগনচুম্বী অট্টালিকায় মেঘবালিকারা শুকায় চুল (সম্পূর্ণ…)

মে দিবসের কবিতা

আনিসুর রহমান | ১ মে ২০১৭ ৮:৫০ পূর্বাহ্ন

06_May+Day_Garment+Worker+Federation_AP_300417_0002অনুষ্ঠান আয়োজনে গণমাধ্যম যত করুক কলরব জনে জনে; কালের
চাকা ঘুরবে, মে দিবস আসবে যাবে; কালো যাবে, আর আসবে সাদা,
আসবে কালো, লাভ হবে না, যতই চিল্লাক, ডলার খসবে না, কথার
ফুলঝুড়ি সব, মজুরের দিন ফেরে না, মজুরের কপাল আর খুলে না!

মজুর ভাতে মরবে পানিতে মরবে গড়ি চাপা পড়বে: অসুখে বিসুখে
আহাজারি করবে, তেমন হলে লাঠি গুলি টিয়ার গ্যাস বোমা খাবে;
মিলিয় দেখো শতবর্ষ পরে, কথাটা বলি খুব করে, ২১১৭ বছরে
যদি মনে পড়ে, বাংলার কোন কবি আজ মে দিবসের পদ্য রচনা করে|

কে আমির? কে ফকির? সাদাঘরে টাকার কুমির, লাভ হবে না,
কাজ হবে না, মে দিবসের ডাক, শ্রমিক দেবে হাক, হেকে হেকে
মজুর গোল্লায় যাক, মুনাফা মাগবে কোরান বাইবেল ভগবত গীতা
ত্রিপিটক, গ্নন্থ সাহেবে ভর করে, মুনাফা ঠিকাদারে আরেক সর্বনাম ! (সম্পূর্ণ…)

« আগের পাতা | পরের পাতা »

Disclaimer & Privacy Policy  |  About us  |  Contact us

© bdnews24.com