চিনুয়া আচেবের লড়াই এবং ক্ষমতা ও সত্যের সমন্বয়

অলাত এহ্সান | ২১ মে ২০১৫ ২:১৯ অপরাহ্ন

achebe-e1.gif‘আফ্রিকার লেখকের পক্ষে এক ধরনের অঙ্গীকার, এক ধরনের বার্তা প্রদান, এক ধরনের প্রতিবাদ করা—এসব ছাড়া আর কিছুই লেখা সম্ভব নয়। আফ্রিকার জীবনটাই এমন হয়েছে যে আপনাকে প্রতিবাদ করতেই হবে; আপনাকে ইতিহাস, ঐতিহ্য, ধর্ম ইত্যাদি নিয়ে কথা বলতেই হবে।’ আফ্রিকার মহান সাহিত্যিক চিনুয়া আচেবে বলেছিলেন এই কথা। তিনি এইসব কথা বলেছিলেন আফ্রিকার উপনিবেশ ও উত্তর-উপনিবেশিকতার প্রেক্ষিতে দাঁড়িয়ে। তিনি তাঁর সাহিত্য করেছেন এই দায়বদ্ধতা থেকেই। তার অনবদ্য উপন্যাস ত্রয়ী (ট্রিওলজি) ‘থিংস ফল এ্যাপার্ট’, ‘নো লংগার এট এজ’ ও ‘এ্যারো অফ গড’-এর দিকে তাকালেই তা বোঝা যায়। এর বাইরে ‘দেয়ার ওয়াজ এ কান্ট্রি’ ও ‘এন্টহিল অফ দ্য সাভানা’-এ প্রসঙ্গগুলো আরো জোড়ালোভাবে এসেছে।
কিন্তু সাহিত্য যখন উত্তর-আধুনিকতা নিয়ে ভাবছে, তখন আফ্রিকার সাহিত্যিক তার লেখায় কি তুলে ধরবেন? আরেকটু বিস্তারিত ভাবে বললে, বর্তমান বিশ্বে সাহিত্যের কি বা মূল্য আছে, যেখানে মারণাস্ত্রের উন্নতি আর যুদ্ধ নিয়তি হয়ে দাঁড়িয়েছে। (সম্পূর্ণ…)

‘কিন্তু’ গীত

লীসা গাজী | ২০ মে ২০১৫ ২:২০ অপরাহ্ন

‘কিন্তু’ গীত গানেওয়ালা ‘কিন্তু’ গীত বাঁধেন
যৌন হ্য়রানি ন্যাকারজনক
সেইটা ভালোই বোঝেন
‘কিন্তু’ বাইরে যখন পড়বে পা
সবার নজর সমান না
স্মরণ রাখা চাই

আরে ধর্ম-মতে, লোক-মতে
নিজের মান নিজের বটে
বেশভূষা, চাল-চলনে
স্পষ্ট থাকা চাই (সম্পূর্ণ…)

সাম্প্রতিক তিনটি চিত্র প্রদর্শনী

| ১৯ মে ২০১৫ ৬:১৩ অপরাহ্ন

সম্প্রতি ঢাকায় ভিন্নধর্মী তিনটি চিত্র প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ এই প্রদর্শনীগুলো নিয়ে লিখেছেন অঞ্জন আচার্য এবং আব্দুল হালিম চঞ্চল।

শিল্পকলায় পক্ষকালব্যাপী ছাপচিত্র প্রদর্শনী

অঞ্জন আচার্য

গুরুশিল্পীরা কাজ করেছেন আর তার ছায়াতলে দীক্ষিত হয়েছে নবীন শিল্পীরা। তাই গুরুর কাজের শেষ রশ্মিটুকু নিয়ে আবার নতুন দিনের আলো জ্বালিয়েছে নবীন প্রজন্মের শিল্পীরা। আসলে সূর্যহীন অন্ধকারের কোন ইতিহাস নেই; ইতিহাস আছে শুধু সূর্যোদয়ের আর সূর্যের আলোয় উজ্জ্বল প্রহরের। এভাবে শেষ থেকে শুরু হতে হতে এদেশের শিল্পের প্রজন্মের পর প্রজন্ম পেরিয়ে শাখা প্রশাখায় প্রসারিত হয়ে পড়েছে।
বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী ও শূণ্য আর্ট স্পেস যৌথভাবে একাডেমীর জাতীয় চিত্রশালায় ১৬ মে থেকে ৩০ মে “শেষ থেকে শুরু” শীর্ষক পক্ষকালব্যাপী ছাপচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে। এ উপলক্ষে গত শনিবার বেলা ১২টায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর জাতীয় চিত্রশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে পক্ষকালব্যাপী ছাপচিত্র প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন বরেণ্য শিল্পী অধ্যাপক রফিকুন নবী। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্পেন-প্রবাসী বরেণ্য শিল্পী মনিরুল ইসলাম এবং শিল্পসমালোচক মইনুদ্দীন খালেদ। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করেন শূণ্য আর্ট স্পেস-এর প্রধান নির্বাহী জাফর ইকবাল। প্রদর্শনী প্রতিদিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৮টা এবং শুক্রবার বেলা ৩টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত দর্শকদের জন্য খোলা থাকবে। (সম্পূর্ণ…)

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর সাক্ষাতকার: “গান্ধী কিন্তু ভীষণভাবে সমাজতন্ত্রবিরোধী ছিলেন”

রাজু আলাউদ্দিন | ১৬ মে ২০১৫ ১০:২৭ অপরাহ্ন

razu-siraj.jpg১৯৩৬ সালের ২৩ জুন জন্মগ্রহণকারী সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী আমাদের প্রথম সারির সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বদের একজন। বাকস্বাধীনতা, মানবিক অধিকার, পরিবেশ সুরক্ষা, দুর্নীতি প্রতিরোধ এবং সামাজিক ন্যায়বিচার বিষয়ক আন্দোলনের পুরোধা। এসবের পাশাপাশি তিনি লেখক হিসেবেও সুপরিচিত।

সম্পাদনা, প্রবন্ধ, গল্প, উপন্যাস ও অনুবাদ মিলিয়ে তার গ্রন্থের সংখ্যা আশির মতো। দীর্ঘকাল তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ইংরেজী ভাষা ও সাহিত্য বিভাগে অধ্যাপনা করেছেন। স্বাধীনতা-উত্তর বাংলা প্রবন্ধ সাহিত্য যাদের নিরলস অবদানে সমৃদ্ধ তিনি তাদের অন্যতম। মার্ক্সিস্ট চিন্তা-চেতনায় উদ্বুদ্ধ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ‘নতুন দিগন্ত’ পত্রিকার প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক। তার বাসভবনে কবি ও প্রাবন্ধিক রাজু আলাউদ্দিনের সাথে তার দীর্ঘ আলাপ হয়েছিল ২০১০ সালের শেষের দিকে। মুস্তাফিজ মামুনের ধারণ করা সেই দীর্ঘ আলাপচারিতার অনুলিখন ভিডিওসহ উপস্থাপন করা হলো। বি. স. (সম্পূর্ণ…)

মাহবুব হাসানের কবিতা

মাহবুব হাসান | ১৫ মে ২০১৫ ১০:১৪ অপরাহ্ন

আমার স্বপ্নগুলো

আমার স্বপ্নগুলো বেহেস্তের মতো অর্গলবিহীন আর দুঃস্বপ্নগুলো
দোজখের ওম-ভরা
খরখরা এই পৃথিবী আমার
দোজখ আর বেহেস্তের মাঝখানে ঝুলে আছে।

২.
মিথ্যা হলো মধুময়
সত্য বড়ো তিতা
গুণায় ভরা এই মর্ত্য জীবন
রিবনের মতো প্যাচানো
অমর্ত্য ফিতা! (সম্পূর্ণ…)

প্রাণজি বসাক-এর কবিতা

প্রাণজি বসাক | ১৪ মে ২০১৫ ৭:২৪ অপরাহ্ন

দিনে দিনেই

কোথায় বন্দি হয়ে আছি আমি
চারদিকে মোটামোটা লোহার গরাদ থাকা উচিত
তা নেই- অদৃশ্য পাপবোধ আমায় ঘিরে পাহারায়

কার কাছে বিছিয়ে দিলাম শীতল করতল
সে ছুঁয়েও দেখল না জ্বর কতটা নেমেছে
আজকাল কিছুই আর সময়ে থাকবে না
এই চৈত্রেও অস্বাভাবিক বান নেমেছে ভূ-স্বর্গে

ভেসে যাচ্ছি স্রোতে সমূহ বোধ থেকে দূরে
খোলসমুক্ত হয়ে নিম্নগামী হয়ে দিনে দিনেই। (সম্পূর্ণ…)

সুতপার ঠিকানা’য়

শবনম ফেরদৌসী | ১৩ মে ২০১৫ ৯:০৭ অপরাহ্ন

border=0প্রসূন যখন জানাল, ‘সুতপার ঠিকানা’-র রিভিউ আমাকে লিখতে হবে তখন বেশ উভয় সঙ্কটে পড়া গেল। প্রথমত, শেষ কবে লিখেছি মনে পড়ে না। দ্বিতীয়ত, কী লিখতে কী লিখি, শেষে সম্পর্ক অহিনকুলে পরিণত না হয়!

নিজেদের বন্ধু-বান্ধবদের সমালোচনা করার এই এক মুসিবত। চেক অ্যান্ড ব্যালান্সের একটা মাত্রা থেকেই যায়। মূল আলোচনায় প্রবেশের আগে আমি ভাবি, এ ছবি দেখার অভিজ্ঞতার বয়ানের ভাষা কেমন হবে–ধারালো? ঝাঁঝালো? নাকি নম্র-মধুর? কোনটাতে শ্যামও থাকবে, কুলও যাবে না।
সব ভেবে সিদ্ধান্তে পৌঁছাই–এখানে শুধু আমি আমার কথা বলব না, দর্শকদের হয়েও বলব। ৭ মে প্রিমিয়ার শোতে আমার আশপাশে যেসব দর্শক-বন্ধু-সহকর্মী বসেছিলেন তাদের মন্তব্যও স্থান পাবে। ফলে কোনো একচোখা সমালোচনার দায় আমার উপর বর্তাবে না।
তাহলে প্রসূন, শুরু করা যাক। (সম্পূর্ণ…)

গাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেস:

নিঃসঙ্গতার একশ বছর

আনিসুজ্জামান | ১২ মে ২০১৫ ৮:৪০ পূর্বাহ্ন

garcia_marquez.jpgবিশ্বসাহিত্যের ইতিহাসে নিঃসঙ্গতার একশ বছর-এর মতো আর কোনো উপন্যাস প্রকাশের পরপরই এতটা পাঠকপ্রিয়তা পেয়েছে কিনা সন্দেহ। জনপ্রিয়তার বিচারে যেমন, তেমনি শিল্পকুশলতা আর শিল্পমুক্তির ক্ষেত্রেও এটি হয়ে উঠেছে এক অনন্য দৃষ্টান্ত। কেবল স্প্যানিশ সাহিত্যেই নয়, গোটা বিশ্বসাহিত্যের ইতিহাসেই একটি মাত্র উপন্যাসে ইতিহাস, আখ্যান, সংস্কার, কুসংস্কার, জনশ্রুতি, বাস্তব, অবাস্তব, কল্পনা, ফ্যান্টাসি, যৌন-অযাচার ও স্বপ্ন– সবকিছুর এমন স্বাভাবিক ও অবিশ্বাস্য সহাবস্থান আগে কখনও দেখা যায়নি।
ঠিক এই কারণে মারিও বার্গাস যোসা এটিকে বলেছিলেন এক সামগ্রিক উপন্যাস (Novela Total), আর পাবলো নেরুদা একে বলেছিলেন, “সের্বান্তেসের ডন কিহোতের পর স্প্যানিশ ভাষায় সম্ভবত মহত্তম উন্মোচন (“perhaps the greatest revelation in the Spanish language since Don Quixote of Cervantes.”)
বাংলাদেশে এখনও পর্যন্ত কিংবদন্তিতুল্য এই উপন্যাসটি মূলভাষা থেকে অনূদিত হয়নি। এই প্রথম এটি আনিসুজ্জামানের অনুবাদে মূল থেকে ধারাবাহিক অনূদিত হচ্ছে। বি. স.
(সম্পূর্ণ…)

নন্দিতা বসুর সাক্ষাতকার: “তসলিমার মধ্যে অনেক মিথ্যা ভাষণ আছে”

রাজু আলাউদ্দিন | ১০ মে ২০১৫ ৯:৩৮ অপরাহ্ন

dsc01187.JPGনন্দিতা বসু মূলত অধ্যাপক ও লেখিকা। দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনার সূত্রে শিক্ষক হিসেবে পেয়েছিলেন অধ্যাপক রবীন্দ্রকুমার দাশগুপ্ত এবং অধ্যাপক শিশিরকুমার দাশকে। পরবর্তীকালে ১৯৮১ সালে শিশিরকুমার দাশের তত্ত্বাবধানে বাংলা বিদ্যাচর্চা উনিশ শতক শিরোনামে পিএইচডি গবেষণা সম্পন্ন করেছেন। বর্তমানে তিনি দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের আধুনিক ভারতীয় ভাষা ও সাহিত্য বিদ্যাচর্চা বিভাগের অধ্যাপক। গল্প, প্রবন্ধ লেখার পাশাপাশি ভারতীয় অন্যান্য ভাষা থেকে বাংলায় তিনি বেশ কিছু গল্প উপন্যাসও অনুবাদ করেছেন।

বাংলা ভাষায় গবেষণার ক্ষেত্রে বাংলা বিদ্যাচর্চা উনিশ শতক গ্রন্থটির গুরুত্ব এই যে বাংলাভাষা যে বিদ্যাচর্চা হিসেবে একটি স্বতন্ত্র মর্যাদা দাবী করতে পারে এই প্রথম বিপুল পরিমাণ তথ্যকে বিচার বিশ্লেষণের মাধ্যমে হাজির করা হয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ এই বইটিকে কেন্দ্র করেই গত দুই এপ্রিল দিল্লিস্থ তার বাসভবনে কবি ও প্রাবন্ধিক রাজু আলাউদ্দিনের সাথে তার একটি দীর্ঘ আলাপ হয়েছিল। ভিডিওতে ধারণকৃত সেই দীর্ঘ আলাপচারিতার অনুলিখন করেছেন তরুণ লেখক অলাত এহসান। লেখিকা কর্তৃক পরিমার্জিত অনুলিখনের চূড়ান্ত রূপটি এখানে ভিডিওসহ উপস্থাপন করা হলো। বি. স. (সম্পূর্ণ…)

উপসালায় মাতৃভাষা কবিতা উৎসব

আনিসুর রহমান | ১০ মে ২০১৫ ৭:২২ অপরাহ্ন

আমাদের ভাষা-সাহিত্যের ঠিকানা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর পরলোকে চলে গেলেন বাংলা ভাগের বছর কয়েক আগে, ১৯৪১ সালে| সাম্রাজ্যবাদী ব্রিটিশ সাহেবদের খেদানোর পরেও তাঁর বিদায়ের এক দশকের মাথায় যে বাংলা ভাষা এবং বাঙালির জন্য অন্য এক বিপদ অপেক্ষা করছে তা কে জানত|
অর্থাৎ আমাদের রবীন্দ্রনাথও নিষিদ্ধ হলেন, বাংলা ভাষাকেও মুছে ফেলার পাকিস্তানি চক্রান্ত শুরু হল। ১৯৫২ বাঙালি এই চক্রান্তের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। ২১ ফেব্রুয়ারি বাংলা ভাষার আন্দোলন চূড়ান্ত রূপ লাভ করে। সেই দিন পাকিস্তানি পুলিশ প্রতিবাদী বাঙালির উপর নির্বিচারে গুলি চালায়|
সরকার বাঙালির দাবি মেনে নিতে বাধ্য হল, মাতৃভাষা বাংলা পেল রাষ্ট্র ভাষার মর্যাদা|
১৯৯৮ সালে জাতিসংঘ ২১ ফেব্রুয়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি দিল| সারা বিশ্বের মানুষ জানতে পারল বাংলা ভাষা ও বাঙালি জাতির গর্বের ইতিহাস| (সম্পূর্ণ…)

শিল্পীর ভাষ্যে নভেরা আহমেদ : অজ্ঞাতবাস আর শিল্পের বিস্ময়

অলাত এহ্সান | ১০ মে ২০১৫ ১২:৩১ অপরাহ্ন

novera.jpgবাংলাদেশের শিল্পকলার ইতিহাসে আধুনিক ভাস্কর্য শিল্পের যাত্রা নভেরা আহমেদের হাত ধরেই। তিনি এর পথিকৃতের ভূমিকা পালন করেছেন। বাংলাদেশে (তৎকালীন ব্রিটিশ ভারত) জন্ম নেয়া এই নারী ভারতীয় উপমহাদেশের স্কাল্পচারেই আধুনিকতম নারী। বাংলাদেশের জাতীয় শহীদ মিনারের নকশা প্রণয়নে তাঁর ভূমিকা অনস্বীকার্য । গত ৪৫ বছর ধরে তিনি প্যারিসে কাটান। এ সময়ের মধ্যে তিনি একবারও দেশে আসেন নি। তিনি কখনো শিল্পকর্মের স্বীকৃতি চাইতে আসেন নি। ১৯৯৭ সালে বাংলাদেশ সরকার তাঁকে একুশে পদক প্রদান করলেও তিনি সেই সম্মান নিতে আসেন নি। বিভিন্ন সময় রাষ্ট্রীয় উদ্যোগ নিয়েও দেশে আনা যায়নি তাঁকে। খানিকটা লোকচক্ষুর অন্তরালেই কাটিয়েছেন জীবন। আশ্চর্যজনক আড়াল তৈরি করেছিলেন নিজের চারপাশে। দেশের শিল্পীদের সঙ্গেও যোগ ছিল না তাঁর। গত ৬ মে, ৭৬ বছর বয়সে প্যারিসের শঁন পামেল গ্রামে চূড়ান্ত অন্তরালেই চলে গেলেন এ শিল্পী। (সম্পূর্ণ…)

সৈয়দ মুজতবা আলীর ‘দেশে বিদেশে’র ইংরেজি অনুবাদ

প্রমা সঞ্চিতা অত্রি | ৯ মে ২০১৫ ৬:৫৪ অপরাহ্ন

04_book-launching_in-a-land-far-from-home_indra-gandhi-c-c_040515_0012.JPGইন আ ল্যান্ড ফার ফ্রম হোম- সৈয়দ মুজতবা আলীর ভ্রমণকাহিনীভিত্তিক উপন্যাস দেশে বিদেশে বইয়ের ইংরেজি অনুবাদ এটি। অনুবাদক নাজেস আফরোজ। দেশে বিদেশে সৈয়দ মুজতবা আলীর এক অনবদ্য ভ্রমণকাহিনী। গত শতাব্দীর বিশের দশকে ও তার পরবর্তী সময়ের আফগানিস্তানে রাজতন্ত্রের পতন ও গণতন্ত্রের অভ্যুদয়ের সূচনালগ্নের এক মূল্যবান সাক্ষী এই বই। কর্মসূত্রে দীর্ঘদিন কাবুলে অবস্থান করেন নাজেস আফরোজ। সে সময়ই বইটি অনুবাদের কথা চিন্তা করেন তিনি। বইটির ইংরেজি অনুবাদ আদৌ সম্ভব কি না তা নিয়ে প্রথমে সংশয় ছিল তার মনে। পরবর্তীকালে কাবুলের বন্ধুদের অনুরোধে ও দেশি বন্ধুবান্ধব ও সহকর্মীদের উৎসাহে বইটির ইংরেজি অনুবাদে হাত দেন তিনি। (সম্পূর্ণ…)